ঢাকা, শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮ , ৫ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

৫৩ দিন পর আবার বড়পুকুরিয়া তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্রের উৎপাদন শুরু

নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮ শুক্রবার, ০৬:১৪ পিএম
৫৩ দিন পর আবার বড়পুকুরিয়া তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্রের উৎপাদন শুরু

দীর্ঘ ৫৩ দিন বন্ধ থাকার পর আবার উৎপাদন শুরু হয়েছে দেশের একমাত্র কয়লা ভিত্তিক বড়পুকুরিয়া তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্রে। বড়পুকুরিয়া খনি থেকে কয়লা সরবারাহ পাওয়ায় গতকাল রাত ২ টা ২৭ মিনিটে উৎপাদন শুরু করেছে বিদ্যুৎকেন্দ্রটি।

৫২৫ মেগাওয়াট বিদ্যুৎকেন্দ্রের তিনটি ইউনিটের মধ্যে নবনির্মিত ২৭৫ মেগাওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন তৃতীয় ইউনিটটি চালু করা সম্ভব হয়েছে। এরফলে এই ইউনিট থেকে জাতীয় গ্রীডে ১৫৭ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ যোগ হচ্ছে। 

এই ইউনিটটি থেকে জাতীয় গ্রীডে ১৫৭ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ যোগ হওয়ায় উত্তরাঞ্চলে লোড সেডিং ও লোভোল্টেজ কিছুটা কমেছে বলেও জানা যায়। 

বড়পুকুরিয়া তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের প্রধান প্রকৌশলী আব্দুল হাকিম সরকার এ বিষয়ে বলেন, ‘গত রাত ২ টা ২৭ মিনিটে থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন শুরু হয়। ওই সময়ে ১৫৭ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের রেকর্ড করা হয়। পরবর্তীতে ধীরে ধীরে এই উৎপাদন আরও বৃদ্ধি পাবে। কয়লার মজুদ বাড়লে বিদ্যুৎকেন্দ্রের প্রথম ও দ্বিতীয় ইউনিট দুটিও চালু করা হবে।’

তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্রের সূত্র থেকে জানা যায়, তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের তিনটি ইউনিট চালাতে গেলে প্রতিদিন ৫ হাজার ২শ মেট্রিক টন কয়লার প্রয়োজন। তাই কয়লার মজুদ বৃদ্ধি না পেলে বাকি দুটি ইউনিট চালু করা সম্ভব হবে না। 

উল্লেখ্য, গত ১৫ জুন খনির ১২১০ নম্বর কোল ফেসের উত্তোলনযোগ্য কয়লার মজুদ শেষ হয়ে যাওয়ার কারণে, ১৬ জুন থেকে কয়লা উত্তোলন বন্ধ হয়ে যায়। কয়লার অভাবে বড়পুকুরিয়া ৫২৫ মেগাওয়াট তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রটিও বন্ধ হয়ে যায়। এরমধ্যেই গত ১৯ জুলাই কয়লা খনির ইয়ার্ড থেকে প্রায় ১ লাখ ৪৫ হাজার টন কয়লা উধাও হওয়ার ঘটনা ঘটে।

কয়লা উধাও হওয়ার এ ঘটনায় ২৪ জুলাই খনির চারজন উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তাসহ ১৯ কর্মকর্তার নামে দুর্নীতি দমন আইনে পার্বতীপুর মডেল থানায় একটি মামলা করা হয়। গত ৩০ আগস্ট পর্যন্ত কয়লা খনির সাবেক ও বর্তমান মিলে ৩০ জন কর্মকর্তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে দুদক।

বাংলা ইনসাইডার/আরকে