ঢাকা, শুক্রবার, ১৪ মে ২০২১, ৩০ বৈশাখ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

ই-গভর্নমেন্ট সূচকে বাংলাদেশের নয় ধাপ উত্তরণ

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২৩ জুলাই ২০১৮ সোমবার, ১২:৪২ পিএম
ই-গভর্নমেন্ট সূচকে বাংলাদেশের নয় ধাপ উত্তরণ

জাতিসংঘের ই-গভর্নমেন্ট সূচকে নয় ধাপ এগিয়েছে বাংলাদেশ। রোববার তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সম্মেলনে কক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

জাতিসংঘ তাদের ই-গভর্নমেন্ট সার্ভে ২০১৮ প্রকাশ করে গত ১৯ জুলাই। তথ্য-যোগাযোগ প্রযুক্তি খাতে গত দুই বছরের উন্নয়নের ফলে বাংলাদেশের এই সূচকে উত্তরণ ঘটে। নয় ধাপ এগিয়ে ১৯৩টি দেশের মধ্যে ১১৫ তম অবস্থানে উঠে এসেছে বাংলাদেশ। পাশাপাশি জাতিসংঘের তৈরি ই-পার্টিসিপেশন সূচকেও ৩৩ ধাপ উন্নতি হয়েছে বাংলাদেশের। ফলে এক্ষেত্রে বাংলাদেশ উঠে এসেছে ৫১তম স্থানে।

সংবাদ সম্মেলনে মোস্তফা জাব্বার বলেন, ‘ধীরে ধীরে বাংলাদেশ ই-গভর্নমেন্ট ডেভেলপমেন্ট র‍্যাংকিং-এ তার কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। আন্তর্জাতিক পরিসরে বাংলাদেশের অবস্থানও সুসংহত হচ্ছে।’

এছাড়া সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। তথ্য-প্রযুক্তি খাতে বর্তমান সরকারের নেওয়া বিভিন্ন উদ্যোগের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘২০০৮ সালের আগে বাংলাদেশে ই-সার্ভিসের কিছু ছিল না। এখন ৪০ শতাংশের উপরে সার্ভিস আমরা অনলাইনে দিতে পেরেছি। বর্তমানে আমাদের ইউনিয়ন ডিজিটাল ইনফরমেশন সেন্টারের সংখ্যা ৫ হাজার ২৭২টি। ৫০-৬০ লাখ মানুষ প্রতি বছর সেবা নিতে পারছেন। দুশ থেকে আড়াইশ সার্ভিস এখন অনলাইনে আছে।’

২০২১ সাল নাগাদ ৯০ শতাংশ সরকারি সেবা অনলাইনে নিয়ে আসার লক্ষ্য নিয়ে সরকার ধাপে ধাপে অগ্রসর হচ্ছে বলেও সংবাদ সম্মেলনে উল্লেখ করেন পলক।

অনলাইন সেবা, টেলিকম অবকাঠামো ও দক্ষ মানবসম্পদ – এই তিনটি মাপকাঠি বিবেচনায় ই-গভর্নমেন্ট ডেভেলপমেন্ট সূচক তৈরি করে জাতিসংঘ। নাম্বার দেওয়া হয় ০ থেকে ১ এর মধ্যে। এদের মধ্যে অনলাইন সেবায় বাংলাদেশের পেয়েছে ০.৭৮৪৭, টেলিকম অবকাঠামোতে ০.১৯৭৬ এবং মানবসম্পদে ০.৪৭৬৩। সব মিলিয়ে বাংলাদেশের স্কোর  ০.৪৮৬২।

ই-গভর্নমেন্ট ডেভেলপমেন্ট সূচকে ০.৯১৫ স্কোর নিয়ে সবার ওপরে আছে ডেনমার্ক। আর সবার পেছনে থাকা সোমালিয়ার স্কোর ০.০৫৬৬।

ই-পার্টিসিপেশন (ইপিআই) সূচকে ০.৮০৩৪ স্কোর নিয়ে বাংলাদেশ আছে ৫১ তম অবস্থানে। পারফেক্ট ১ স্কোর নিয়ে সবার চেয়ে এগিয়ে আছে ডেনমার্ক, ফিনল্যান্ড ও দক্ষিণ কোরিয়া। আর শুন্য নিয়ে সবার শেষে সোমালিয়া।

ডিজিটাল গভর্নমেন্টের প্রসার ঘটিয়ে ২০৩০ সালের মধ্যে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জন সহজ করতে ২০০১ সাল থেকে দু বছর পরপর এই জরিপগুলো প্রকাশ করে আসছে জাতিসংঘ।


বাংলা ইনসাইডার/এসএইচটি/জেডএ