ঢাকা, সোমবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৯, ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

গতিবেগ ১২৫, প্রভাব শুরু বরিশাল-খুলনাতে

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮ নভেম্বর ২০১৯ শুক্রবার, ০৬:৫০ পিএম
গতিবেগ ১২৫, প্রভাব শুরু বরিশাল-খুলনাতে

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ তীব্র সাইক্লোনে রূপ নিয়েছে। ঘণ্টায় ১২৫ কিলোমিটার বেগের বাতাসের শক্তি নিয়ে বাংলাদেশ-ভারত উপকূলের দিকে ধেয়ে আসছে।

আপাতত ‘বুলবুল’র গতিমুখ সুন্দরবনের দিকে। শনিবার বিকেলের পর বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকায় ঝড়ের প্রভাব অনুভূত হতে পারে। মধ্যরাতে খুলনা অঞ্চল দিয়ে বুলবুল উপকূল অতিক্রম করতে পারে।

এদিকে এর মধ্যেই ঘূর্ণিঝড়টির প্রভাব পড়তে শুরু করেছে বরিশাল অঞ্চলে। শুক্রবার সকাল থেকেই সেখানে আকাশ মেঘলা ছিল। দুপুর ১২টার পর থেকে সেখানে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি হচ্ছে। ঝড়ের প্রস্তুতি হিসেবে এর মধ্যেই নদী তীরবর্তী চরাঞ্চল ও নিম্নাঞ্চলের মানুষদের সাইক্লোন শেল্টারগুলোতে আশ্রয় নিতে মাইকিং করা হচ্ছে। প্রস্তুত রাখা হয়েছে ২৩২টি আশ্রয় কেন্দ্র। নদী বন্দরগুলোতে এক নম্বর বিপদ সংকেত দেয়া হয়েছে।

বরিশালের ন্যায় খুলনাতেও বুলবুলের প্রভাবে খুলনায় বেলা ১১টার পর থেকে গুঁড়িগুঁড়ি বৃষ্টি শুরু হয়েছে। ঘূর্ণিঝড় মোকাবিলায় খুলনা সদরসহ ৯ উপজেলায় কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে। সরকারি-বেসরকারি ৩৩৮টি সাইক্লোন শেল্টার প্রস্তুত করা হয়েছে। ঘূর্ণিঝড় বুলবুল বঙ্গোপসাগর থেকে উত্তর-পশ্চিম উপকূলের দিকে এগিয়ে আসছে বলে জানিয়েছেন আবহাওয়াবিদরা।

শুক্রবার দুপুর ১২টায় চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে ৬৯৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণ পশ্চিমে, কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে ৬৪৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণ পশ্চিমে, মোংলা সমুদ্রবন্দর থেকে ৫৮৫ কিলোমিটার দক্ষিণে এবং পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে ৫৭৫ কিলোমিটার দক্ষিণে অবস্থান করছিল এ ঝড়। ওই সময় ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের ৬৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় ১০০ কিলোমিটার, যা দমকা অথবা ঝোড়ো হাওয়ার আকারে ১২০ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছিল।

 বাংলা ইনসাইডার/এসএস