ঢাকা, রোববার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২০, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

জেলা সদরে বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠায় প্রধানমন্ত্রীই শেষ আশ্রয়

বাংলাদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত: ২৫ অক্টোবর ২০২০ রবিবার, ০৮:৪৩ পিএম
জেলা সদরে বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠায় প্রধানমন্ত্রীই শেষ আশ্রয়

সুনামগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য ও বিরোধীদলের হুইপ অ্যাডভোকেট পীর ফজলুর রহমান মিসবাহ বলেছেন, হাওর অধ্যুষিত প্রান্তিক জেলা সুনামগঞ্জের মানুষের জন্য প্রধানমন্ত্রী মেডিকেল কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়-সহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান উপহার দিচ্ছেন। কিন্তু আমরা দুঃখের সাথে লক্ষ্য করছি যে সবগুলো প্রতিষ্ঠানই দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার শান্তিগঞ্জে স্থাপনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। জেলা সদরকে বঞ্চিত করে দুই কিলোমিটার আয়তনের মধ্যে এতগুলো প্রতিষ্ঠান স্থাপনের উদ্যোগ রহস্যজনক।

মন্ত্রীসভায় অনুমোদিত সুনামগঞ্জ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার শন্তিগঞ্জের পরিবর্তে জেলা সদরে স্থাপনের দাবিতে রোববার (২৫ অক্টোবর) সকালে শহরের ট্রাফিক পয়েন্টে সদর আসনের এমপি মিসবাহ মানব বন্ধনের ডাক দিলে স্বতস্ফূর্ত জনগণের অংশগ্রহনে বিশাল জনসভায় পরিণত হয়।

সেখানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় পীর ফজলুর রহমান মিসবাহ এমপি বলেন, আপনাদের সন্তান ও প্রতিনিধি হিসেবে আমি কখনো রাজপথ ও সংসদে বোবা হয়ে থাকিনি, থাকবো না। গণমানুষের প্রাণের দাবি নিয়ে সংসদে সংশোধনী আনবো। ‘সুনামগঞ্জবাসীর’ ব্যানারে এ কর্মসূচি পালিত হয়।

দাবির সাথে একাত্মতা জানাতে বিভিন্ন স্থান থেকে মানববন্ধনে বিভিন্ন শ্রেণিপেশার  হাজারো মানুষ খন্ডখন্ড মিছিল নিয়ে যোগ দেন। এক পর্যায়ে মানবন্ধন জনসমাবেশে রূপ নেয়। প্রতিবাদী মানুষের পদভারে ভরে উঠে গোটা ট্রাফিক পয়েন্ট থেকে তিনদিকের জনপথ। যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায় জনস্রোতে।

মানববন্ধনে অন্যান্যের মাঝে উপস্থিত ছিলেন, হাওর আন্দোলন নেতা মুক্তিযোদ্ধা আবু সুফিয়ান সুফিয়ান, সুনামগঞ্জ সরকারি কলেজের সাবেক ভিপি সাইফুল ইসলাম সমছু, সাবেক প্যানেল ময়ের মনির উদ্দিন মনির, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ জুবের আহমদ অপু, জাপা নেতা আব্দুর রশিদ, মানবাধীকার আন্দোলন  নেতা ফজলুল হক প্রমুখ।