ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০১৯, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

‘রাস্তায় নামুন, না হলে পদ ছাড়ুন’

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ বুধবার, ০৮:০০ পিএম
‘রাস্তায় নামুন, না হলে পদ ছাড়ুন’

‘হয় রাস্তায় নামুন, না হলে পদ ছেড়ে দিন’ দলের সিনিয়র নেতাদের এমনই বার্তা দিলেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যানের নির্দেশেই সিনিয়র নেতাদের এই বার্তা দেওয়া হয়েছে। বিএনপির দায়িত্বশীল সূত্রগুলো এ কথা জানিয়েছে। সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো জানিয়েছে, সংবাদ সম্মেলনের আগে ৭ ফেব্রুয়ারি দুপুর থেকে বেগম জিয়া দলের সিনিয়র নেতাদের সঙ্গে কথা বলেন।

রায়ের আগেই সিনিয়র নেতাদের আত্মগোপন এবং পলায়নপরতায় ক্ষুদ্ধ বিএনপি চেয়ারপারসন এবং সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান। বিশেষ করে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের আচরণে ক্ষুদ্ধ বেগম জিয়া। বেগম জিয়া মির্জা ফখরুলকে বলেছেন, ‘এত ভয় নিয়ে রাজনীতি করেন কেন? পদ ছেড়ে দেন, অন্য কাউকে দেই।’ দলের অন্যান্য স্থায়ী কমিটির সদস্যের ওপরও বিরক্ত বেগম জিয়া। ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদকে বিএনপি চেয়ারপারসন বলেছেন, ‘আপনারা যদি পালিয়ে থাকেন, তাহলে কর্মীরা নামবে কীসের ভরসায়?’ একই রকম উষ্মা প্রকাশ করেছেন ড. খন্দকার মোশারফ হোসেনের প্রতিও। বলেছেন, ‘পালিয়ে থেকে কী লাভ, জেলে গেলে যাবেন।’ এইসব নেতাকেই তিনি ৮ ফেব্রুয়ারি রায়ের দিন রাজপথে থাকার নির্দেশ দিয়েছেন। কর্মীদের রক্ষা করতে বলেছেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, গুলশান থেকে বিভিন্ন পয়েন্টে নেতৃবৃন্দকে কর্মী নিয়ে থাকার জন্য বলা হয়েছে। পাশাপাশি যত বেশি সম্ভব নেতাকর্মী যেন আদালত প্রাঙ্গনে থাকে সেজন্যও প্রস্তুতি নিতে বলা হয়েছে। কিন্তু বেগম জিয়া জানেন, কাল রাস্তায় কেন্দ্রীয় নেতাদের থাকার সম্ভাবনা কম। আর এ কারণেই জেলে যাবার আগেই সিনিয়র নেতাদের সতর্কবার্তা দিলেন তিনি।

একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছে, এবার আন্দোলন করতে ব্যর্থ হলে দলের মহাসচিব ছাটাই হবেন। স্থায়ী কমিটিতে আনা হবে ব্যাপক পরিবর্তন। এরকম ইঙ্গিতে ক’দিন আগে থেকেই দিচ্ছেন বেগম জিয়া। কিন্তু বেগম জিয়া এবং তার ছেলে যাঁদের উপর আন্দোলনের ভরসা করেছিলেন, তাদের অধিকাংশই গত কয়েক দিনে গ্রেপ্তার হয়ে গেছেন।

বেগম জিয়া ও তারেক জিয়ার পরিকল্পনা ছিল, রায়ে বেগম জিয়া দণ্ডিত হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে রাজপথ দখল করে গণঅভ্যুত্থানের পরিস্থিতি সৃষ্টি করা। কিন্তু সরকার আগে থেকে আক্রমণাত্মক অবস্থানে চলে যাওয়ায় সে সম্ভাবনা নষ্ট হয়ে গেছে। এখন বেগম জিয়া ও তার পুত্র চাইছেন রায়ের দিন কয়েকটা বড় ধরনের সন্ত্রাসী ঘটনা ঘটিয়ে সরকারকে বিপাকে ফেলা। যেভাবে আইন প্রয়োগকারী সংস্থা নিরাপত্তার চাদরে ঢাকাকে ঢেকে ফেলেছে, তাতে করে সেই সম্ভাবনাও ফিকে হয়ে আসছে। তাই বেগম জিয়া চান, সবাইকে নিয়ে জেলে যেতে। কিন্তু সে ঝুঁকি বিএনপি নেতারা আদৌ নেবেন কি না, তা নিয়ে সন্দেহ রয়ে গেছে।



Raed in English- http://bit.ly/2C3FnKg

বাংলা ইনসাইডার/জেডএ