ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর ২০২১, ১৩ কার্তিক ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

চূড়ান্ত হচ্ছে অভিন্ন রূপরেখা ও অন্যান্য সংবাদ

নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ২৮ আগস্ট ২০১৮ মঙ্গলবার, ০৮:৩০ এএম
চূড়ান্ত হচ্ছে অভিন্ন রূপরেখা ও অন্যান্য সংবাদ

দেশের চলমান রাজনৈতিক ইস্যুকে অন্তর্ভুক্ত করে বৃহত্তর ঐক্যের রূপরেখা প্রায় চূড়ান্ত। বর্তমান প্রেক্ষাপটে দেশে ভোটের অধিকার ও গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় সরকারবিরোধী বৃহত্তর ঐক্য গড়ে তোলার কথা বলা হয়েছে এ রূপরেখায়। সব কিছু ঠিক থাকলে আগামী মাসেই রাজধানীতে সমাবেশের মাধ্যমে এ ঐক্যের ঘোষণা আসতে পারে। বিএনপি, গণফোরাম, তিন দলের সমন্বয়ে যুক্তফ্রন্টসহ আরও কয়েকটি রাজনৈতিক দলকে দেখা যেতে পারে একই মঞ্চে। তবে এ ঐক্য প্রক্রিয়ায় রাখা হচ্ছে না স্বাধীনতাবিরোধী জামায়াতে ইসলামীকে। বৃহত্তর ঐক্য চূড়ান্ত হলে জাতীয় ইস্যুতে যুগপৎ আন্দোলনে নামবে দলগুলো। পরে এ ঐক্য রূপ নিতে পারে নির্বাচনী ঐক্যে। (যুগান্তর)

অন্যান্য সংবাদ

ডিজি পরিবারের পেটে রেল!

জামাই-শ্বশুরের ইচ্ছায়ই এখানে সব হয়! এই দুজন ছাড়া রেলের কোনো কাজ হয় না। বদলি, পদোন্নতি, পদায়ন, বিদেশ সফর—সব কিছুতেই তাঁদের হাত থাকবে। এর বাইরেও একজন আছেন। তিনি রেলের কেউ নন, কিন্তু দুলাভাই রেলের বড়কর্তা হওয়ার সুবাদে একের পর এক কাজ বাগিয়ে নিচ্ছেন। বিভিন্ন ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের নামে গত তিন বছরে শতাধিক কিলোমিটার রেলপথ মেরামতের কাজ করেছেন শ্যালক। গতকাল সোমবার বাংলাদেশ রেলওয়ে সম্পর্কে খোঁজখবর নিতে রাজধানীর রেল ভবনে গেলে একাধিক কর্মকর্তা কালের কণ্ঠ’র কাছে অভিযোগ করে বলেন, সাম্প্রতিক সময়ে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের স্বজনপ্রীতি আর অনিয়মের ফলে রেল বড় রকমের ক্ষতির মুখে পড়েছে। (কালের কণ্ঠ)

১০ বছর ধরে উপেক্ষিত হাইকোর্টের রায়

সড়ক-মহাসড়কে দুর্ঘটনা রোধে যানবাহনের গতি নিয়ন্ত্রণ ও পর্যবেক্ষণের জন্য ২০০৮ সালে হাইকোর্টের দেওয়া রায় ১০ বছরেও বাস্তবায়িত হয়নি। ওই রায়ে উন্নত বিশ্বের আদলে দেশের সব গাড়িতে গতি নিয়ন্ত্রক যন্ত্র স্থাপন (স্পিড গার্ড বা গভর্নর) এবং কেন্দ্রীয়ভাবে তা পর্যবেক্ষণের জন্য পাঁচটি আধুনিক ল্যাবরেটরি স্থাপন করতে বলা হয়েছিল। অথচ ওই রায় বাস্তবায়নে কার্যকর কোনো ব্যবস্থাই গ্রহণ করেনি সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ)। ফলে চালকের অবহেলা ও বেপরোয়া গাড়ি চালানোর কারণে সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণহানি ঘটে চলেছে। (সমকাল)

ফেসবুকে রাষ্ট্রবিরোধী উসকানি : চ্যানেল আইয়ের নারী কর্মকর্তা তদন্ত জালে

কোমলমতি শিক্ষার্থীদের ‘নিরাপদ সড়ক চাই’ আন্দোলন ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার নানামুখী চেষ্টা করা হয়েছিল। সে সময় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক ব্যবহার করে সরকারবিরোধী আন্দোলনের উসকানিও দিয়েছেন অনেকে। বেসরকারি স্যাটেলাইট টেলিভিশন চ্যানেল আইয়ের একজন নারী কর্মকর্তার ওই সময় ফেসবুক লাইভে দেয়া বক্তব্যের তদন্ত করছে একাধিক গোয়েন্দা সংস্থা। (ভোরের কাগজ)

বাংলা ইনসাইডার/এসএইচটি