ঢাকা, শুক্রবার, ০৭ মে ২০২১, ২৩ বৈশাখ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

আবার লকডাউন; আমলাতন্ত্রের পুরনো ভুল

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৩ এপ্রিল ২০২১ শনিবার, ০৬:০০ পিএম
আবার লকডাউন; আমলাতন্ত্রের পুরনো ভুল

হঠাৎ করেই সরকার লকডাউনের ঘোষণা দিলো। আগামী সোমবার থেকে এই লকডাউন শুরু হবে। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের আজ সকালে গণমাধ্যমকে এই তথ্য জানান। ওবায়দুল কাদের এটাও বলেছেন, প্রয়োজনে লকডাউনের সময় বাড়ানো হবে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বিশেষজ্ঞ মতামত ছাড়া বৈজ্ঞানিক পরিকল্পনা ব্যতিরেকে এধরনের লকডাউন জনগণকে নতুন সংকটে ফেলবে। বিশেষ করে আগাম ঘোষণা দিয়ে লকডাউনের ফলে আবার ঢাকা ছেড়ে বিপুল সংখ্যক মানুষ গ্রামে চলে যেতে পারে। এর ফলে বড় মহানগরীগুলো থেকে করোনা ছড়িয়ে পরতে পারে গোটা দেশে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, আগাম ঘোষণা দিয়ে এভাবে লকডাউন দেয়া হয় না। সাধারণত লকডাউনের ঘোষণার সাথে সাথে তা কার্যকর করা হয়। যেন মানুষ স্থানান্তরিত না হয়, কিন্তু এধরনের লকডাউনের ঘোষণার সাথে সাথে মানুষ একস্থান থেকে অন্যস্থানে ছুটবে। এখন পর্যন্ত লকডাউনের ব্যাপারে যে তথ্য পাওয়া গেছে তাতে বলা হয়েছে, শিল্প কলকারখানা খোলা থাকবে। সেক্ষেত্রে বিপুল সংখ্যক গার্মেন্টস কর্মী সহ বিভিন্ন কলকারখানার শ্রমিকরা কর্মক্ষেত্রে যাবার জন্য ছোটাছুটি করবে। ফলে লকডাউন এক অর্থে অর্থহীন হয়ে পরবে।

এবারের লকডাউন দেয়া হচ্ছে মাসের শুরুতে। বৃহস্পতিবার ছিলো এ মাসের প্রথম কর্মদিবস। মাসের তৃতীয় কর্মদিবস থেকে শুরু হচ্ছে এই লকডাউন। অধিকাংশ বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে বেতন হয় মাসের ৭ থেকে ১০ তারিখের মধ্যে। এর ফলে এধরনের লকডাউনে বিপদে পরবে সিংহভাগ নিম্ন ও মধ্য আয়ের মানুষ। তারা প্রচণ্ড আর্থিক কষ্টে পরবে।

আগামী ১৪ বা ১৫ এপ্রিল থেকে শুরু হচ্ছে রমজান। রোজা এবং ঈদকে সামনে রেখে চলে সবচেয়ে বড় অর্থনৈতিক কার্যক্রম। ফুটপাত থেকে শুরু করে ছোটখাটো দোকানদারদের বছরের এই সময়টাতেই প্রধানত আয় হয়। গত এক বছর ধরে এই ব্যবসায়ীরা চরম সংকটের মধ্যে দিয়ে দিন কাটাচ্ছে। এখন রোজার আগে লকডাউন এসব ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের সংকটে ফেলবে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, লকডাউনের ক্ষেত্রে স্তরে স্তরে বিধিনিষেধ আরোপ ছিলো যৌক্তিক। যেভাবে যুক্তরাজ্য টিআর পদ্ধতির মাধ্যমে বিধিনিষেধ জারী করেছিল। ঠিক তেমনি বাংলাদেশে সবকিছু বন্ধ না করে যদি ধাপে ধাপে বিধিনিষেধ আরোপ করা হতো সেক্ষেত্রে অর্থনীতি, জীবন-জীবিকা ঠিক রেখেও করোনা মোকাবেলা করা যেতো।

দেখা যাচ্ছে, করোনা মোকাবেলায় বারবার আমলাতান্ত্রিক পথে হাটা হচ্ছে। বিজ্ঞানভিত্তিক পথে না হেটে পুরনো ভুলই হচ্ছে বারবার।


বিষয়: লকডাউন