ঢাকা, শনিবার, ০৮ আগস্ট ২০২০, ২৩ শ্রাবণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

খালেদা জিয়ার প্যারোলের জন্য ভুল আবেদন  

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০ বৃহস্পতিবার, ১১:৪৬ এএম
খালেদা জিয়ার প্যারোলের জন্য ভুল আবেদন  

কারাবন্দি বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়াকে বিদেশে চিকিৎসার জন্য আবেদন করেছেন তার ছোট ভাই শামীম এস্কান্দার। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালের উপাচার্য ডা. কনক কান্তি বড়ুয়ার কাছে শামীম এস্কান্দার এই আবেদনটি করেন।

কনক কান্তি বড়ুয়া বাংলা ইনসাইডারকে বলেছেন যে, এই আবেদনের ব্যাপারে তাদের কোনো এখতিয়ার নেই। তিনি এটা মেডিকেল বোর্ডের কাছে পাঠাবেন। কারণ বেগম জিয়া কারাবন্দি। কারাবন্দির উন্নত চিকিৎসার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষমতা জেল কর্তৃপক্ষ এবং স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের।

বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ বলছে যে, বেগম জিয়াকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে যাওয়ার আবেদন করতে হবে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কাছে জেল কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে। কাজেই শামীম এস্কান্দারের এই আবেদন নিয়ে বিএসএমএমইউ কর্তৃপক্ষের কিছুই করার নেই।

বিএসএমএমইউ উপাচার্যের কাছে শামীম এস্কান্দার যে আবেদন করেছেন, তাতে লেখা হয়েছে, ‘খালেদা জিয়ার দ্রুত অবনতিশীল স্বাস্থ্যের পরিপ্রেক্ষিতে যে কোনো অপূরণীয় ক্ষতি এড়াতে আধুনিক সুযোগ-সুবিধা সংবলিত বিদেশি হাসপাতালে চিকিৎসা প্রয়োজন। খালেদা জিয়ার পরিবারের পক্ষ থেকে ব্যয় বহন করা হবে।’

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আবেদনের বিষয়ে তিনি বা তার দল কিছু জানে না।

আইনজীবীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বেগম জিয়ার ভাই যেই আবেদনটি করেছেন সেটি ভুল আবেদন, সেটির গ্রহণযোগ্যতা নেই। কারণ দেশে প্রচলিত আইন অনুযায়ী কেউ যদি শারীরিক অসুস্থতা বা অন্য কোনো কারণে জেল থেকে সাময়িক মুক্তি চায় সেক্ষেত্রে কারাবন্দি ব্যক্তিকেই স্বরাষ্ট্র সচিব বরাবর আবেদন করতে হয়ে। সেখানে তার নিজের স্বাক্ষরও থাকতে হয়। কিন্তু বেগম জিয়ার ভাই যে আবেদনটি করেছেন সেখানে বেগম জিয়ার কোনো স্বাক্ষরই নেই।

উল্লেখ্য, জিয়া অরফানেজ এবং চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার ১৭ বছরের সাজা হয়েছে। তিনি ইতোমধ্যে জেলে দুই বছর পার করেছেন। এরমাঝে প্রায় ১০ মাস ধরে তিনি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। কিছুদিন আগে সুপ্রিমকোর্ট থেকে তার জামিন আবেদন নাকচ হয়েছে।

বাংলা ইনসাইডার/এএইচসি