ঢাকা, সোমবার, ১৪ জুন ২০২১, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

জেল হত্যা দিবস আজ ও অন্যান্য সংবাদ

নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৩ নভেম্বর ২০১৮ শনিবার, ০৮:৪১ এএম
জেল হত্যা দিবস আজ ও অন্যান্য সংবাদ

 

আজ ৩রা নভেম্বর। শোকাবহ জেলহত্যা দিবস। মানব সভ্যতার ইতিহাসে কলঙ্কময়, রক্তঝরা ও বেদনাবিধুর একটি দিন। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর  রহমানকে সপরিবারে হত্যার পর ৩রা নভেম্বর মধ্যরাতে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের নির্জন প্রকোষ্ঠে চার জাতীয় নেতা বাংলাদেশের প্রথম অস্থায়ী রাষ্ট্রপতি সৈয়দ নজরুল ইসলাম, প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দিন আহমেদ, মন্ত্রিসভার সদস্য ক্যাপ্টেন এম মনসুর আলী এবং এএইচএম কামরুজ্জামানকে নির্মম ও নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়। একাত্তরের স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের শত্রুরা সেদিন দেশ মাতৃকার সেরা সন্তান জাতীয় এই চার নেতাকে শুধু গুলি চালিয়েই ক্ষান্ত হয়নি, কাপুরুষের মতো গুলিবিদ্ধ দেহকে বেয়নেট দিয়ে খুঁচিয়ে ক্ষত-বিক্ষত করে একাত্তরের পরাজয়ের জ্বালা মিটিয়েছিল। প্রগতি-সমৃদ্ধির অগ্রগতি থেকে বাঙালিকে পিছিয়ে দিয়েছিল। ইতিহাসের এই নিষ্ঠুর হত্যাযজ্ঞের ঘটনায় শুধু বাংলাদেশের মানুষই নয়, স্তম্ভিত হয়েছিল সমগ্র বিশ্ব। কারাগারের নিরাপদ আশ্রয়ে থাকা অবস্থায় বর্বরোচিত এ ধরনের হত্যাকান্ড পৃথিবীর ইতিহাসে বিরল। (ইত্তেফাক)

অন্যান্য সংবাদ

নতুন ফর্মুলা দেবেন ড. কামাল, তফসিলে চোখ বিএনপির

সংলাপ থেকে কিছুই অর্জন হয়নি, আবার কিছুটা সফল হয়েছে—এমন দুই ধরনের আলোচনাই আছে বিএনপিসহ জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের অন্তর্ভুক্ত দলগুলোর মধ্যে। পুরোপুরি ‘ব্যর্থ’—এ কথা দলগুলো আনুষ্ঠানিকভাবে বলতে রাজি নয়। কারণ সংলাপ চালিয়ে নেওয়া উচিত, এমন কথা আবার সংলাপে আলোচনা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ আওয়ামী লীগ নেতারা বলেছেন, তারা চাইলে আরো সংলাপ হতে পারে। (কালের কণ্ঠ)

দারিদ্র্যমুক্ত দেশ গড়তে নৌকায় ভোট দিন

ময়মনসিংহ বিভাগের উন্নয়নে ১৯৫টি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করে নৌকা মার্কায় ভোট চেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রকল্পগুলোর কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমি আপনাদের জন্য উপহার নিয়ে এসেছি। এগুলো বাস্তবায়ন হলে এই অঞ্চলের আর্থ-সামাজিক অবস্থার উন্নয়ন হবে। শুধু এই অঞ্চল নয়, গোটা বংলাদেশের উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছি। ক্ষুধা ও দারিদ্র্য তাড়িয়ে উন্নত ও সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়তে কাজ করছি। আগামী নির্বাচনে নৌকা মার্কায় ভোট চেয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আপনারা হাত তুলে ওয়াদা করেন, আগামী নির্বাচনে নৌকা মার্কায় ভোট দেবেন। শুক্রবার বিকালে ময়মনসিংহের ঐতিহাসিক সার্কিট হাউস মাঠে জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দিচ্ছিলেন তিনি। (যুগান্তর)

সংলাপ ব্যর্থ হলে কঠোর আন্দোলন

পাঁচ বছর পর বহু কাঙ্ক্ষিত প্রথম সংলাপ কার্যত `ফলপ্রসূ` না হওয়ায় `হতাশ` জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতারা। দশম সংসদ নির্বাচন নিয়ে সংলাপসহ অতীতের সব সংলাপ ব্যর্থ হলেও এবার সহজেই হাল ছাড়তে রাজি নন ঐক্যফ্রন্ট নেতারা। দাবি নাকচ অথবা সংলাপ ব্যর্থ হলেও সেটা তারা বলতে রাজি নন। তারা সরকারের সঙ্গে আলোচনার পথ খোলা রাখতে চাইছেন। সব দলের অংশগ্রহণের মাধ্যমে আগামী একাদশ সংসদ নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করতে শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত `ইতিবাচক` মনোভাব রাখতে চান তারা। ঐক্যফ্রন্ট এখনও আশাবাদী যে সংলাপের মাধ্যমেই একটা সমাধান আসবে। এ লক্ষ্যে শিগগির ছোট আকারে `সুনির্দিষ্ট কমিটি` গঠন করে সংলাপ চালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করবে সরকারবিরোধী এই জোট। প্রথম সংলাপের ফলাফল নিয়ে অসন্তুষ্টি প্রকাশ করলেও পরবর্তী সংলাপের জন্য নির্বাচনের তফসিল ঘোষণাও পিছিয়ে দেওয়ার দাবি জানাবেন তারা। এ সময়ের মধ্যে ছোট পরিসরে সংলাপের বিষয়ে `কার্যকর` ও `অর্থবহ` উদ্যোগ নিতে দ্রুত সরকারি দলের সঙ্গে যোগাযোগ করবেন তারা। তবে শেষ পর্যন্ত কাঙ্ক্ষিত সংলাপ ব্যর্থ হলে আন্দোলনের পথেই হাঁটবে ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বে ঐক্যফ্রন্ট।  (সমকাল)

বাংলা ইনসাইডার/এসএইচটি