ঢাকা, বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ , ৪ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

যুক্তরাষ্ট্রে গার্মেন্টস রপ্তানির নতুন সুযোগ

সায়েদুল আরেফিন
প্রকাশিত: ০৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮ শনিবার, ০৮:৩১ এএম
যুক্তরাষ্ট্রে গার্মেন্টস রপ্তানির নতুন সুযোগ

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র আর চীনের দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্যে পাল্টা-পাল্টি ট্যারিফ আরোপের ফলে বিশ্ব বাণিজ্য প্রবাহে মারাত্মক প্রভাব পড়তে যাচ্ছে। চীনা পণ্যের উপর ট্যারিফ বসানোর ফলে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের গার্মেন্টস শিল্প ব্যাপক আকারে অসুবিধায় পড়বে। আর তার ফলশ্রুতিতে এশিয়ার প্রধান প্রধান রেডিমেইড গার্মেন্টস রপ্তানিকারী দেশগুলো লাভবান হবে। দ্য ইকনোমিস্ট তার ৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮ সংখ্যায় এ কথা বলেছে।

এতে একটা পরিসংখ্যান দিয়ে বলা হয়েছে যে, চীন ২০১৭ সালে যুক্তরাষ্ট্রে ৪২৯.৭ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের পণ্য রপ্তানি করেছে। যার মধ্যে আছে ৪২.৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের টেক্সটাইল পণ্য, এর অধিকাংশই রেডিমেড গার্মেন্টস পণ্য। অতিরিক্ত শতকরা ২৫ ভাগ ট্যারিফ বসানোর ফলে প্রধান প্রধান গার্মেন্টস রপ্তানিকারক দেশগুলোর জন্য মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রায় ৫০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার মূল্যের বিশাল বাজারে ভাগ বসানোর সুযোগ তৈরি হবে। 

কোন কোন দেশ বেশি লাভবান হবে সেই প্রশ্নে বলা হয়েছে যে, বাংলাদেশ আর ভিয়েতনাম সবচেয়ে বেশি লাভবান হবার সুযোগ পাবে। কারণ বাংলাদেশে আছে সুপ্রতিষ্ঠিত গার্মেন্টস শিল্প। চীনের পরেই এটি বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম দেশ, যার মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র আর ইউরোপীয় দেশগুলোতে বিরাট গার্মেন্টস রপ্তানির বাজার রয়েছে। বাংলাদেশ ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের দেওয়া জিএসপি সুবিধা দেওয়ার অন্যতম সুবিধাভোগীও বটে। বাংলাদেশ ব্যাংক সূত্র বলেছে ২০১৭ সালে বাংলাদেশের মোট রপ্তানির শতকরা ৬৮.৭ ভাগ হচ্ছে গার্মেন্টস পণ্য।

২০১৫ আর ২০১৬ সালে বিশ্বের গার্মেন্টস রপ্তানি বাজারের অংশ ছিল শতকরা ৩৯.৩ ভাগ ও ৩৬.৮ ভাগ ছিল চীনের দখলে। একই সময়ে বাংলাদেশের অংশ ছিল যথাক্রমে শতকরা ৫.৯ ও ৬.৪ ভাগ।

ভিয়েতনাম হচ্ছে বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম গার্মেন্টস রপ্তানিকারক দেশ। যারা ২০১৭ সালে যুক্তরাষ্ট্রে ১২.৩ বিলিয়ন মার্কিন ডলার মূল্যের সমপরিমাণ গার্মেন্টস পণ্য রপ্তানি করেছে। যা যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে বাংলাদেশের মোট রপ্তানির প্রায় তিনগুণ যা টাকার অংকে ৩.৮ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। ভিয়েতনামের শিল্প খাত বাংলাদেশের চেয়ে অনেক বড় হলেও বাংলাদেশে শ্রমিকদের বেতন ভাতার পরিমাণ গার্মেন্টস রপ্তানিকারক দেশগুলোর মধ্যে সবচেয়ে কম।   

আমাদের অঞ্চলের শ্রীলংকা আর পাকিস্তান বর্তমান প্রেক্ষাপটে খুব কম লাভবান হবে। কারণ শ্রীলঙ্কায় টেক্সটাইল আর রেডিমেইড গার্মেন্টস শিল্পের প্রত্যাশিত বিকাশ হয়নি। অপরদিকে আফগান ইস্যুকে কেন্দ্র করে পাকিস্তানের সঙ্গে একদা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ভাল সম্পর্ক থাকলেও পাকিস্তানের চীন প্রীতি তাকে এই সুযোগ থেকে বঞ্চিত করবে। ভারতের অবস্থাটাও খুব ভাল না কারণ যে যাই বলুক বাংলাদেশের তুলনায় ভারতে শ্রমিকদের বেতন অনেকটাই বেশি। অন্যদিকে ভারতে টেক্সটাইলের তুলনায় রেডিমেইড গার্মেন্টস শিল্পের তেমন বিকাশ হয়নি। তাই ভারতও এই সুযোগ কাজে লাগিয়ে লাভবান হতে পারবে বলে মনে হয় না বলে অভিজ্ঞরা মনে করেন।


দ্য ইকনোমিস্ট অবলম্বনে

বাংলা ইনসাইডার