ঢাকা, রোববার, ২৫ অক্টোবর ২০২০, ১০ কার্তিক ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

চট্টগ্রামে ৪৫ সেকেন্ডে মোটরসাইকেল চুরির হিড়িক, ভিডিও ফুটেজ পেয়েও অসহায় পুলিশ

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ মঙ্গলবার, ১২:২৮ পিএম
চট্টগ্রামে ৪৫ সেকেন্ডে মোটরসাইকেল চুরির হিড়িক, ভিডিও ফুটেজ পেয়েও অসহায় পুলিশ

 

চট্টগ্রাম নগরীর কোতোয়ালী থানা এলাকা মোটরসাইকেল চোর চক্রের অভয়ারণ্যে পরিণত হয়েছে। গত এক মাসে এ এলাকা থেকে চুরি হয়েছে  ৫টি মোটরসাইকেল। ৪৫ সেকেন্ডের মধ্যেই এসব মোটরসাইকেল নিয়ে যাচ্ছে চোরচক্র। 

গত ৩৫ দিনে একটি মোটরসাইকেলও উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ৷ আটক হয়নি কোনো মোটরসাইকেল চোর। অথচ চুরির ঘটনার ভিডিও ফুটেজও রয়েছে পুলিশের হাতে। উল্টো মোটরসাইকেল উদ্ধারের নামে পুলিশের সোর্স পরিচয়ে চাঁদা দাবির অভিযোগও উঠেছে ভুক্তভোগীদের কাছ থেকে।

জানা গেছে, আদালত এলাকা থেকে গত ১৪ সেপ্টেম্বর ইমরান হোসাইন চৌধুরী নামে এক আইনজীবীর মোটরসাইকেল চুরি হয়। এ ব্যাপারে কোতোয়ালী থানায় অভিযোগ করেন ওই আইনজীবী। ভিডিও ফুটেজে চোরকে দেখা গেলেও উদ্ধার হয়নি মোটরসাইকেল, আটক হয়নি চোর। 

এ ঘটনার চার দিন পর গত ১৮ সেপ্টেম্বর জুমার নামাজের পর চৈতন্যগলি কবরস্থান এলাকা থেকে নিউ মার্কেটের ব্যবসায়ী মোহাম্মদ বদরুজ্জামানের মোটরসাইকেল চুরি হয়। এ ঘটনায় কোতোয়ালী থানায় সাধারণ ডায়েরি দায়ের করা হয়। গত ১১ সেপ্টেম্বরও জুমার নামাজের পর ওই কবরস্থানে জেয়ারত করতে আসা এক ব্যক্তির মোটরসাইকেল চুরি হয়। গত ৬ সেপ্টেম্বর নগরীর সিআরবি এলাকা থেকে এক ব্যক্তির মোটরসাইকেল চুরি হয়।

এর আগে ২৪ আগস্ট আদালতের নিচে জমজম হোটেলের সামনে থেকে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব ও চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের সদস্য দৈনিক চট্টগ্রাম প্রতিদিনের সিনিয়র  সাংবাদিক শামসুল হুদা মিন্টুর মোটরসাইকেলও চুরি হয়। থানায় অভিযোগ দায়েরের পর ঘটনাস্থলের ভিডিও ফুটেজ সংগ্রহ করে পুলিশ। কিন্তু মোটরসাইকেলটি উদ্ধার হয়নি ৩৫ দিনেও।

এদিকে গত ২৬ সেপ্টেম্বর বিকেল ৩টার দিকে সাংবাদিক মিন্টুর মুঠোফোনে ০১৭২৩৯৯৮৪১৯ নম্বর থেকে কল দিয়ে এক ব্যক্তি নিজেকে পুলিশের সোর্স বলে পরিচয় দেয়। কথিত সোর্স মিন্টুর চুরি হওয়া মোটরসাইকেলটি তাদের সিন্ডিকেটের হাতে থাকার কথা জানায়। তা উদ্ধার করে দেওয়ার জন্য মিন্টুর থেকে `সোর্সমানি` হিসেবে ১৫ হাজার টাকা দাবি করে। ৩০ মিনিটের মধ্যে ০১৭৮১৯৬০৬৬৬ নম্বরে বিকাশ করে দিতে বলে। বিকাশে টাকা পরিশোধ করে নিউ মার্কেটের পার্কিং থেকে চুরি যাওয়া মোটরসাইকেলটি নিয়ে যাওয়ার কথা জানায়। কথিত ওই সোর্স  কোতোয়ালী থানায় অভিযোগের হুবহু বিবরণও দেন সাংবাদিক মিন্টুর মুঠোফোনে। বিষয়টি থানা পুলিশকে জানানো হলেও মোটরসাইকেল চুরির ঘটনায় জড়িতদের ধরতে পুলিশের সহায়তা পাচ্ছে না এই ভুক্তভোগী।

কোতোয়ালী থানার ওসি মোহাম্মদ মহসিন এ বিষয়ে বলেন, `সোর্স পরিচয়ে ফোন করার সঙ্গে কোন একটি প্রতারকচক্র জড়িত। এছাড়া কোতোয়ালী পুলিশ অভিযান চালিয়ে মিরসরাই জোরারগঞ্জ এলাকা থেকে মোটরসাইকেল চোর সিন্ডিকেটের জড়িতদের গ্রেপ্তার করেছিল।  কিন্তু পরে জানলাম ১৫ থেকে ২০ দিনের মধ্যে তারা জামিনে বেরিয়ে এসেছে।`