ঢাকা, বুধবার, ২১ নভেম্বর ২০১৮, ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

একই উঠানে মসজিদ-মন্দির

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১৭ অক্টোবর ২০১৮ বুধবার, ০৪:৪৭ পিএম
একই উঠানে মসজিদ-মন্দির

মোরা এক বৃন্তে দুটি কুসুম হিন্দু-মোসলমান। 
মুসলিম তার নয়ন-মণি, হিন্দু তাহার প্রাণ। 

কাজী নজরুল ইসলামের লেখা এই গানটির অন্তর্নিহিত কথাগুলো বাস্তবে দৃশ্যমান হয় লালমনিরহাট জেলার কালীবাড়িতে। এ শহরে একই উঠানে রয়েছে একটি মসজিদ ও মন্দির। একই উঠানে দুই ধর্মের দুই উপাসনালয়ে শত বছর ধরে, কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই চলছে ধর্মীয় আচার ও অনুষ্ঠান।   

লালমনিরহাট শহরের পুরাণ বাজারের কালীবাড়ি এলাকায় পাশাপাশি দাঁড়িয়ে রয়েছে একটি মসজিদ ও মন্দির। সামনের খোলা স্থানটিতে পূজার সময় যেমন মেলা বসে, তেমনি আবার মুসলমানদের ওয়াজ মাহফিলসহ অন্যান্য ধর্মীয় অনুষ্ঠানও হয়ে থাকে। হানাহানি ও মতবিরোধ ছাড়াই শত বছর ধরে এভাবেই পারস্পারিক সহযোগিতায় ধর্মীয় আচার পালন করে আসছেন স্থানীয় দুই ধর্মের ধর্মপ্রাণ ব্যক্তিরা।  

লালমনিরহাটের এই স্থানে কালীমন্দির থাকায়, স্থানটি অনেকের কাছেই কালীবাড়ি নামেই পরিচিত। জানা যায়, ১৮৩৬ সালে দুর্গামন্দিরটি প্রতিষ্ঠিত হয়। এরপর মন্দির প্রাঙ্গণে ১৯০০ সালে একটি মসজিদ নির্মিত হয়। পুরাণ বাজার জামে মসজিদ নামে এটি পরিচিতি পায়।

কেন্দ্রীয় কালীবাড়ি মন্দির কমিটির সনদ চন্দ্র সাহা জানান, প্রায় দেড়শ বছর আগে এ মন্দিরটি প্রতিষ্ঠিত হয়। পরে এখানে শহরের ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা মন্দিরের পাশেই প্রতিষ্ঠা করেন পুরাণ বাজার জামে মসজিদ। সেই থেকে এক উঠানেই চলছে দুই ধর্মের দুই উপাসনালয়ের কার্যক্রম।

পুরাণ বাজার জামে মসজিদ পরিচালনা কমিটির ফজল মিয়া জানান, ‘ধর্মীয় সম্প্রীতির এটি একটি জ্বলন্ত উদাহরণ। যুগ যুগ ধরে একই উঠানে চলছে নামাজ ও পূজা-অর্চনা।’

এলাকাবাসীর সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, ‘নামাজের সময়ে পূজারিরা ঢাক-ঢোলসহ অন্যান্য শব্দ-যন্ত্র বন্ধ রাখেন। নামাজ শেষ করে মুসল্লিরা বের হয়ে যায়। এরপর পূজারিরা পূজার কার্যক্রম শুরু করেন। শত বছর ধরে এভাবেই সম্প্রীতির বন্ধনে আবদ্ধ হয়ে ধর্মীয় উৎসব পালন করছেন তারা।’  

সম্প্রীতির এই স্থানটি দেখতে দুর্গাপূজার সময় দেশ-বিদেশের অসংখ্য দর্শনার্থীরা ভিড় করেন। লালমনিরহাটে ধর্মীয় সম্প্রতির এ নিদর্শন বিশ্বের ধর্মপ্রাণ মানুষের কাছে এক অপূর্ব উদাহরণ বলে মনে করেন অনেকেই।

অসাম্প্রদায়িক চেতনার ভিত্তিতে বাংলাদেশ রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। তার প্রকৃত উদাহরণ লালমনিরহাটের পুরাণ বাজারের কালীবাড়িতে পাশাপাশি দাঁড়িয়ে থাকা মসজিদ ও মন্দির।  সম্প্রীতির বাংলাদেশে সকল ধর্মের মানুষ এভাবেই মিলেমিশে তাদের ধর্ম আচার অনুষ্ঠান পালন করবে এমনটাই প্রত্যাশা সকলের।

বাংলা ইনসাইডার/আরকে/জেডএ

বিষয়: মসজিদ , মন্দির