ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৩ এপ্রিল ২০২১, ২৯ চৈত্র ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

‘৯০ ভাগ মানুষ এখন বিদ্যুৎ সুবিধা পাচ্ছেন’

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ রবিবার, ১২:১৭ পিএম
‘৯০ ভাগ মানুষ এখন বিদ্যুৎ সুবিধা পাচ্ছেন’

দু’শ প্রকার সরকারি সেবা বাংলাদেশের জনগণের হাতে পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। ৯০ ভাগ মানুষ এখন বিদ্যুৎ সুবিধা পাচ্ছেন। ১৫ কোটি তিন লাখ মানুষ এখন মোবাইল সিম ব্যবহার করেন। আজ রোববার সকালে রাজধানীর রেডিসন হোটেলে জেদ্দাভিত্তিক ইসলামি উন্নয়ন ব্যাংকের (আইডিবি) আঞ্চলিক প্রধান কার্যালয়ের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য প্রদানকালে সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের কথা তুলে ধরতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এসব কথা বলেন ।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমরা বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতকে অগ্রাধিকার দিচ্ছি। ২০২১ সালের মধ্যে ২৪ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করবো। সকলে মিলে নতুন প্রজন্মের জন্য উজ্জ্বল ও সমৃদ্ধ দেশ গড়ে তুলবো, এমন পরিকল্পনা নিয়েছি।’

প্রযুক্তিতে বাংলাদেশ অনেক এগিয়ে গেছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘মহাশূন্যে ‘বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট’ উৎক্ষেপণের মাধ্যমে ৫৭তম স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণকারী দেশ হওয়ার গৌরব অর্জন করেছি।’

শেখ হাসিনা আরও বলেন, ‘‘আমরা শিক্ষা ও স্বাস্থ্য খাতকে এগিয়ে নিতে কাজ করছি। আমরা নারী উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছি। জাতীয় নারী উন্নয়ন নীতিমালা করেছি। নারী পোশাক শ্রমিকদের দক্ষতা বৃদ্ধিতে আমরা কাজ করছি।’ এসময় প্রধানমন্ত্রী নেপাল, ভুটান ও পাকিস্তানের চেয়ে বাংলাদেশের নারীরা এগিয়ে আছেন বলে নিজ বক্তব্যে উল্লেখ করেন।

রোহিঙ্গা ইস্যু নিয়েও কথা বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বর্তমানে বাংলাদেশ একটি মানবিক সংকট মোকবেলা করছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেওয়ায় স্থানীয় লোকদের ওপর নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে।

আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে মিয়ানমারের ওপর চাপ সৃষ্টির জন্য অনুরোধ জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘মানবিক দিক বিবেচনা করে আমরা তাদের আশ্রয় ও খাদ্য দিয়ে যাচ্ছি। কিন্তু আমরা তাদের দেশে পাঠাতে চাই। মিয়ানমারের সঙ্গে এ বিষয়ে দ্বিপাক্ষিক চুক্তি হয়েছে।’

এছাড়া দুর্যোগ মোকাবেলায় সরকারের উদ্যোগের কথাও নিজ বক্তব্যে তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী।

বাংলাদেশে এতদিন আইডিবির আঞ্চলিক সদর দফতর ছিল না। রাজধানীর আগারগাঁওয়ে আইডিবি ভবনে এখন ‘ফিল্ড অফিসের’ মাধ্যমে কার্যক্রম পরিচালনা করতো আইডিবি। তবে আইডিবির সব সিদ্ধান্তই আসতো সদর দপ্তর থেকে। তাই ঢাকায় আঞ্চলিক সদর দফতর চালু করার উদ্যোগ নিয়েছে সংস্থাটি।

বাংলা ইনসাইডার/এসএইচটি/জেডএ