ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২২ এপ্রিল ২০২১, ৯ বৈশাখ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

ড্যাশ কিউ-৮ বিমান ‘ধ্রুবতারা’ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২৭ ডিসেম্বর ২০২০ রবিবার, ১২:০৪ পিএম
ড্যাশ কিউ-৮ বিমান ‘ধ্রুবতারা’ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

দেশের বিমান বহরে যোগ হল আরও একটি অত্যাধুনিক ড্যাশ কিউ-৮-৪০০ সিরিজের বিমান। রোববার গণভবন থেকে ভার্চুয়্যাল কনফারেন্সের মাধ্যমে ‘ধ্রুবতারা’ নামের বিমানটি উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সেসময় তিনি উল্লেখ করে জানান, বিমান খাতে দেশের যোগাযোগ বৃদ্ধির জন্যই অত্যাধুনিক বিমান নিজেদের বহরে যোগ করছে সরকার যা বিগত কোন সরকার করে নাই। 

রোববার বেলা ১১টার দিকে সর্বাধুনিক প্রযুক্তি সংবলিত ড্যাশ ৮-৪০০ মডেলের নতুন প্লেন ধ্রুবতারার উদ্বোধন করেন তিনি। এটি নিয়ে বিমানের বহরে উড়োজাহাজের সংখ্যা এখন বেড়ে দাঁড়াল ১৯টি। গণভবন থেকে ভার্চুয়্যাল কনফারেন্সের মাধ্যমে যুক্ত হয়ে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের ভিভিআইপি টার্মিনালে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অংশ নেন প্রধানমন্ত্রী। একই অনুষ্ঠানে আরও বেশ কিছু উন্নয়ন প্রকল্প উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী। প্রকল্পগুলো হলো- ২০টি ফায়ার স্টেশন, ৬টি আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস, ১টি কেন্দ্রীয় নারী কারাগার ও একটি এলপিজি স্টেশন। 

দেশের আভ্যন্তরীণ ও আর্ন্তজাতিক যোগাযোগের উন্নয়নে বিমান খাতে সরকার সবসময় গুরাত্বারোপ করে আসছে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ২১ বছর স্বাধীনতা বিরোধীরা ক্ষমতায় ছিল অথচ বিমান খাতে তারা কোন উন্নয়ন করেনি। বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর অত্যাধুনিক ড্রিমলাইনারসহ বেশ কয়েকটি আধুনিক বিমান আমাদের বহরে যুক্ত হয়েছে।

বিমানবন্দরের আধুনিকায়নেও কাজ করছে সরকার বলে জানান তিনি। উল্লেখ করেন কক্সবাজার, রাহশাহী বিমানবন্দরসহ শাহজালাল বিমান বন্দরের ৩য় টার্মিনালের উন্নয়ন কার্যক্রমের।

উল্লেখ্য যে, ধ্রুবতারাসহ বিমানের উড়োজাহাজ বহরে ইতোমধ্যে যুক্ত হওয়া প্রতিটি উড়োজাহাজের নামকরণ করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তর থেকে, হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরের ভিআইপি লাউন্জ থেকে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী  মো. মাহবুব আলী ভিডিও কনফারেন্সে বক্তব্য দেন। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন প্রধানমন্ত্রীর মূখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস।

৭৪ আসনবিশিষ্ট কানাডার প্রখ্যাত নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ডি হ্যাভিল্যান্ড নির্মিত ড্যাশ ৮-৪০০ উড়োজাহাজটি পরিবেশবান্ধব ও অত্যাধুনিক সুযোগ-সুবিধা সমৃদ্ধ। এ উড়োজাহাজের এইইপিএ (হাই-ইফিশিয়েন্সি পার্টিকুলেট এয়ার) ফিল্টার প্রযুক্তি মাত্র ৪ মিনিটেই ব্যাকটেরিয়া, ভাইরাসসহ অন্য জীবাণু ধ্বংসের মাধ্যমে উড়োজাহাজের অভ্যন্তরের বাতাসকে করে সম্পূর্ণ বিশুদ্ধ, যা যাত্রীদের করবে অধিকতর সতেজ ও নিরাপদ। এ ছাড়া এ উড়োজাহাজে রয়েছে পর্যাপ্ত লেগস্পেস, এলইডি লাইটিং ও প্রশস্ত জানালা, যে কারণে ভ্রমণ হয়ে উঠবে অধিক আরামদায়ক।

বাংলাদেশ ও কানাডা সরকারের মধ্যে জি-টু-জি ভিত্তিতে কেনা ৩টি উড়োজাহাজের মধ্যে দ্বিতীয় ও তৃতীয় ড্যাশ ৮-৪০০ উড়োজাহাজ দুটি যথাক্রমে আগামী জানুয়ারি ও ফেব্রুয়ারিতে বিমান বহরে যুক্ত হবে। নতুন উড়োজাহাজ বহরে সংযোজনের মাধ্যমে অভ্যন্তরীণ ও স্বল্প দূরত্বের আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক গন্তব্যসমূহে বিমানের সাপ্তাহিক ফ্রিকোয়েন্সি বৃদ্ধি করা হবে।