ঢাকা, সোমবার, ১৪ জুন ২০২১, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

‘৭ মে শেখ হাসিনা স্বদেশ প্রত্যাবর্তন না করলে গণতন্ত্রের মৃত্যু হতো’

জুয়েল খান
প্রকাশিত: ০৭ মে ২০২১ শুক্রবার, ১২:০৬ পিএম
‘৭ মে শেখ হাসিনা স্বদেশ প্রত্যাবর্তন না করলে গণতন্ত্রের মৃত্যু হতো’

আজ ৭ মে। শেখ হাসিনার অন্যরকম স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস। ২০০৭ সালের ১১ জানুয়ারি ওয়ান-ইলেভেন সরকার ক্ষমতা দখল করে। সেনাসমর্থিত অনির্বাচিত সরকার দায়িত্ব গ্রহণ করেই মাইনাস ফর্মুলা বাস্তবায়ন করতে চায়। সেই পেক্ষপটে শেখ হাসিনাকে দেশে আসতে বাধা দেয় তখনকার তত্ত্বাবধায় সরকার। অবশেষ শত বাধা উপেক্ষা করে শেখ হাসিনার দৃঢ় মনোভাবের কাছে হার মেনে তত্ত্বাবধায়ক সরকার শেখ হাসিনার নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে নেয় এবং শেখ হাসিনা ৭ মে দেশে ফেরেন বীরের বেশে। এ বিষয়টি নিয়ে আমাদের আজকের আয়োজন। এ বিষয়ে সাক্ষাৎকার দিয়েছেন বাংলাদেশ মেডিকেল রিসার্চ কাউন্সিলের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. সৈয়দ মোদাচ্ছের আলী।

ডা. সৈয়দ মোদাচ্ছের আলী বলেন, সেদিন শত বাধা অতিক্রম করে শেখ হাসিনা দেশে এসেছিলেন ২টি কারণে।

প্রথমত রাজনৈতিক কারণে শেখ হাসিনার নামে মামলা দেয়া হয় অথচ তিনি মামলা ফেস করবেন না এই ধরনের মানুষ তিনি না। দ্বিতীয়ত দেশ, রাজনীতি, সাধারণ জনগণের এই ক্রান্তিকালে তিনি যদি দেশে না থাকেন তাহলে তিনি তার রাজনৈতিক দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ হলেন। কিন্তু শেখ হাসিনার কোনো ব্যর্থতার ইতিহাস নাই। এই কারণেই তিনি জীবনের ঝুঁকি নিয়ে বাংলাদেশে ফিরে আসেন। তিনি বাংলাদেশে মানুষকে নিজের জীবনের চেয়েও বেশি ভালোবাসেন। আর এর প্রমাণ তিনি বহুবার দিয়েছেন।  

তিনি বলেন, শেখ হাসিনা দেশে ফিরে আসার সিদ্ধান্ত নেন তখন খালেদা জিয়া তার পরিবার নিয়ে বিদেশ চলে যাচ্ছিলেন শুধু তারেকের যাওয়া নিয়ে দরবার চলছিলো। কিন্তু তারা যখনই শুনলেন যে শেখ হাসিনা দেশে আসবেন তখন খালেদা জিয়া যদি চলে যান তাহলে বিএনপির অস্তিত্ব বিলীন হয়ে যাবে। সুতরাং শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তনে জনগণের অধিকার, গণতন্ত্র এবং বিএনপিকেও রক্ষা করেছে।