ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৮, ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

রোহিঙ্গা সংকটে বাংলাদেশের পাশে মালয়েশিয়া, তুরস্ক

নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৬ অক্টোবর ২০১৭ সোমবার, ০২:০৫ পিএম
রোহিঙ্গা সংকটে বাংলাদেশের পাশে মালয়েশিয়া, তুরস্ক

মিয়ানমারে সহিংসতার শিকার হয়ে বাংলাদেশে আসা লাখ লাখ রোহিঙ্গাদের প্রতি দিন দিন সংহতি বাড়ছে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের। সহায়-সম্বল হারা রোহিঙ্গাদের সর্বাত্মক সাহায্য দিতে হাত বাড়িয়েছে মালয়েশিয়া, তুরস্কসহ কয়েকটি দেশ। রোহিঙ্গা সংকটে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে সহযোগিতা করছে রেডক্রসসহ অনেক আন্তর্জাতিক সংস্থা। আন্তর্জাতিক পর্যায় থেকে রাখাইন রাজ্যে সহিংসতা বন্ধে মিয়ানমারের প্রতি আহ্বানও জানানো হয়েছে।

রোহিঙ্গা সংকটে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সংহতির ধারাবাহিকতায় সম্প্রতি বাংলাদেশে এসেছেন মালয়েশিয়ার উপ প্রধানমন্ত্রী আহমাদ জাহিদ হামিদি। আজ সোমবার সকালে কক্সবাজারে রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন করতে ঢাকা থেকে কক্সবাজারের উদ্দেশে রওনা হন তিনি। গতকাল ১৫ অক্টোবর সন্ধ্যায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাহমুদ আলীর সঙ্গে রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করেন তিনি।

বৈঠকে শেষে আহমাদ জাহিদ হামিদি বলেন, মিয়ানমার থেকে প্রাণভয়ে পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের মধ্যে তিন লাখ লোকের স্বাস্থ্য সেবার জন্য একটি ফিল্ড হসপিটাল বানিয়ে দেবে মালয়েশিয়া। ২-৩ মাসের মধ্যে এই হাসপাতাল তৈরি করে দেওয়া হবে। এছাড়া বিভিন্নভাবে ত্রাণসামগ্রীও পাঠিয়েছে দেশটি।

এর আগে, তুরস্কের ফার্স্টলেডি এমিনি এরদোয়ান কক্সবাজারের উখিয়ায় কুতুপালং রোহিঙ্গা শরণার্থী ক্যাম্প পরিদর্শন করে গেছেন। সে সময় তিনি বলেছেন, বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের পাশে থাকবে তুরস্ক সরকার। একই সঙ্গে রোহিঙ্গাদের সব রকম সহযোগিতাও করবে। এছাড়া এক লাখ রোহিঙ্গাদের জন্য আশ্রয় কেন্দ্র এবং ১০ হাজার প্যাকেটকৃত ত্রাণ সামগ্রীও দেওয়ার কথা বলেছেন তিনি।

বিভিন্নভাবে রোহিঙ্গা শরণার্থীদের সাহায্যে এগিয়ে আসছে অনেক দেশ। রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর জন্য কুয়েত ১৫ লাখ ডলার সমপরিমাণের জরুরি ত্রাণ পাঠাচ্ছে। এর মধ্যে রয়েছে খাদ্য, পোশাক এবং তাঁবু। রোহিঙ্গাদের জন্য ৫০ লাখ ডলার সাহায্য দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে অস্ট্রেলিয়া, পাশাপাশি তারা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা এবং বেসামরিক জানমাল রক্ষা করার জন্য মিয়ানমার সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে। আবার ডেনমার্ক সরকার বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের জন্য সাড়ে ২৫ কোটি টাকার বেশি পরিমাণ অর্থ বরাদ্দ করেছে।

এদিকে, মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে সহিংসতার দেড় মাসের মতো পেরিয়ে গেলেও এখনো রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে আসা থামছে না। মাঝে কয়েকদিন ধীরগতির পর আবার নতুন করে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশের জন্য সীমান্তে অপেক্ষমান অবস্থায় আছে হাজার হাজার রোহিঙ্গা। আজ সোমবার ভোর থেকে কক্সবাজারের উখিয়ার আঞ্জুমানপাড়া সীমান্ত দিয়ে হাজার হাজার রোহিঙ্গা বাংলাদেশে প্রবেশ করছে। ভোর থেকে এখন পর্যন্ত ১৫ হাজারেরও মতো রোহিঙ্গা বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ করেছে। এছাড়া বাংলাদেশে সীমান্তে প্রবেশের অপেক্ষায় আছে আরও পাঁচ হাজারের মতো রোহিঙ্গা।

নিপীড়িত এই রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়ে বাংলাদেশ যে মানবিকতার স্বাক্ষর রেখেছে তা বিশ্বব্যাপী প্রশংসিত হলেও জনবহুল ও সীমিত সম্পদের এই দেশের পক্ষে এই বিপুলসংখ্যক শরণার্থীর উপস্থিতি বোঝাস্বরূপ। এক্ষেত্রে বাংলাদেশ শুধু অর্থনৈতিকভাবেই নয়, সামাজিক, পরিবেশগত, নিরাপত্তাসহ নানাভাবে ঝুঁকির মুখে পড়েছে।

 

বাংলা ইনসাইডার/আরএ/জেডএ