ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৭ জুন ২০২১, ৩ আষাঢ় ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

নির্বাচনকে ঘিরে গাজীপুর এখন উৎসবের নগরী

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২২ জুন ২০১৮ শুক্রবার, ০৪:৫৫ পিএম
নির্বাচনকে ঘিরে গাজীপুর এখন উৎসবের নগরী

সিটি নির্বাচন ঘিরে গাজীপুরে এখন উৎসবের নগরীতে পরিণত হয়েছে। প্রার্থী, কর্মী-সমর্থকদের প্রচার-প্রচারণায় মুখরিত গাজীপুর সিটির প্রতিটি অঞ্চল। নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে মাত্র কয়েকদিন সময় থাকার কারণে দম ফেলারও সুযোগ পাচ্ছেন না প্রার্থীরা। 

গাজীপুর সিটি নির্বাচনের সময় যতটা কাছাকাছি আসছে, প্রার্থীরা প্রচার-প্রচারণায় ততটাই ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন। মেয়র প্রার্থীরা ভোটারদের সমর্থন আদায়ে নানা প্রতিশ্রুতি প্রদান করছেন। পাশাপাশি নিজেদের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা ও প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর দোষ ত্রুটি তুলে ধরে বক্তব্য প্রদান করছেন।

স্থানীয় নেতাকর্মী ও সমর্থকদের পাশাপাশি কেন্দ্রীয় নেতারাও নিজ নিজ দলের প্রাথীর পক্ষে প্রচারণা চালাতে ও ভোট চাইতে দেখা যায়।

মূল প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ ও বিএনপির পার্থীর পাশাপাশি অন্যান্য দলের মেয়র প্রার্থীরাও নিজেদের সামর্থ্য অনুযায়ী প্রচারণা চালাচ্ছে।

গাজীপুর সিটি নির্বাচনের আজ শুক্রবার প্রচারণার পঞ্চম দিনে দেখা যায় আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী এ্যাড. মোঃ জাহাঙ্গীর আলম ১৩ নং ওয়ার্ড কলাবাগান থেকে প্রচারণা শুরু করে। এরপর মজলিসপুর, খলাপাড়া, বাংলাবাজারে গণসংযোগ ও পথসভা করেন। জাহাঙ্গীর আলম চান্দনা চৌরাস্তা জামে মসজিদে জুম্মার নামায আদায় করেন। বিকাল ৩ টা থেকে পুনরায় ১৯ নং কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় প্রচারণা শুরু করেন। পর্যায়ক্রমে আজকে ১৬, ১৮, ১৯ নম্বর ওয়ার্ডে গণসংযোগ ও পথসভা করবেন বলে তার মিডিয়া সেল থেকে জানা যায়।

অপরদিকে বিএনপি প্রার্থী হাসান উদ্দিন সরকার জগিতলা, চান্দনা, মুগলখাল ১৭ নং ওয়ার্ডের এই তিনটি এলাকায় প্রচারনা চালান। বাইতুল ইসলাম জামে মসজিদে হাসান সরকার জুম্মার নামাজ আদায় করেন। বিকালে তিনি বাসাইল এলাকায় প্রচারনা চালাবেন বলে জানা যায়।

ইতিমধ্যে মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য নির্বাচন কমিশনকে সহযোগিতারও আশ্বাস দিয়েছেন। প্রার্থীদের আশ্বাসের কারণে শান্তিপূর্ণ নির্বাচনে আরো বেশি আশাবাদী হয়ে উঠেছেন গাজীপুরবাসী।  

ভোটাররা চান যানজট, সন্ত্রাস ও মাদকমুক্ত, উন্নত-আধুনিক নগরী। সেই সাথে নতুন নির্বাচিত নগরপিতা সুখে দুঃখে সবসময় যেন পাশে থাকেন। নির্বাচনে জয় পরাজয় থাকবে বিরোধীতাও থাকবে কিন্তু নগরীর উন্নয়নে সবাই এক হয়ে কাজ করবেন সেই প্রত্যাশাই করেন নগরবাসীর।

বাংলা ইনসাইডার/আরকে