ঢাকা, বুধবার, ২০ জানুয়ারি ২০২১, ৭ মাঘ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

তারেক বললো ‘হাউ ডিয়ার ইউ আর’

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১৩ জানুয়ারি ২০২১ বুধবার, ০৬:০২ পিএম
তারেক বললো ‘হাউ ডিয়ার ইউ আর’

তত্বাবধায়ক সরকার নিয়ে জেনারেল মঈনের একটা পরিকল্পনা ছিলোই। ড: মুহম্মদ ইউনূসকে তত্বাবধায়ক সরকার প্রধান করার বিষয়টি নিয়ে সেনা সদরে গুরুত্বপূর্ণ ঊর্ধ্বতন সামরিক কর্মকর্তাদের নিয়ে বৈঠক করলেন জেনারেল মঈন ইউ আহমেদ।

সেখানে তিনি ‘অপারেশন প্লান’ ব্রিফ করলেন। শুরুতেই মঈন বললেন, আমাদের প্রথমে একজন তত্বাবধায়ক সরকার প্রধান ঠিক করতে হবে। এমন একজনকে তত্বাবধায়ক প্রধান করতে হবে, যিনি সকলের কাছে গ্রহনযোগ্য এবং ইন্টারন্যাশনাল রেপুটেশন আছে।

একজন সেনা কর্মকর্তা জানতে চাইলেন, তিনি (মঈন) কাউকে ভেবেছেন কি? উত্তরে মঈন বললেন ‘ড: মুহম্মদ ইউনুস।’ সকলেই একবাক্য বললেন ‘এর চেয়ে ভালো প্রস্তাব হয় না। মঈন বললেন, আমি আজ রাতেই তার সঙ্গে কথা বলবো’। অপরাশেন প্লানের আলোচনায় দেখা গেল, অধিকাংশ জেনারেলই তারেকের উপর ক্ষুদ্ধ। একজন জেনারেল বললেন ‘তারেক হলো দুর্নীতি এবং অপকর্মের প্রতীক। আমাদের অভিযানে যদি তাকে বিহাইন্ড দ্যা বার (আটক করা) না করা হয়, তাহরে শুদ্ধি অভিযানই প্রশ্ন বিদ্ধ হবে।’ আরেকজন বললেন ‘হি (তারেক) ইজ দ্যা ক্রিমিনাল। বাবা ও মায়ের ইমেজ খারাপ করেছে এই ছোকড়া।’ মঈন মাসউদ উদ্দিনের দিকে তাকালেন। কিন্তু মাসউদ্দিন তারেকের বিরুদ্ধে সেনা কর্মকর্তাদের ক্ষোভকে যেন প্রশ্রয়ই দিরেন। পরদিন পর্যন্ত বৈঠক মুলতবী করে মঈন দুটি কাজ করলেন।

প্রথমটি তিনি আবার বেগম জিয়ার সংগে যোগাযোগ করলেন। তারেক জিয়াকে নিয়ে সেনাবাহিনীর ক্ষোভ এবং আপত্তি জানালেন। জেনারেল মঈন বললেন ‘ম্যাডাম, তারেক সাহেব আপাতত: দেশের বাইরে গেলে কোন ঝামেলা হয় না।’ বেগম জিয়া বললেন, তুমিও ওর সংগে কথা বলো।’ এরপর বেগম জিয়াই ফোন তুলে দিলেন তারেককে। প্রস্তাব শুনে তারেক ক্ষুদ্ধ হয়ে উঠলো। বললো ‘হাউ ডিয়ার ইউ। আপনাকে কিভাবে সেনাপ্রধান করেছি, তা মনে রাখা উচিত। কারা এসব বলছেন, তাদের নাম দিন, সব গুলোকে বরখাস্ত করবো।’ মঈন ফোন রাখলেন। তারেকের কথায় অপমানিত হলেন। তখনই তারেকের ভাগ্য যে নির্ধারিত হয়ে গেল। এরপর মঈন ফোন করলেন ড: ইউনূসকে। ড: ইউনূস ঐ প্রস্তাব গ্রহণ করলেন না। বললেন, এই অল্প সময়ে কিছুই করা যাবে না। ড: ইউনূসই পরামর্শ দিলেন ড: ফখরুদ্দিনকে তত্বাবধায়ক সরকার প্রধান করার।