ঢাকা, বুধবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৮, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

বিমসটেকে আভ্যন্তরীণ সহযোগিতা বাড়ানোর আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ৩০ আগস্ট ২০১৮ বৃহস্পতিবার, ০৭:০৫ পিএম
বিমসটেকে আভ্যন্তরীণ সহযোগিতা বাড়ানোর আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘প্রতিটি ক্ষেত্রে নতুন গতিশীলতার ফলে বিশ্ব পরিস্থিতি দ্রুত পরিবর্তন হয়েছে। এক্ষেত্রে পশ্চাৎপদ দেশগুলোকে নতুন গতিশীলতার সঙ্গে তাল মেলাতে হবে এবং বর্তমান বাস্তবতা হলো দ্বিপাক্ষিক, আঞ্চলিক ও বহুপক্ষীয়-এই ত্রিমুখী সহযোগিতার মাধ্যমে এটা করতে হবে। বিমসটেক অঞ্চলের মুল সমস্যা হচ্ছে দারিদ্র, জলবায়ু ঝুঁকি এবং সন্ত্রাস। উন্নয়নে সার্থে এ অঞ্চলের স্থিতিশীলতার দরকার। বিমসটেক দেশগুলোতে আন্ত বাণিজ্যের সুযোগ বাড়াতে হবে।’

সামিট অব দ্য বে অব বেঙ্গল ইনিশিয়েটিভ ফর মাল্টিসেক্টোরাল টেকনিক্যাল অ্যান্ড ইকোনমিক কো-অপারেশনের (বিমসটেক) চতুর্থ সম্মেলনের উদ্বোধনী অধিবেশনে দেওয়া বক্তৃতায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ কথা বলেন। নেপালের প্রধানমন্ত্রীর স্বাগত বক্তব্য শেষে বক্তব্য রেখেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রী বিমসটেকের মাধ্যমে জোটের অন্তর্ভুক্ত দেশগুলোর মধ্যে মুক্তবাণিজ্য এলাকা সৃষ্টি, বিনিয়োগ ও জ্বালানি সহযোগিতা, মানুষের সঙ্গে মানুষের যোগাযোগ বৃদ্ধি এবং অর্থায়ন প্রক্রিয়ার উন্নয়নে সহযোগিতা বাড়ানোর আহ্বান জানিয়েছেন।

আজ বৃহস্পতিবার নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডুর হোটেল সোয়ালটি ক্রাউন প্লাজায় বাংলাদেশ সময় পৌনে পাঁচটার দিকে বক্তব্য প্রদান শুরু করেন প্রধানমন্ত্রী।

নেতাদের খুব উৎসাহী সম্মিলিত প্রতিশ্রুতি থাকা সত্ত্বেও প্রতিষ্ঠার ২১ বছরে বিমসটেকের সফলতা হাতে গোনা কয়েকটি বলে উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী। এ প্রেক্ষিতে তিনি বর্তমান রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে বিমসটেকের সুযোগ ও কাঠামো পুনঃপর্যালোচনা করতে উপস্থিত নেতাদের আহ্বান জানান। দৃশ্যমান ফলাফল পেতে সহযোগিতার ক্ষেত্রে বাস্তব উদ্যোগের জন্য মৌলিক আইনি কাঠামো মজবুত করার ওপরও গুরুত্বারোপ করেন তিনি।

এসময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আরও বলে, ‘শান্তি ও স্থিতিশীলতার ওপর উন্নয়ন নির্ভর করে। ক্ষুধা-দারিদ্র্য, নিরক্ষরতা দূরীকরণসহ বৈষম্যহীন সুষম উন্নয়ন নীতি নিয়ে কাজ করছে বাংলাদেশ। ২০৫০ সালের মধ্যে বাংলাদেশ বিশ্বের ২৩তম বড় অর্থনীতির দেশ হবে। ২০০৬ সালে দেশে দারিদ্র্যের হার ছিল ৪১.৫ % বর্তমানে তা ২১ % নেমে এসেছে। উন্নয়নের জন্য আন্তর্জাতিক বাণিজ্যের সুযোগ কাজে লাগাবে বাংলাদেশ।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ছাড়াও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, ভুটানের অন্তর্বতী সরকারের প্রধান উপদেষ্টা দাসো শেরিং ওয়াংচুক, শ্রীলংকান প্রেসিডেন্ট মাইথ্রিপালা সিরিসেনা, থাইল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী প্রিয়ুথ চ্যান-ও-চার, মিয়ানমারের প্রেসিডেন্ট উইন মিন্ট বিমসটেক সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন।


বাংলা ইনসাইডার/বিকে/আরকে/জেডএ