ঢাকা, বুধবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৪ ফাল্গুন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

করোনা নিয়ে ব্যবসা

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০ শনিবার, ১১:৪৭ এএম
করোনা নিয়ে ব্যবসা

আমাদের দেশে এখন পর্যন্ত করোনা ভাইরাস আসেনি। করোনা আক্রান্ত সন্দেহে যারা হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন, তাদের কারও দেহে এখন পর্যন্ত করোনার উপস্থিতি পাওয়া যায়নি। কিন্তু এর মধ্যেই শুরু হয়ে গেছে করোনা নিয়ে ব্যবসা। করোনার আতঙ্ক ছড়িয়ে নামী-দামী সব প্রতিষ্ঠান হাতিয়ে নিচ্ছে কাড়ি কাড়ি টাকা।

প্রথম আলোসহ বিভিন্ন সংবাদপত্রে গতকাল শুক্রবার ছাপানো হয়েছে স্যানিটাইজারের বিজ্ঞাপন। বিজ্ঞাপনগুলোতে প্রথমত, করোনা নিয়ে আতঙ্ক ছড়ানো হয়েছে। দ্বিতীয়ত, করোনার বিষয়ে ভুল তথ্যও দেওয়া হয়েছে। বিজ্ঞাপনগুলোতে বোঝানো হয়েছে যে, হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করলেই করোনা থেকে মুক্ত থাকা যাবে।

স্কয়ারের সেপনিলের বিজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, ‘কোনো পানির দরকার নেই, সাবানের দরকার নেই। সবসময় থাকুন ক্ষতিকর করোনা ভাইরাস থেকে মুক্ত।’ এই বিজ্ঞাপনে ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের কোনো অনুমোদনের পরোয়া করা হয়নি।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, করোনা প্রতিরোধে হ্যান্ড স্যানিটাইজার দরকারি একটি জিনিস। কিন্তু শুধুমাত্র স্যানিটাইজারই করোনা থেকে বাঁচিয়ে দেবে এটা ভাবা ভুল। করোনা থেকে বাঁচতে সবার আগে যে জিনিস্টা দরকার সেটা হলো হাঁচি কাশি দেওয়ার সময় সতর্ক থাকা। অন্যকেও সতর্ক করা।

সত্য, আধাসত্য মিলিয়ে বিজ্ঞাপন দিয়ে মানুষকে পণ্য কিনতে উৎসাহিত করাও এক ধরণের অপরাধ। দেশের প্রথম সারির সংবাদপত্রে যখন এ ধরণের বিজ্ঞাপন প্রকাশ পায়, তখন মানুষ খুব দ্রুতই বিজ্ঞাপনে দেওয়া তথ্যগুলো বিশ্বাস করে ফেলে। দেখা যাবে যে, স্যানিটাইজারের বিজ্ঞাপন দেখে সাধারণ মানুষ আতঙ্কিত হয়ে কষ্টের টাকায় স্যানিটাইজার কিনলো। কিন্তু করোনা থেকে বাঁচতে সবার আগে যে জিনিস্টা দরকার অর্থাৎ হাঁচি কাশি দেওয়ার সময় সতর্ক থাকা, সেটা সে ভুলেই গেল। মানুষ ধরেই নিল যে, স্যানিটাইজারই তাকে বাঁচিয়ে দেবে।

করোনার আতঙ্ক ছড়িয়ে ব্যবসার ফাঁদ পেতে বসা একটা ঘৃণ্য অপরাধ। দেশের প্রথম সারির সংবাদপত্রগুলো কোনো যাচাই বাছাই না করেই যেকোনো বিজ্ঞাপন কি করে ছাপিয়ে দিতে পারে, তা নিয়েও প্রশ্ন তুলছে সচেতন নাগরিকরা।

বাংলা ইনসাইডার/এএইচসি