ঢাকা, মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০, ৫ কার্তিক ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

এ দেশের শীতে ভয়ংকর হবে না করোনা

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ বুধবার, ০৬:০০ পিএম
এ দেশের শীতে ভয়ংকর হবে না করোনা

 

বাংলাদেশে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ নিয়ে এখন আলোচনা তুঙ্গে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শীতে বাংলাদেশে করোনা সংক্রমন বৃদ্ধির শঙ্কা করেছেন। এজন্য এখন থেকেই তিনি প্রস্তুতি নেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। এ নিয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এবং মন্ত্রীপরিষদ বিভাগ প্রস্তুতিমূলক সভাও করেছেন। ইউরোপ জুড়ে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ দেখা দিয়েছে।

এর ফলে যুক্তরাজ্য সহ ইউরোপের বেশ কটি রাষ্ট্র নতুন করে বিধি নিষেধ আরোপ করেছে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, শীতে করোনার প্রকোপ বাড়ে। কিন্তু শীতের সঙ্গে করোনার সম্পর্ক নিয়ে এখন পর্যন্ত কোন বিজ্ঞানভিত্তিক গবেষণা হয়নি। শীতে করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধির শঙ্কাটি আসলে তথ্য-উপাত্ত ভিত্তিক একটি ধারণা গত বছরের ডিসেম্বর থেকে শুরু হয়। এই রহস্যময় ভাইরাসটি বিভিন্ন দেশে ভয়ংকর হয়ে উঠেছিল শীতেই। আবার শীত চলে যাওয়ার পর এই ভাইরাসটি দূর্বল হয়ে পরে।

বাংলাদেশে করোনা সংক্রমণ প্রথম ধরা পরে গত ৮ মার্চ। বাংলাদেশে করোনার বিস্তার ব্যাপক ছড়ালেও এটি কখনো ভয়ংকর রূপ ধারণ করেনি। বরং কম মৃত্যু এবং মৃদু উপসর্গ থাকার কারণে দ্রুতই বাংলাদেশের মানুষ করোনা আতঙ্ক ঝেড়ে ফেলে। এপ্রিলের পর থেকেই করোনার চেয়েও জীবিকার যুদ্ধ মানুষের কাছে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে ওঠে। এরপর স্বাস্থ্য বিধি, সামাজিক দূরত্ব এবং বিধি-নিষেধের তোয়াক্কা না করে মানুষ বেরিয়ে পরে। স্বাস্থ্য বিধি না মানা শর্তেও বাংলাদেশ করোনা প্রাণঘাতী হয়ে ওঠে নি। ২০০ দিনে করোনায় মারা গেছে ৫ হাজারের বেশী মানুষ।

প্রথম দিকে মানুষ হাসপাতালমুখী হলেও আস্তে আস্তে ঘরে চিকিৎসাতেই বেশি আগ্রহী হয়ে ওঠে। এর মধ্যেই বাংলাদেশ আপনা আপনি করোনার হার একটু করে কমতে থাকে। এখন বিশেষজ্ঞরা দ্বিতীয় ওয়েভের কথা বলছেন। আজ স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক, করোনার দ্বিতীয় ওয়েভ শুরু হয়েছে বলে গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, নভেম্বর-জানুয়ারি বাংলাদেশে শীতকাল। এই শীতে করোনা দাপট দেখাতে পারে। হয়ে উঠতে পারে প্রাণঘাতী। অবশ্য এর আগেও করোনা সম্পর্কে বিশেষজ্ঞরা নানা শঙ্কার কথা বলেছিলেন। যদিও সেই শঙ্কাগুলো শেষ পর্যন্ত বাস্তবে রূপায়িত হয়নি।

অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় এবং জন হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বাংলাদেশে যে শীত পরে, তাতে উদ্বিগ্ন হবার কোন কারণ নেই। প্রচন্ড শীতে মানুষের ফুসফুসের কর্মক্ষমতা কমে যায়। তাছাড়া, শীতে ভাইরাসটি স্বয়ংক্রিয়ভাবে শক্তিশালী হয়। বাংলাদেশে শীতকালে গড় তাপমাত্রা ১৭ থেকে ২০ ডিগ্রী সেলসিয়াস। এই শীতে করোনা ভয়ংকর হবার সম্ভাবনা কম বলেই মনে করছেন ঐ বিশেষজ্ঞরা। অবশ্য শীতকালে কিছুদিন বাংলাদেশে তাপমাত্রা কিছুটা কমে। এ রকম কয়েক দিন সংক্রমণের প্রকোপ বাড়তে পারে।