ইনসাইড এডুকেশন

গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা: কেন্দ্রে পরীক্ষার্থী-অভিভাবকদের ভীড়

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশ: ১০:৪৫ এএম, ১৭ অক্টোবর, ২০২১


Thumbnail

দেশে প্রথমবারের মত গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষা শুরু হচ্ছে আজ। ইতোমধ্যে ২ঘন্টা পূর্বেই পরীক্ষার কেন্দ্র গুলোতে অভিভাবক এবং শিক্ষার্থীদের উপচে পড়া ভীড় দেখা যায়।

আজ রোববার (১৭ অক্টোবর) গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষার এ ইউনিটের (বিজ্ঞান) পরীক্ষা দুপুর ১২টায় শুরু হয়ে শেষ হবে ১টায়।

দেশের ২০টি বিশ্ববিদ্যালয় গুচ্ছভুক্ত হয়ে এবারের ভর্তি পরীক্ষা নিচ্ছে। এতে বিজ্ঞান, মানবিক ও বাণিজ্য বিভাগ মোট তিনটি ইউনিট রয়েছে। আসন রয়েছে মোট ২২ হাজার ১৩টি। এর বিপরীতে আবেদন করেছেন দুই লাখ ৩২ হাজার ৪৫৫ জন শিক্ষার্থী। এর মধ্যে ‘এ’ ইউনিটে এক লাখ ৩১ হাজার ৯০১ জন, ‘বি’ ইউনিটে ৬৭ হাজার ১১৭ জন এবং ‘সি’ ইউনিটে ৩৩ হাজার ৪৩৭ জন শিক্ষার্থী আবেদন করেছেন। এই বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে মোট আবেদনকারী ২ লাখ ৩২ হাজারের মতো।

গুচ্ছ পদ্ধতির ভর্তি পরীক্ষা আয়োজক কমিটি সূত্রে জানা যায়, ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্ন হবে উচ্চ মাধ্যমিকের পাঠ্যসূচির ভিত্তিতে। এতে মোট ১০০ নম্বরের এমসিকিউ পরীক্ষা নেওয়া হবে। পরীক্ষায় প্রতিটি ভুল উত্তরের জন্য কাটা যাবে শূন্য দশমিক ২৫ নম্বর। তবে বিভাগ পরিবর্তনের জন্য আলাদা কোনো পরীক্ষা নেওয়া হবে না।

জিএসটিভুক্ত সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষার ওয়েবসাইটে জানানো হয়েছে, ১৭ অক্টোবর ‘এ’ ইউনিটে বিজ্ঞান, ২৪ অক্টোবর ‘বি’ ইউনিটে মানবিক এবং ১ নভেম্বর ‘সি’ ইউনিটে বাণিজ্য বিভাগের শিক্ষার্থীদের দুপুর ১২টা-১টা পর্যন্ত ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। তবে শিক্ষার্থীদের ভর্তি পরীক্ষা সংক্রান্ত অন্যান্য আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করার জন্য পরীক্ষা শুরুর এক ঘণ্টা আগেই সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রে পৌঁছানোর নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

 দেশের মোট ২৬টি কেন্দ্রে একযোগে এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। কেন্দ্রগুলো হলো- শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, শেরে-ই বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও এনিম্যাল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়, পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়, রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এবং বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়।



মন্তব্য করুন


ইনসাইড এডুকেশন

নাক ডাকা বিষয়ে অনেক গবেষণা দরকার: শিক্ষামন্ত্রী

প্রকাশ: ০৩:৫৯ পিএম, ০৬ ডিসেম্বর, ২০২১


Thumbnail

নাক ডাকা (স্লিপ অ্যাপনিয়া) বিষয়ে অনেক গবেষণা দরকার বলে মনে করেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেন, নাক ডাকা বিষয়ে অনেক গবেষণার দরকার। নাক ডাকার অনেক চিকিৎসা সুবিধা দেওয়া দরকার। নাক ডাকাতে অনেক মানুষ ভোগে তাদের যেন সঠিক চিকিৎসা হয়। এ বিষয়ে আমাদের সচেতনতারও প্রয়োজন রয়েছে। নাক ডাকা যে অসুস্থতা এটা অনেকেই জানেন না। নাক ডাকার যে ভালো চিকিৎসা রয়েছে সেটাও অনেকে জানেন না। আমাদের এ বিষয়ে যথেষ্ট সচেতনতা তৈরি করার প্রয়োজন রয়েছে।

সোমবার (৬ ডিসেম্বর) রাজধানীর হোটেলে ইন্টাকন্টিনেন্টালে ষষ্ঠ আন্তর্জাতিক স্লিপ অ্যাপনিয়া শীর্ষক সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

দীপু মনি বলেন, ঘুমের বিষয়টা আমাদের অনেক জরুরি। খাবার ছাড়া একটা মানুষ ৬৬ দিন বাঁচতে পারে, আর ঘুম ছাড়া বাঁচতে পারে মাত্র ১১ দিন এমন একটি গবেষণা রয়েছে। না ঘুমালে মস্তিস্ক কাজ করে না। নাক ডাকার বড় একটা কারণ ওবিসিটি। শুধু দেশেই নয়, সারা বিশ্বেই ওবিসিটি বড় একটা সমস্যা। ফাস্ট ফুড, খাদ্যাভ্যাস ও হতাশাজনক জীবন যাত্রায় আমরা অভ্যস্ত হয়ে যাচ্ছি। সবকিছু মিলে সারা বিশ্বেই ওবিসিটি মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়ছে।  

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিএমএ সভাপতি অধ্যাপক ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, সংসদ সদস্য অধ্যাপক ডা. প্রাণ গোপাল দত্ত, অধ্যাপক ডা. এ কে এম মোসাররফ হোসেন, অধ্যাপক ডা. আবুল হাসনাত জোয়ারদার প্রমুখ।


মন্তব্য করুন


ইনসাইড এডুকেশন

ইবি ছাত্রলীগের ‘ভুয়া কমিটি’র বিজ্ঞপ্তি ভাইরাল

প্রকাশ: ০৯:৫৫ পিএম, ০৫ ডিসেম্বর, ২০২১


Thumbnail

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি) শাখা ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্তি ও সম্মেলনের জন্য পাঁচ সদস্যের আহ্বায়ক কমিটির বিজ্ঞপ্তি কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের প্যাডে প্রকাশ করা হয়। পরে কেন্দ্র থেকে জানা যায় ওই বিজ্ঞপ্তিটি ভুয়া। তবে এর আগেই ফেসবুকে সয়লাব হয়ে যায় প্রকাশিত ভুয়া বিজ্ঞপ্তিটি। অনেকে অভিনন্দন জানায় সম্মলেন প্রস্তুতি কমিটিতে নাম থাকা নেতাদের।

শনিবার (৫ ডিসেম্বর) রাত সাড়ে ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। তবে কে বা কারা কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের প্যাড এবং সভাপতি-সম্পাদকের স্বাক্ষর নকল করে এমন ভুয়া বিজ্ঞপ্তি ছড়িয়েছে বিষয়টি জানে না কেউ।

ওই প্যাডে নাম থাকা এক ছাত্রলীগ নেতা জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ের আল ফিকহ্ অ্যন্ড লিগ্যাল স্ট্যাডিস বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের এক শিক্ষার্থী তাকে প্রথম এই বিজ্ঞপ্তি ম্যাসেঞ্জারে দেয় এবং অভিনন্দন জানায়। ওই শিক্ষার্থীই সবাইকে দিয়েছে বলে দাবি তার।

এ নিয়ে বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়েছেন কেন্দ্রীয় ও শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ থাকা ছাত্রলীগের পাঁচ নেতাসহ অন্য নেতাকর্মীরা এ ঘটনায় প্রতিবাদ জানিয়ে তদন্তের মাধ্যমে জড়িতদের খুঁজে বের করে শাস্তির দাবি জানান।

এদিকে, ভুয়া বিজ্ঞপ্তিকে উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ও নিজেদের জন্য সম্মানহানিকর দাবি করে রবিবার বিকেলে ইবি থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছেন বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখিত ছাত্রলীগ নেতা ফয়সাল সিদ্দিকী আরাফাত, বিপুল হোসেন খান ও অনিক হাসান।

ইসলামিক বিশ্ববিদ্যালয়   ছাত্রলীগ  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড এডুকেশন

চট্টগ্রামে আগামী শনিবার থেকে হাফ ভাড়া কার্যকর: এনায়েত

প্রকাশ: ১২:২৯ পিএম, ০৫ ডিসেম্বর, ২০২১


Thumbnail

চট্টগ্রামে আগামী শনিবার থেকে ছাত্রদের হাফ ভাড়া কার্যকর হবে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির মহাসচিব খন্দকরা এনায়েতউল্লাহ। আজ রোববার (৫ ডিসেম্বর) এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান তিনি।

বিস্তারিত আসছে...

খন্দকার এনায়েতউল্লাহ   চট্টগ্রাম   হাফ ভাড়া  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড এডুকেশন

ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের উত্তেজনায় আনন্দ মোহন কলেজ বন্ধ ঘোষণা

প্রকাশ: ০৮:৩০ এএম, ০৫ ডিসেম্বর, ২০২১


Thumbnail

ময়মনসিংহের আনন্দ মোহন কলেজ ছাত্রলীগ ইউনিটকে জেলার অধীনে ঘোষণা করা নিয়ে জেলা ও মহানগর ছাত্রলীগের অনুসারীদের মধ্যে উত্তেজনা, ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। গতকাল শনিবার (৪ ডিসেম্বর)  সন্ধ্যায় এ ঘটনায় আনন্দ মোহন কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মো. আমান উল্লাহ স্বাক্ষরিত নোটিশে প্রতিষ্ঠানটির সব আবাসিক হল বন্ধের ঘোষণা দেওয়া হয়।

নোটিশে বলা হয়, রাত সাড়ে ৮টার মধ্যে ছেলেদের এবং আগামীকাল রোববার (৫ নভেম্বর) সকাল ৮টার মধ্যে মেয়েদের হল ত্যাগ করার নির্দেশ দেওয়া হলো।

আনন্দ মোহন কলেজের একাধিক শিক্ষার্থী জানান, গত শুক্রবার রাতে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সরকারি আনন্দ মোহন কলেজ ছাত্রলীগের কমিটি ময়মনসিংহ জেলা ছাত্রলীগের ইউনিট হিসাবে পরিচালিত হবে। কলেজ শাখা ছাত্রলীগের একটি অংশ এই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানায়, আরেক পক্ষ এই সিদ্ধান্তকে সমর্থন জানালে দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।
 
শিক্ষার্থীরা আরও জানান, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানিয়ে কলেজ শাখা ছাত্রলীগের একটি অংশ শুক্রবার রাত ১২টার দিকে কলেজের সামনে বিক্ষোভ করে। এ সময় তারা কলেজ ছাত্রলীগকে ময়মনসিংহ জেলা নয়, মহানগর ছাত্রলীগের অংশ হিসাবে পরিচালনার দাবি জানায়। একই দাবিতে শনিবার সকালেও কলেজের সামনে বিক্ষোভ করে তারা। এ সময় জেলা ছাত্রলীগের পক্ষের নেতা-কর্মীরা মুখোমুখি হলে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। এক পর্যায়ে দুই পক্ষের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এরপর শনিবার সন্ধ্যায় কলেজ ক্যাম্পাসে স্বাভাবিক পরিবেশ নিশ্চিতের দাবিতে ময়মনসিংহ নগরীর টাউন হল এলাকায় সাধারণ শিক্ষার্থীরা মানববন্ধন করে। ওই মানববন্ধন ঘিরে রাতে আবারও ছাত্রলীগের দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়।

এমন প্রেক্ষাপটে শনিবার রাতেই আনন্দ মোহন কলেজের অধ্যক্ষ মো. আমান উল্লার স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে অনির্দিষ্টকালের জন্য সব হল বন্ধ ঘোষণা করা হয়। 

কলেজের অধ্যক্ষ মো. আমান উল্লাহ বলেন, ছাত্রলীগের দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনার কারণে অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে হল বন্ধ ঘোষণা করতে বাধ্য হয়েছি। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে আবারও খুলে দেওয়া হবে।

ময়মনসিংহের কোতোয়ালি মডেল থানার পরির্দশক ফারুক আহমেদ জানান, শিক্ষার্থীদের মধ্যে উত্তেজনার ঘটনায় পুলিশ সতর্ক অবস্থানে রয়েছে। যেকোনো অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে কলেজ এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়ন রয়েছে।

ছাত্রলীগ   আনন্দ মোহন কলেজ  


মন্তব্য করুন


ইনসাইড এডুকেশন

পিইসি পরীক্ষা বাতিলের প্রস্তাব ঢাবির আইইআরের

প্রকাশ: ০৭:৩৪ পিএম, ০৪ ডিসেম্বর, ২০২১


Thumbnail

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইইআর) বলেছে, প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী (পিইসি) পরীক্ষা একটি সনদনির্ভর পরীক্ষা। এই ধরনের পরীক্ষা শিশুদের ওপর অত্যন্ত মানসিক চাপ তৈরি করে। তাই শিশুদের মানসিক চাপ নিরসন এবং তাদের সুষ্ঠু বিকাশ ও আনন্দের মধ্যে দিয়ে শিক্ষালাভের জন্য অবিলম্বে পিইসি পরীক্ষা বাতিল করতে হবে। প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রণয়ন করা ‘প্রাথমিক শিক্ষা শিক্ষা বোর্ড আইন, ২০২১’–এর খসড়া পর্যালোচনা করে আইইআর এ রকম আরও কিছু প্রস্তাব করেছে।

কয়েক দিন আগে আইইআরের পরিচালক অধ্যাপক মো. আবদুল হালিমের সই করা এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, তারা একটি কর্মশালা আয়োজন করে শিক্ষকদের বিশ্লেষণের ভিত্তিতে পর্যালোচনা প্রতিবেদন প্রস্তুত করে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ে প্রেরণ করতে যাচ্ছে।

আর একান্তই যদি জাতীয় পর্যায়ে কোনো মূল্যায়ন করতে হয়, তা প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার মতো না হয়ে বর্তমানে প্রচলিত জাতীয় শিক্ষার্থী মূল্যায়নের (ন্যাশনাল স্টুডেন্ট অ্যাসেসমেন্ট) মতো হতে পারে। যার উদ্দেশ্য হবে শিখনের উন্নয়ন, শিক্ষণ-শিখন পদ্ধতির পরিমার্জন এবং বিদ্যালয় ও শিক্ষাব্যবস্থার উন্নয়ন।

আইইআর বলেছে, শিক্ষাব্যবস্থার সামগ্রিক উন্নয়নের জন্য একটি সমন্বিত শিক্ষা আইন প্রণয়ন করা প্রয়োজন, যেখানে শিক্ষার একটি সামগ্রিক আইনি কাঠামো থাকবে।

উল্লেখ, ২০০৯ সাল থেকে পিইসি পরীক্ষা নেওয়া শুরু করে সরকার। মাদ্রাসার সমমানের শিক্ষার্থীদের জন্যও ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা চালু করা হয়। এখন প্রায় ৩০ লাখ শিক্ষার্থী এসব পরীক্ষায় অংশ নেয়। বর্তমানে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের অধীনে এই পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়   প্রাথমিক শিক্ষা   প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষা  


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন