ঢাকা, শনিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২০, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

‘জঙ্গীবাদে জড়িয়ে পড়ছে বিএনপি’

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২১ নভেম্বর ২০২০ শনিবার, ০৮:৫৯ পিএম
‘জঙ্গীবাদে জড়িয়ে পড়ছে বিএনপি’

 

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নসহ একাধিক পশ্চিমা দেশের কূটনীতিকরা মনে করছেন, বাংলাদেশে জঙ্গিবাদের সঙ্গে জড়িয়ে পড়ছে অন্যতম প্রধান রাজনৈতিক দল বিএনপি। দলটি সরকারকে হঠানোর জন্য জঙ্গীদের সঙ্গে হাত মিলিয়েছে এমন তথ্য দিচ্ছেন এসমস্ত দেশের কূটনীতিকরা। এ সমস্ত দেশের কূটনীতিকদের গোপন আনঅফিসিয়াল নোট থেকে এসব তথ্য পাওয়া গেছে। জানা গেছে,সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশের পরিস্থিতি নিয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস ওয়াশিংটনের জন্য যে আনঅফিসিয়াল নোট তৈরি করেছে তাতে বাংলাদেশের রাজনীতিতে নতুন মেরুকরণের কথা বেলা হয়েছে।

প্রধান বিরোধী দল বিএনপি এখন দক্ষিণপন্থী উগ্র মৌলবাদী গোষ্ঠীগুলোর সঙ্গে গোপনে হাত মিলিয়েছে। তাদেরকে সামনে রেখে দেশে একটি আন্দোলনের পরিস্থিতি তৈরি করতে চায়। আর এজন্যই বাংলাদেশ আবারও জঙ্গিবাদের উত্থান ঘটছে বলে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস কর্তৃক প্রণিত ওই প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ওই  প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, হলিআর্টিসানের ঘটনার পরপরই জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে সরকার কঠোর অবস্থান করে এবং সাঁড়াশি অভিযানের কারণে জঙ্গীদের নেটওয়ার্ক এবং কর্মক্ষমতা লণ্ডভণ্ড হয়ে যায়। জঙ্গি সংগঠনগুলো অধিকাংশই নিস্ক্রিয় হয়ে পড়ে। এই জঙ্গী সংগঠনগুলোকে আবার সক্রিয় হিসেবে দেখা যাচ্ছে, তারা আবার নতুন করে সক্রিয় হচ্ছেন। তাদের অর্থায়ন করা হচ্ছে এই অর্থায়ন পেয়ে বড় রাজনৈতিক দলের ছায়াতলে থাকতে পেয়ে তারা আবার নতুন করে সক্রিয় হচ্ছেন। সাম্প্রতিক সময়ে বিভিন্ন স্থানে জঙ্গি আস্তানায় আবার অভিযানে বিপুল অস্ত্র, গোলাবারুদ পাওয়া যাচ্ছে।

মার্কিন দূতাবাস বাংলাদেশের বিভিন্ন গণমাধ্যমে উদৃত করে বলেছেন, যে সমস্ত জঙ্গি সংগঠনগুলোর উত্থানের পেছনে রয়েছে প্রধান রাজনৈতিক দলগুলোর মদতে এবং পৃষ্ঠপোষকতা। গত ১ বছর ধরে বিএনপির রাজনীতিতে নানারকম সংকটে ভুগছে এবং সরকারের বিরুদ্ধে গণতান্ত্রিক যৌক্তিক আন্দোলন করার শক্তি ও সমর্থন তারা হারিয়ে ফেলেছে। মার্কিন দূতাবাসের প্রতিবেদন অনুযায়ী এসময় বিএনপি একটি সেকুলার আহবায়ক করে ঐক্যফ্রন্ট করেছিল। কিন্তু -জামায়াতের সঙ্গে সমান্তারাল সম্পর্ক রাখার কারণে ওই জোট ধোপে টিকেনি। ফলে এখন বিএনপি আবারও দক্ষিণপন্থী রাজনৈতিক শক্তিগুলোর দিকে হাত বাড়াচ্ছে। আর বিএনপি মনে করছে যে বাংলাদেশ যদি একটি অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি করা যায়, তাহলে সরকারকে চাপে ফেলা যাবে। আর এরকম পরিস্থিতি তৈরি করার জন্য জঙ্গি সংগঠনগুলো হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহৃত হতে পারে। তবে মার্কিন দূতাবাস আশঙ্কা করছে, এর ফলে  বাংলাদেশে আবার মৌলবাদের উত্থান ঘটছে।

বিশ্বে বাংলাদেশের যে অসম্প্রদায়িক এবং সেকুলার ইমেজ রয়েছে তা ক্ষুন্ন হতে পারে। বিশেষ করে হলি আর্টিসানের পর বাংলাদেশ যেভাবে জঙ্গিবাদ দমনে সারা বিশ্বে একটি রোল মডেল দেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল তা চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে পারে বলে মার্কিন দূতাবাস আশঙ্কা করছেন। একইভাবে ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন সাম্প্রতিক সময়ে ফ্রান্সের বিরুদ্ধে বাংলাদেশের মৌলবাদীদের আস্ফালন এবং ভাস্কর্য বিরোধী অবস্থানকে ক্রমশ্য উদ্বেগজনক হয়ে উঠছে বলে উল্লেখ করেছে। ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে যে, হঠাৎ করেই বাংলাদেশের জঙ্গিবাদীরা সাহস পাচ্ছে, শক্তিপাচ্ছে এবং অর্থ পাচ্ছে।  মধ্যপ্রাচ্যের এই শক্তি অর্থ মন্ত্রণালয় থেকে জামিন দেয়া হচ্ছে বলে তারা আশা করছেন তাঁরা মনে করছেন যে বাংলাদেশের কিছু এই শক্তি, অর্থ মুল ধারার রাজনৈতিক দলগুলো থেকে দেয়া হচ্ছে বলে তারা আশংঙ্কা করছে। তারা মনে করছেন বাংলাদেশের দক্ষিণপন্থী ধারার রাজনীতির প্রধান পৃষ্ঠপোষক একটি প্রধান দল এই জঙ্গীবাদের উত্থানের পিছনে কলকাঠি নাড়াচ্ছেন। এটি যদি হয় তাহলে বাংলাদেশে সামনের দিনগুলোতে একটি অসনি সংকেতের ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে।