ঢাকা, সোমবার, ১০ ডিসেম্বর ২০১৮, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

অর্থনীতিবিদদের দৃষ্টিতে এবারের বাজেট

নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৭ জুন ২০১৮ বৃহস্পতিবার, ০৯:৩৮ পিএম
অর্থনীতিবিদদের দৃষ্টিতে এবারের বাজেট

আগামী ২০১৮-১৯ অর্থবছরে প্রস্তাবিত বাজেটকে শিল্পবান্ধব ও সবার জন্য ভারসাম্যমূলক বলে অভিহিত করেছেন দেশের কয়েজন অর্থনীতিবিদ। তবে করপোরেট কর যে হারে কমার কথা ছিল, সেই হারে না কমায় কিছুটা অসন্তুষ্টি রয়েছে তাদের।

এবারের ২০১৮-১৯ অর্থবছরে প্রস্তাবিত বাজেটে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় পল্লী কর্মসংস্থান ফাউন্ডেশনের (পিকেএসএফ) চেয়ারম্যান ও অর্থনীতিবিদ ড. কাজী খলীকুজ্জমান আহমেদ   জানান, ‘বড় বাজেটকে আমি সমর্থন করি, কারণ দেশের অর্থনীতি বড় হচ্ছে। তবে বড় বাজেট করে বসে থাকলেই চলবে না, বাস্তবায়ন করতে হবে। কারণ, কয়েক বছরে ধরেই বাজেট বাস্তবায়ন প্রশ্নবিদ্ধ থেকে যাচ্ছে।’

বাজেট প্রতিক্রিয়ায় প্রস্তাবিত বাজেটকে সবার জন্য ভারসাম্যমূলক বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজের (বিআইডিএস) সিনিয়র রিসার্চ ফেলো ও অর্থনীতিবিদ ড. নাজনীন আহমেদ।

তিনি বলেন, বাজেটে সরকার একটা ভারসাম্য রাখার চেষ্টা করেছে। ভারসাম্য এই অর্থে যে বাজেটে ব্যবসায়ী বা ধনী— সবাইকে সন্তুষ্ট করার চেষ্টা রয়েছে। দরিদ্র মানুষের জন্য সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনীর নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে।’

বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ইন্টারন্যাশনাল অ্যান্ড স্ট্র্যাটেজিক স্টাডিজের (বিআইআইএসএস) ভারপ্রাপ্ত গবেষণা পরিচালক ড. মাহফুজ কবীর  ‘নতুন অর্থবছরের বাজেটটি মূলত ঐতিহ্যের ধারাবাহিকতা। তবে এই বাজেটে ব্যবসায়ীদের জন্য অনেক ধরনের প্রণোদনা আছে।

এদিকে বাজেট নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক অর্থ উপদেষ্টা ড. এ বি মির্জ্জা আজিজুল ইসলাম। তার মতে, আগামী ২০১৮-১৯ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটের যে আকার নির্ধারণ করা হয়েছে তা কোনোভাবেই বাস্তবায়নযোগ্য নয়।

বাজেট প্রতিক্রিয়া ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআই ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (এফবিসিসিআই) সভাপতি শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন বলেছেন, প্রস্তাবিত ২০১৮-১৯ অর্থবছরের বাজেট শিল্প ও ব্যবসাবান্ধব নয়। প্রস্তাবিত বাজেট এ খাতকে চ্যালেঞ্জের মুখে ফেলবে।

বাজেটে নতুন কোনো চমক নেই বলে জানিয়েছে সেন্টার ফর পলিসি ডায়লগ (সিপিডি)। বৃহস্পতিবার বাজেট পরবর্তী তাৎক্ষণিক এক প্রতিক্রিয়ায় সংস্থাটির ফেলো ড. দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য এ মন্তব্য করেন।

বাংলা  ইনসাইডার/এসএ/ জেডএ