ঢাকা, মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৬ আশ্বিন ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

রাত ১২টায় ছাত্রলীগের দ্বন্দ্ব মিটলো যেভাবে

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২০ মে ২০১৯ সোমবার, ১০:৩২ এএম
রাত ১২টায় ছাত্রলীগের দ্বন্দ্ব মিটলো যেভাবে

ছাত্রলীগের পদবঞ্চিত নেতা-কর্মীরা গতকাল রোববার দিবাগত রাতেই তাদের আন্দোলন প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। ছাত্রলীগের দুই পক্ষই তাদের দ্বন্দ্ব মিটিয়ে ফেলেছে বলেও জানা গেছে। কিন্তু টানা কয়েকদিন ধরে চলা অভিযোগ-পাল্টা অভিযোগ আর উত্তেজনার পরিসমাপ্তি কীভাবে ঘটলো তা নিয়ে কৌতুহলী সবাই। 

জানা গেছে, গতকাল রাতেই ধানমন্ডির আওয়ামী লীগ সভাপতির কার্যালয়ে আওয়ামী লীগ নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেন আন্দোলনকারীদের একটি অংশ। সেখানে পূর্ণাঙ্গ কমিটি থেকে বিতর্কিতদের এবং মধুর ক্যান্টিনে পদবঞ্চিতদের ওপর হামলার ঘটনায় চিহ্নিতদের বহিষ্কারের আশ্বাস দেওয়া হয়। এরই প্রেক্ষিতে আন্দোলন কর্মসূচী প্রত্যাহার করে নিয়েছে পদবঞ্চিতরা। এছাড়া গতকাল রাত ১২টার পর ছাত্রলীগ সভাপতি সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন এবং সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী রাজু ভাস্কর্যের সামনে গিয়ে আন্দোলনকারীদের সঙ্গে কথা বলেন। এসময় আন্দোলনকারীদের কাছে বিভিন্ন ঘটনার জন্য দুঃখ প্রকাশ করেন সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী। মধুর ক্যান্টিনে হামলার ঘটনায় রাব্বানী ছাত্রলীগ থেকে চার জনকে বহিষ্কার করার আশ্বাস দেন। এরপরই দুই পক্ষ তাদের বিরোধ মিটমাট করে ফেলে বলে জানা গেছে।

এর আগে, গতকাল রাত সাড়ে ১১টার দিকে আন্দোলনকারীরা ধানমন্ডির আওয়ামী লীগ সভাপতির কার্যালয়ে যান। ছাত্রলীগ সভাপতি সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন এবং সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানীও সেখানে উপস্থিত ছিলেন। এই বৈঠকে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক ও আবদুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক মোজাম্মেল হক ও বাহাউদ্দিন নাছিম ছাত্রলীগের দুই পক্ষের বিরোধের মীমাংসা করেন। বৈঠকে আন্দোলনকারীদের পক্ষ থেকে ছাত্রলীগের রোকেয়া হলের সভাপতি বিএম লিপি আক্তার, বাংলাদেশ কুয়েত মৈত্রী হলের সাধারণ সম্পাদক ফরিদা পারভীন, শামসুন নাহার হলের সভাপতি নিপু ইসলাম তন্বী, ডাকসুর সদস্য তিলোত্তমা সিকদার, গত কমিটির প্রচার সম্পাদক সাঈফ বাবু, বাংলাদ্শ কুয়েত মৈত্রী হলের সভাপতি শ্রাবণী শায়লা, জসীম উদ্দীন হলের সাধারণ সম্পাদক শাহেদ খান উপস্থিত ছিলেন বলে জানা গেছে।

বাংলা ইনসাইডার/এএইচসি