ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৩ ফাল্গুন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

‘বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বাস্তবায়নে পাশে থেকেছেন বঙ্গমাতা’

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮ আগস্ট ২০১৮ বুধবার, ০৩:৩২ পিএম
‘বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বাস্তবায়নে পাশে থেকেছেন বঙ্গমাতা’

আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বাস্তবায়নে তাঁর পাশে থেকে সবসময় সহযোগীতা করেছেন বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব। আমার মা খুব জ্ঞানপিপাসু ছিলেন। লেখাপড়ার তেমন সুযোগ না পেলেও চিন্তা ভাবনায় তিনি অনেক উচ্চমানের ছিলেন।’

বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের ৮৮তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এসব কথা বলেন।  

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমার মা কোনো সময় নাই শব্দটা বলতেন না। মায়ের মুখে কখনই অভাব অনটনের কথা শুনতাম না। আমাদের কঠোর নির্দেশ দিতেন, ঘরে কোনো জিনিস না থাকলে নাই বলা যাবে না। ঘরে চিনি না থাকলে বলতেন, ফুরিয়ে গেছে, আনতে হবে। অভাব-অনটন কোন সময় প্রকাশ করতেন না তিনি।’ 

শেখ ফজিলাতুন্নেছা অনেক উদারমনা ছিলেন উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, দলের নেতাকর্মী ও গরীবদের সাহায্য করতে তিনি নিজের গহনা বিক্রি করে দিয়ে বলেছেন, ডিজাইন পুরনো হয়ে গেছে তাই বিক্রি করে দিয়েছি, পরে আবার নতুন বানাব। ঠাণ্ডা পানি খেলে গলা ব্যথা হয় এই কথা বলে ফ্রিজ বিক্রি করে দিয়েছিলেন। কিন্তু আমি বড় মেয়ে, সব বুঝতে পারতাম।’

শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়া এবং স্বাধীনতা যুদ্ধ নিয়ে বাবার নাম আছে ইতিহাসে কিন্তু মার নাম নেই। অথচ বাবার নেতৃত্বের পেছনে মূল চালিকা শক্তি ছিলেন আমার মা বেগম ফজিলাতুন নেছা। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হওয়ার পেছনে আমার মায়ের অনেক বেশি অবদান ছিল।’  

প্রধানমন্ত্রী তাঁর বক্তব্যে আরও বলেন, ‘আমার মা ছিলেন সবচেয়ে বড় গেরিলা। বাবা যখনই বন্দী হতেন, তখন মা ঢাকা শহরে আমাদের বিভিন্ন আত্মীয়-স্বজনের বাসায় গিয়ে সেখান থেকে পোশাক পরিবর্তন করে আবার অন্য আত্মীয়দের বাসায় গিয়ে নেতাদের সঙ্গে মিটিং করতেন। পাকিস্তানি গোয়েন্দাদের চোখ ফাঁকি দিয়ে নেতাদের আন্দোলনের পরামর্শ দিতেন আমার মা। আব্বার নামে সেই সময়ে ৪৭টি ফাইল ছিল। কিন্তু আমার মার নামে গোয়েন্দারা একটি ফাইলও তৈরি করতে পারেনি।’  

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘মা জানতেন বাংলাদেশ একদিন স্বাধীন হবে। বাবা গ্রেপ্তার হলে আমরা কাঁদতাম কিন্তু মা কাদঁতেন না। মা বলতেন, এ দেশের সাত কোটি মানুষ তোর বাবার সঙ্গে আছে, তাকে কেউ আটকিয়ে রাখতে পারবে না।’ 

১৯৩০ সালে আজকের দিনে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব। ১৯৭৫ সালের ১৫ই আগস্টে জাতির পিতা হত্যাকারীদের নিষ্ঠুর, বর্বরোচিত হত্যাযজ্ঞের শিকার হয়ে তিনিও শহীদ হন।


বাংলা ইনসাইডার/আরকে/জেডএ