ঢাকা, সোমবার, ২৬ অক্টোবর ২০২০, ১১ কার্তিক ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

মৃত্যুর মিছিলে কিছু চেনা মুখ

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০ মঙ্গলবার, ০৩:২৮ পিএম
মৃত্যুর মিছিলে কিছু চেনা মুখ

 

দেশে করোনা সংকটের ছয় মাস শেষ হয়েছে। এই দীর্ঘ সময়ে ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়েছে সাড়ে তিন লাখের বেশি মানুষ। আর মৃতের সংখ্যা ৫ হাজারের বেশি। আর মৃত্যুর এই তালিকায় রয়েছে রাষ্ট্রের সিনিয়র সিটিজেন ও বুদ্ধিজীবী থেকে শুরু করে ব্যবসায়ী, শিক্ষাবিদ ও নানা পেশার মানুষ। সেইসাথে সম্মুখ যুদ্ধে করোনার সাথে লড়তে গিয়ে প্রাণ হারিয়েছেন র‍্যাব, পুলিশ, চিকিৎসক, ব্যাংকার, সাংবাদিকসহ আরও বিভিন্ন পেশাজীবী। মরণব্যাধী করোনা কেড়ে নিয়েছে আমাদের দেশপ্রেমিক নাগরিক বরেণ্য ব্যক্তিত্ব ও বিশিষ্টজনদের।

ড. আনিসুজ্জামান

প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসে মৃত্যুবরণ করেন শিক্ষাবিদ, লেখক ও জাতীয় অধ্যাপক ড. আনিসুজ্জামান। কর্ম জীবনে গুরুত্বপূর্ণ অবদানের জন্য লাভ করেন একুশে পদক ও স্বাধীনতা পদক। তাঁর এমন চলে যাওয়াতে যেন এক অভিভাবক হারাল বাংলাদেশ।

মোহাম্মদ নাসিম

আওয়ামী লীগ নেতা ও সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম জ্বর-কাশিসহ ঢাকার একটি হাসপাতালে ভর্তি হলে ধরা পড়ে। এরপর সফল অস্ত্রোপচার ও তিনবার করোনা নেগেটিভ রিপোর্ট আসলেও সব চেষ্টা ব্যর্থ করে দিয়ে ১৩ জুন রাজপথের সংগ্রামী এই নেতা পাড়ি জমান না ফেরার দেশে।

শেখ আব্দুল্লাহ

১৩ জুন রাতে মারা সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায় ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ আব্দুল্লাহ। পরে ১৪ জুন সকালে পাওয়া রিপোর্টে জানা যায় তিনি করোনা আক্রান্ত ছিলেন।

বদরউদ্দিন কামরান

১৪ জুন করোনায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান সিলেট সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরান। তিনি আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নির্বাহী সদস্য ছিলেন।

সাবেক বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী আনোয়ারুল কবির

বিএনপি সরকারের আমলের সাবেক বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ প্রতিমন্ত্রী আনোয়ারুল কবির করোনা আক্রান্ত হয়ে গত ১০ মে সিএমএইচ এ মারা যান।

ভিসি ড. নাজমুল করিম

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্যুরিজম অ্যান্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট বিভাগের সাবেক অধ্যাপক ও ফারইস্ট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির উপাচার্য ড. নাজমুল করিম গত ৭ মে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন।

হাজী মকবুল হোসেন

করোনায় প্রাণ হারান আওয়ামী লীগ নেতা ও সাবেক সাংসদ হাজি মকবুল হোসেন। তিনি আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ছিলেন।

প্রিন্সিপাল নিলুফার মঞ্জুর

করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যান সানবিমস স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা শিক্ষাবিদ প্রিন্সিপাল নিলুফার মঞ্জুর। তিনি সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ও অ্যাপেক্স গ্রুপের চেয়ারম্যান সৈয়দ মঞ্জুর এলাহীর স্ত্রী।

মোরশেদুল আলম

প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারিয়েছেন বাংলাদেশের শীর্ষ ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান এস আলম গ্রুপের পরিচালক মোরশেদুল আলম।

ইমামুল কবীর শান্ত

করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা যান শান্ত-মারিয়াম ইউনিভার্সিটি ও সুন্দরবন কুরিয়ারের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ইমামুল কবীর শান্ত।

মুহাম্মাদ মোহাইমিনুল ইসলাম

১৪ জুলাই করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা যান প্রাক্তন নৌবাহিনী প্রধান রিয়ার এডমিরাল মুহাম্মাদ মোহাইমিনুল ইসলাম।

জামাল এম এ নাসের

করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা যান বেসরকারি জীবন বিমা কোম্পানি ন্যাশনাল লাইফ ইনস্যুরেন্সের মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) জামাল এম এ নাসের।

ডা. মো. মঈন উদ্দিন

করোনা সংকট শুরুর দিকে এপ্রিলের মাঝামাঝি সময় করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারান চিকিৎসক ডা. মো. মঈন উদ্দিন। চিকিৎসাসেবা দিতে গিয়ে মৃত্যুকে আলিঙ্গন করেন তিনি।

মর্তুজা বশির

গত ১৫ আগস্ট করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন স্বাধীনতা ও একুশে পদক প্রাপ্ত প্রখ্যাত চিত্রশিল্পী মুর্তজা বশীর।

তাছাড়া, করোনার প্রাণ হারান সাবেক অর্থ এবং বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী মেজর জেনারেল (অব) আনোয়ারুল কবির তালুকদার, দুদক পরিচালক জালাল সাইফুর রহমান, অতিরিক্ত সচিব তৌফিকুল আলম, রাজউকের সাবেক চেয়ারম্যান বজলুল করিম চৌধুরী, এনটিভি’র হেড অব প্রোগ্রাম আবৃত্তিকার মোস্তফা কামাল সৈয়দ, সাংবাদিক সুমন মাহমুদ, সময়ের আলোর নগর সম্পাদক হুমায়ুন কবীর খোকন, ক্রাইম রিপোর্টার আসলাম রহমান, মুজিব বাহিনীর কমান্ডার ইসহাক ভুইয়া, সময়ের আলোর মাহমুদুল হাকিম অপু, আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সাবেক সচিব আবু সালেহ শেখ মো. জহিরুল হক দুলাল, নৃত্যশিল্পী হাসান ইমাম, প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব আবদুল্লাহ আল মহসিন চৌধুরী, অভিনেতা সাদেক বাচ্চু, মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের ট্রাস্টি জিয়াউদ্দিন তারেক আলীসহ আরও অসংখ্য প্রিয়জনকে আমরা হারিয়েছি চলমান এই করোনা দুর্যোগে। আর সময়ের সাথে পাল্লা দিয়ে এই মৃত্যু যেন কেবল বেড়েই চলছে।