ঢাকা, শনিবার, ১৯ জুন ২০২১, ৫ আষাঢ় ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

শিক্ষার্থী আন্দোলনের প্রভাব বাজারেও

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৩ আগস্ট ২০১৮ শুক্রবার, ১২:৩০ পিএম
শিক্ষার্থী আন্দোলনের প্রভাব বাজারেও

রাজধানীতে প্রতিদিনই বৃষ্টি হচ্ছে। বৃষ্টির সময় বাজার একটু চড়াই থাকে। তবে এবার রাজধানীতে পণ্যের দাম বৃদ্ধি পাওয়ার নতুন কারণ যুক্ত হয়েছে। তা হলো গত প্রায় এক সপ্তাহ ধরে চলতে থাকা শিক্ষার্থীদের আন্দোলন। এর ফলে যানবাহন চলাচল যেমন বিপর্যয়ের মুখে পড়েছে, তেমনি বাইরে থেকে রাজধানীতে কাঁচামাল আনতেও ব্যবসায়ীরা নানা ভোগান্তিতে পড়ছেন। ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন, বাজারে এখন ডিম, কাঁচা মরিচ, পেয়াজ ও ব্রয়লার মুরগি দাম বাড়তি। এর পাশাপাশি অন্যান্য নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের দামও উচ্চমূল্যে স্থির রয়েছে।

আজ শুক্রবার রাজধানীর বিভিন্ন বাজার ঘুরে খুচরা ও পাইকার ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে এসব তথ্য পাওয়া গেছে।

মাসের শুরুতে হঠাৎ দাম বেড়ে যাওয়া কাঁচা মরিচ এখন প্রতি কেজি ১২০-১৬০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৫৫-৬০ টাকায়। বিভিন্ন ধরনের সবজির মধ্যে বেগুন ৪৫-৫০ টাকা, করল্লা ৫০-৬০ টাকা, কাঁকরোল, ঝিঙা ৪০-৫০ টাকা, পটল, ঢেঁড়স ৪৫-৫০ টাকা, পেঁপে ৩০-৩৫ টাকা, বরবটি ৪০-৫০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। তবে বাজার ভেদে সবজির দামের পার্থক্য রয়েছে। সবজির মধ্যে পাকা টমেটো দামও বেড়েছে। পাকা টমেটো প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ১০০-১২০ টাকায়। গত সপ্তাহে ছিল ৭০-৮০ টাকা।

বিভিন্ন বাজার ঘুরে ব্যবসায়ীদের মতামত থেকে জানা যায়, গত কয়েকদিন ধরে যে হারে বৃষ্টি হচ্ছে তাতে মরিচের দাম কমার সম্ভাবনা নেই। আন্দোলনের কারণে সামনে দাম আরও বাড়তে পারে। একই সঙ্গে বাড়তে পারে অন্যান্য সবজির দামও।

সাম্প্রতিক কালের মধ্যে ডিমের দাম সর্বোচ্চ বেড়েছে। প্রতি ডজন ডিম কিনতে ১০০-১০৫ টাকা লাগছে। বাজারে ব্রয়লায় মুরগির দাম বেড়েছে। কেজি প্রতি ব্রয়লার মুরগি ১৫৫-১৬০ টাকা বিক্রি হচ্ছে, যা সপ্তাহ আগেও ১৪০-১৪৫ টাকা ছিল।

গরু ও খাসির মাংসের দাম স্থিতিশীল রয়েছে। বর্তমানে প্রতি কেজি গরুর মাংস ৪৮০-৫০০ টাকা ও খাসীর মাংস ৭৫০-৮০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

মাছের দাম উচ্চমূল্যে স্থির রয়েছে। রাজধানীর বাজারে ১ কেজি ওজনের ইলিশ বিক্রি হচ্ছে ১৫০০-১৮০০ টাকা পর্যন্ত। তবে ইলিশের মানভেদে দাম কমবেশি রয়েছে। তবে চাষের পাঙ্গাস, কৈ, তেলাপিয়ার দাম মোটামুটি স্বস্তা রয়েছে। বাজারে বিভিন্ন ধরনের মাছের মধ্যে চাষের পাঙ্গাস ১৪০-১৭০ টাকা, কৈ ১৫০-২০০ টাকা, তেলাপিয়া ১৪০-১৬০ টাকা, ট্যাংরা ৪০০-৬০০ টাকা, শিং ৫০০-৬০০ টাকা, পাবদা ৪০০-৬০০ টাকা, চিংড়ি ৫০০-৮০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

বাংলা ইনসাইডার/বিপি/জেডএ