ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৪ আশ্বিন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Bagan Bangla Insider

বিমান অ্যাপ: ঘরে বসেই টিকিটের সব সুবিধা

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২৪ আগস্ট ২০১৯ শনিবার, ০৪:০৩ পিএম
বিমান অ্যাপ: ঘরে বসেই টিকিটের সব সুবিধা

মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমেই জানা যাবে বিমানের টিকিট সম্পর্কে। ঘরে বসেই টিকিট কাটা বা পরিবর্তন করা যাবে তারিখ। এমন সুবিধা প্রস্তুত করা হচ্ছে বিমানের আ্যপ। যা প্রায় শেষ পর্যায়। এখন চলছে যাচাই বাছাই। আর একমাস পরে অ্যাপটি প্লেস্টোরে ছেড়ে দেওয়া হবে। তখন যে কেউ মোবাইল ফোনে অ্যাপটি ডাউনলোড করে বিমান টিকিটসহ অনেক সুবিধা পাবেন বলে জানিয়েছে বিমান কর্তৃপক্ষ।

রাত দিন যেকোনো সময়ে মোবাইল অ্যাপসে প্রবেশ করে টিকিট কাটা এবং পেমেন্ট সুবিধা পাবেন যাত্রীরা। পেমেন্ট বিভিন্ন মোবাইল ব্যাংকিং বিকাশ রকেট সহ ব্যাংকের এটিএম ও ক্রেডিট কার্ড দিয়ে পেমেন্ট করা যাবে।

বেসামরিক বিমান পরিবহন পর্যটন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (বিমান ও সিএ) মো. মোকাব্বির হোসেন গণমাধ্যমে জানান, ‘অ্যাপটি বিমান নামেই প্লেস্টোরে থাকবে। টিকিট করা, টিকিট পরিবর্তন, বাতিল, রিফান্ড সুবিধা এখানে থাকবে। এছাড়া যাত্রী অনলাইনে চেকইন ও ব্যাগেজ ব্যবস্থাপনা সুবিধা পাবেন অ্যাপের মাধ্যমে।’

বিমানের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা জানান, অ্যাপটির কাজ প্রায় শেষ বলা যায়। এখন যাচাই বাছাই চলছে। পুরোপুরি একটি টিকিটিং অ্যাপস এটি। যা স্মার্টফোনের এন্ড্রয়েড এবং আইওএস উভয় প্লাটফর্মে ব্যবহার করা যাবে।

ইত্তেহাদ বা এমিরেটস এয়ারলাইন্সের অ্যাপে যাত্রীরা যেসব সুবিধা পান ঠিক একই সুবিধা দেওয়া হবে বিমানের এই অ্যাপে। এখন এটি প্লেস্টোরে ছাড়ার অপেক্ষায় রয়েছে বলে জানান বিমানের এই কর্মকর্তা।

বাংলাদেশের একমাত্র সরকারি উড়োজাহাজ সংস্থা বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স। রাষ্ট্রীয় পতাকাবাহী এই উড়োজাহাজের ঢাকা ছাড়াও চট্টগ্রাম এবং সিলেট থেকে কার্যক্রম পরিচালিত হয়। বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ৩৬টি নিজস্ব টিকিট বিক্রয়কেন্দ্র রয়েছে। এর মধ্যে আটটি বাংলাদেশে এবং ২৮টি বিদেশে। এছাড়া হাজারের বেশি এজেন্টের মাধ্যমে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স টিকিট বিক্রি করে। অনেক সময় যাত্রীরা এজেন্টের মাধ্যমে টিকিট কিনতে গিয়ে অতিরিক্ত দাম দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া যেত। তবে মোবাইল অ্যাপসের মাধ্যমে যাত্রী বিমানের যেকোনো রুটের টিকিট সরাসরি ন্যায্যমূল্যে কাটতে পারবেন।

বহির্বিশ্বের ১৯টি রুটে এবং দেশের ভেতরে ৭টি  রুটে চলে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স। আর আন্তর্জাতিক রুটের মধ্যে সবচেয়ে বেশি ফ্লাইট পরিচালনা করা হয় মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে।

সবশেষ বোয়িং ড্রিমলাইনার গাঙচিলসহ রাষ্ট্রীয় বিমান সংস্থার বহরে রয়েছে ১৫টি উড়োজাহাজ। আগামী মাসে যোগ হবে আরও ১টি ড্রিমলাইনার।

বাংলা ইনসাইডার/এমআরএইচ