ঢাকা, বুধবার, ১৬ জুন ২০২১, ২ আষাঢ় ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

রংপুর থেকে নির্বাচন করবেন জয়?

নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ২২ জুন ২০১৭ বৃহস্পতিবার, ০১:৫৯ পিএম
রংপুর থেকে নির্বাচন করবেন জয়?

রংপুর-৬ (পীরগঞ্জ) আসনে আগামী নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারেন সজীব ওয়াজেদ জয়। ঈদ উপলক্ষে পীরগঞ্জের কয়েকজন নেতা গণভবনে শেখ হাসিনার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন। বৈঠকে উপস্থিত নেতারা বাংলা ইনসাইডারকে বলেছেন, সাক্ষাৎকালে তাঁরা প্রধানমন্ত্রীকে রংপুর-৬ আসন থেকে জয়কে প্রার্থী করার অনুরোধ করেন। জবাবে শেখ হাসিনা বলেন, এটা জয়ই সিদ্ধান্ত নেবে।

স্থানীয় নেতৃবৃন্দ জানান, এর আগে শেখ হাসিনা একই প্রস্তাব নাকচ করে দিতেন। সর্বশেষ দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের সময়ও শেখ হাসিনা রংপুরের আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দকে জানিয়েছিলেন, ‘এখন না’। এবার শেখ হাসিনা সিদ্ধান্তের ভার ছেলে উপরই ছেড়ে দিয়েছেন। এটাকে স্থানীয় নেতারা সবুজ সংকেত হিসেবে দেখছেন। পীরগঞ্জ আওয়ামী লীগের শীর্ষ স্থানীয় একজন নেতা বলেছেন, ‘জয়কে আমরা রাজি করাবো।’ এক সপ্তাহের মধ্যেই সজীব ওয়াজেদ জয়ের ঢাকায় আসার কথা রয়েছে।

রংপুর-৬ সজীব ওয়াজেদ জয়ের পিতৃভূমি। ড. ওয়াজেদ মিয়া রংপুরের পীরগঞ্জে জন্মগ্রহণ করেছিলেন। ড. ওয়াজেদ কখানো সরাসরি রাজনীতিতে যুক্ত ছিলেন না। কিন্তু তাঁর ছোট ভাই এবং আত্মীয় স্বজনই স্থানীয় আওয়ামী লীগের নীতি নির্ধারক। এই আসনটি ছিল ঐতিহাসিকভাবে আওয়ামী লীগের। বঙ্গবন্ধুর অন্যতম সহচর মতিউর রহমান এই আসন থেকে নির্বাচিত হয়েছিলেন। কিন্তু ৯০ এ এরশাদের পতনের পর, রংপুরে এরশাদেরই জোয়ার শুরু হয়। ৯১ এর নির্বাচনে রংপুরের সবগুলো আসনেই এরশাদের জাতীয় পার্টি বিজয়ী হয়। জাতীয় পার্টির দাপটে রংপুরে আওয়ামী লীগ দুর্বল হয়ে যায়। গত কয়েক বছরে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক শক্তি বাড়লেও নেতৃত্বের সংকট রয়েই গেছে। পীরগঞ্জ আসন থেকে দশম জাতীয় সংসদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন বর্তমান স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশেই শিরীন শারমিন এই আসনে নির্বাচন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। শিরীন শারমিন এখন লক্ষীপুর সদর আসনে জনসংযোগ করছেন। লক্ষীপুর থেকেই আগামী নির্বাচনে তিনি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন তা মোটামুটি নিশ্চিত।

রংপুরের আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতারা মনে করছেন জয় পীরগঞ্জের আসন থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করলে রংপুরের সব আসনেই জোয়ার তৈরি হবে।

সজীব ওয়াজেদ জয় ২০০৮ এর নির্বাচন থেকে সরসারি নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নেন। ২০০৮ সালেও তাঁর জন্য মনোনয়ন কেনা হয়েছিল। ২০১৪ তেও তাঁর জন্য মনোনয়ন পত্র কিনেছিল স্থানীয় আওয়ামী লীগ।


বাংলা ইনসাইডার


বিষয়: আওয়ামী-লীগ