ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ৮ ফাল্গুন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

আগামী ১৭ মার্চ থেকে ম্যানুয়াল নামজারি আর নয় - ভূমিমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১৯ জানুয়ারি ২০২০ রবিবার, ০৬:৩৯ পিএম
আগামী ১৭ মার্চ থেকে ম্যানুয়াল নামজারি আর নয় - ভূমিমন্ত্রী

 

আগামী ১৭ মার্চ, ২০২০ থেকে নামজারির জন্যে কোন ম্যানুয়াল আবেদন গ্রহণ করা হবেনা। যেসব ভূমি অফিসে এখনও বিদ্যুৎ সুবিধা অপ্রতুল সেসব অফিসে সৌর বিদ্যুৎ সিস্টেম স্থাপন করে ই-নামজারি চালু করা হবে।

আজ রবিবার ভূমি মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত বিভাগীয় কমিশনার সমন্বয় সভায় সভাপতিত্ব করতে গিয়ে ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী, এমপি এ ঘোষণা দেন। এ সময় ভূমি সচিব মোঃ মাক্‌ছুদুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।

সাইফুজ্জামান চৌধুরী আরও বলেন, বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপনের বছরই ভূমি অফিসে নামজারির আবেদন প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ ডিজিটালাইজড করার প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নে আমরা বদ্ধ পরিকর।

এছাড়া, অতি জরুরী ভিত্তিতে কারও নামজারি করার প্রয়োজন হলে বিশেষ ফি-এর বিনিময়ে নামজারি সেবা প্রদান করা যায় কিনা, বিভাগীয় কমিশনারদের সে বিষয়টি খতিয়ে করে দেখার নির্দেশ দেন ভূমিমন্ত্রী।

বিভাগীয় কমিশনার সমন্বয় সভার পূর্বে একই স্থানে অনুষ্ঠিত হয় মাঠ পর্যায়ে সহকারী কমিশনার (ভূমি)দের অনুকূলে ডাবল কেবিন পিক-আপ হস্তান্তর অনুষ্ঠান।

আজ ভূমি মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন সহকারী কমিশনার (ভূমি)/রাজস্ব সার্কেলের (এসিল্যান্ড) অনুকূলে ৫৫টি ডাবল কেবিন পিকআপ হস্তান্তর করার মধ্যে দিয়ে বর্তমানে দেশে কর্মকাণ্ড পরিচালিত করা সবগুলো (৪৯৪টি) উপজেলা ভূমি অফিসে/রাজস্ব সার্কেলে দাপ্তরিক গাড়ি বরাদ্দ সম্পন্ন হয়েছে।

উল্লেখ্য, ইতোমধ্যে নতুন ভাবে আরও ১৭টি এসিল্যান্ড-এর পদ সৃজন করা হয়েছে। এসকল অফিসের গাড়ি টিওএন্ডইভুক্ত (সাংগঠনিক কাঠামো ও অফিস সরঞ্জাম তালিকা) হওয়ার পর ঐ সব ভূমি অফিসে/রাজস্ব সার্কেলে গাড়ি বরাদ্দ দেওয়া হবে।

উপস্থিত সহকারী কমিশনার (ভূমি)দের (এসি ল্যান্ড) উদ্দেশ্যে মন্ত্রী বলেন, কেবিন-পিকআপ দেওয়ার মূল উদ্দেশ্য আপনারা যেন আপনাদের আওতাধীন এলাকার ভূমি অফিসগুলো ঠিকভাবে পর্যবেক্ষণ করতে পারেন ও প্রয়োজনে আকস্মিক পরিদর্শন করতে পারেন। এছাড়া, এর সাথে যেন সরকারি অন্যান্য দায়িত্ব সঠিক ভাবে পালন করে মাঠ পর্যায়ে একটি গুণগত পরিবর্তন আনতে পারেন।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে আরও উপস্থিত ছিলেন ছিলেন মন্ত্রণালয়ের মাঠ প্রশাসন শাখার অতিরিক্ত সচিব প্রদীপ কুমার দাস, উপসচিব কামরুল ইসলাম চৌধুরী, কেবিন-পিকআপ সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান প্রগতি ইন্ডাস্ট্রি লিমিটেডের প্রতিনিধিবৃন্দ।