ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৩ ফাল্গুন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

‘বাংলাদেশ ভালো থাকলে আমরা ভালো থাকবো’

নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৮ সোমবার, ০৫:৪২ পিএম
‘বাংলাদেশ ভালো থাকলে আমরা ভালো থাকবো’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি আজ সোমবার ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রকল্প দুটি রেল প্রকল্পের নির্মাণকাজের উদ্বোধন করেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবন থেকে ও দিল্লি থেকে নরেন্দ্র মোদি উদ্বোধন অনুষ্ঠানে অংশ নিয়েছেন। ভিডিও কনফারেন্সে বক্তব্য রেখেছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এ সময় তিনি বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভূয়সী প্রশংসা করেন। সেইসঙ্গে বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের নিবিড় সম্পর্কের কথাও উল্লেখ করেন। বক্তব্যদান কালে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা ভালো থাকলে বাংলাদেশ ভালো থাকবে, আবার বাংলাদেশ ভালো থাকলেও আমরা ভালো থাকবো।’

ভিডিও কনফারেন্সে উদ্বোধন করা প্রকল্প দুটি হলো বাংলাদেশের কুলাউড়া-শাহবাজপুর রেলওয়ে অংশের সংস্কার এবং আখাউড়া-আগরতলা ডুয়েলগেজ রেল সংযোগ (বাংলাদেশ অংশ)।

ভিডিও কনফারেন্সে উদ্বোধন অনুষ্ঠানে গণভবনে উপস্থিত আছেন রেলমন্ত্রী মো. মুজিবুল হক, রেল সচিব মো. মোফাজ্জেল হোসেন। অপরদিকে, আখাউড়া ও শাহবাজপুর রেলওয়ে স্টেশনে ভিডিও কনফারেন্সে অংশ নিয়েছেন ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়সহ ভারতের রেলওয়ে মহাপরিচালক এবং স্থানীয় রাজনৈতিক নেতাসহ রেলওয়ে কর্মকর্তারা।

এরপর ভিডিও কনফারেন্সে বক্তব্য রেখেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। বাংলাদেশের উন্নতির জন্য তাঁর সরকার সবসময়ই বাংলাদেশের পাশে থাকবে বলে জানান তিনি। এছাড়াও এ প্রকল্প দু’টি উদ্বোধনের মাধ্যমে বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের সম্পর্ক আরও গভীর হবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

বাংলাদেশ রেলওয়ে সূত্রে জানা যায়, কুলাউড়া-শাহবাজপুর অংশের সংস্কার এবং আখাউড়া-আগরতলা ডুয়েলগেজ রেলসংযোগ প্রকল্পের কাজে বাংলাদেশ ও ভারত যৌথভাবে অর্থায়ন করবে।

তথ্য বিবরণীতে আরও বলা হয়, এই প্রকল্পের প্রাক্কলিত ব্যয় ৬৭৮ কোটি ৫০ লাখ ৭৯ হাজার টাকা। প্রকল্পটির মোট ব্যয়ের ৫৫৫ কোটি ৯৮ লাখ ৭৬ হাজার টাকা ভারত সরকারের এলওসি ঋণ। বাকি অর্থের জোগান দিবে বাংলাদেশ সরকার। দ্বিতীয় প্রকল্পের আওতায় প্রায় ১০ কিলোমিটার ডুয়েলগেজ রেললাইন, কালভার্ট, যাত্রী প্ল্যাটফর্ম, প্ল্যাটফর্ম ছাউনি, শুল্ক ও ইমিগ্রেশন ভবন এবং রেস্ট হাউজ নির্মাণ করা হবে। এতে অনুমানিক ব্যয় ধরা হয়েছে ২৪০ কোটি ৯০ লাখ ৬৩ হাজার টাকা। ভারতীয় মঞ্জুরি সহায়তায় এই প্রকল্প বাস্তবায়িত হবে বলে জানানো হয়েছে।

প্রকল্প দুইটি নির্মাণ হলে দুই দেশের মধ্যে সম্পর্ক আরও জোরদার হবে বলে আশা করা হচ্ছে। প্রথমদিকে রেললাইন দিয়ে পণ্যবাহী ট্রেন চলাচল করবে। পরবর্তীতে দু’দেশের কর্তৃপক্ষ যাত্রী পারাপারের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন।


বাংলা ইনসাইডার/বিকে/জেডএ