কালার ইনসাইড

চরকিতে আসছে এক ঝাঁক অভিনেতা ও তিনটি গল্পের ‘এই মুহূর্তে’

প্রকাশ: ০৫:১২ পিএম, ২২ Jun, ২০২২


Thumbnail চরকিতে আসছে এক ঝাঁক অভিনেতা ও তিনটি গল্পের ‘এই মুহূর্তে’

তিন কারিগর আর একটা শহর। পিপলু আর খান, মেজবাউর রহমান সুমন ও আবরার আতহার এই সময়ের তিনটি গল্পের সাথে চরকিতে আসছে নতুন সিনেমা নিয়ে। সিটি ব্যাংক নিবেদিত চরকি অরিজিনাল অ্যান্থলজি সিনেমাটির নাম ‘এই মুহূর্তে’। বর্তমানে বাংলাদেশে সবচেয়ে আলোচিত ও ভিন্ন চিন্তার এই তিন পরিচালক প্রথমবারের মতো এক ফ্রেমে আসছেন। দর্শক আগামী ২৩ জুন রাত ৮টায় চরকির পর্দায় দেখতে পারবে সিনেমাটি।

কোথায় পালাবে বলো রূপবান

লোকগাথার রূপবানকে রাজার আদেশে ১২ দিনের শিশু কোলে করে যেতে হয়েছিল বনবাসে। এই সময়ের রূপবান সেই রূপবান থেকে ভীষণভাবে আলাদা। তবে তার কোলেও রয়েছে এক শিশু। যে শিশুকে সে রাজার আদেশে নয় বরং সেচ্ছায় নিয়ে বয়ে চলেছে এই কংক্রিটের বনে। এই রূপবান লোকগাথার রূপবান থেকে আলাদা হয়েও কোথায় যেন একই রয়ে গেছে। রূপবান হয়ত এক নারীর অস্তিত্বের লড়াই।
রূপবান-এর গল্পটা যেন আমাদের চারপাশের ঘটনা। এমন ঘটনা আমরা হরহামেশাই দেখি। ‘কোথায় পালাবে বলো রূপবান’-এ কালের এক নারীর লড়াই দেখিয়েন পরিচালিক মেজবাউর রহমান সুমন।

রূপবান-এর মূল চরিত্রে দেখা যাবে প্রীয়ন্তী উর্বী। এই কাজ দিয়েই ওটিটিতে অভিষেক হচ্ছে তার। আর প্রথম প্রডাকশনেই মেজবাউর রহমান সুমনের সাথে কাজ করতে পেরে বেশ উচ্ছ্বসিত এই অভিনেত্রী। উর্বী বলেন, ‘সবকিছু মিলিয়ে এমন অদ্ভুত একটা অনুভূতি কাজ করছে তা ঠিক ভাষায় প্রকাশ করতে পারবো না। তবে এতটুকু বলতে পারি কাজটি নিয়ে আমি অনেক নার্ভাস। কারণ, ওটিটি প্রথম কাজ তার উপর আবার সুমন ভাইয়ের পরিচালনায় কাজ করেছি... খুব ভয়ে আছি দর্শকদের ভালো লাগবে নাকি।’

রূপবান চরিত্রের জন্য নিজেকে কীভাবে তৈরি করেছেন জানতে চাইলে উর্বী বলেন, ‘প্রায় ৩ মাস ধরে আমার গ্রুমিং চলেছে। হাসতে মানা ছিল; কারণ বাস্তবের আমি কারণে অকারণে খুব হাসি। শুটিংয়ের ৭দিন আমার ফোন ব্যবহার করা নিষেধ ছিল। তারপর সারাদিন আমার কোলে একটা নবজাতক ছিল। সব মিলিয়ে দারুণ এক অভিজ্ঞতা হয়েছে কাজট করে। এখন দর্শকদের কেমন লাগবে সেই অপেক্ষায় আছি।’

প্রায় ১০-১২ বছর পর ফিকশন বানালেন মেজবাউর রহমান সুমন। তাই ‘এই মুহূর্তে’ অ্যান্থলজি সিনেমাটি নিয়ে তিনিও বেশ আনন্দিত। তিনি বলেন, ‘দীর্ঘ প্রায় ১২ বছর পর আমার আবার ফিকশনে ফেরা। আর সেটা একটা অ্যান্থলজি প্রজেক্টের মধ্য দিয়ে। সামনে আমার আরেকটা সিনেমা মুক্তি পাবে। সব মিলিয়ে আমার জন্য সময়টা খুব আনন্দের। এই প্রজেক্টে সব থেকে ভালো লাগার বিষয় হলো আমদের এক সাথে কাজ করা। এই কাজের মধ্য দিয়ে আমাদের তিন পরিচালকের চিন্তার জায়গাগুলো একে অপরের মধ্যে অনেক আদান প্রদান হয়েছে। সেটা হয়তো আড্ডার ছলেও হয় কিন্তু এবার সেটা কাজের মাধ্যমে খুব বেগবান হয়েছে।’

‘কোথায় পালাবে বলো রূপবান’-এ উর্বীর সাথে আরও দেখা যাবে মোস্তাফিজুর নূর ইমরান,  রাশেদা রাখি, কামরুজ্জামান তাপু, দৃষ্টি প্রামাণিকসহ আরও অনেকে।

ওয়ান পিস মেড কারিগর ইজ ডেড

চৌদ্দগুষ্টি মিলে যখন প্ল্যান করে ফারহা’র পারিবারিক জীবন নিয়ে সালিশ বসায় তখন এক দল উদ্ভট ক্যারেক্টার- বাবা, মা, টাকাওয়ালা প্রভাবশালী আঙ্কেল, শাশুড়ি আর একজন কাজিন জড়িয়ে যায় একটা জটিল ন্যারেটিভের খেলায়। একই সময়ে পাশের বাড়িতে ঘটে যায় এক তুলকালাম কাণ্ড। 

আবরার আতহার পরিচালিত এই গল্পটির নাম দেয়া হয়েছে ‘ওয়ান পিস মেড কারিগর ইজ ডেড’। এই গল্পে প্রায় ২৫ জন অভিনেতা-অভিনেত্রী কাজ করেছেন। এই কাজের মধ্য দিয়ে দীর্ঘদিন পর শহীদুজ্জামান সেলিম ও রোজী সিদ্দিকী দম্পতিকে একসাথে দেখবে দর্শক। ওটিটিতে অভিষেক হবে সুনেরাহ বিনতে কামালের। সেই সাথে এই কনটেন্টে আছেন রোকেয়া প্রাচী, ইয়াশ রোহান, তাসলিমা হোসেন নদী, আশীষ খন্দকার, ইরফান সাজ্জাদ, শরীফ সিরাজ, তৌফিকুল ইসলাম ইমন, আরিক আনাম খান, নাওয়াফ নাসের, সায়রাজ মেহেদি রিংকু, শরিফুল ইসলাম, সৈয়দ গোলাম সারওয়ার, ইউনুস আলী, সৈয়দ নাজমুস সাকিব, ইফতেখার ইমাজ, ফাহি তানু, রিমন হোসেন খান, বিজয়া রত্নাবলি, সোহান রহমান, রিয়াসাত সালেকিন, আবরার জাহিন রাফি, ইমান প্রধান, আতহার মিজবাহ অর্ণব প্রমুখ।

পরিচালক আবরার আতহার বলেন, ‘পিপলু ভাই ও সুমন ভাইয়ের সাথে কাজ করাটা ছিল আমার জন্য ভয়ের, চ্যালেঞ্জের ও এক্সসাইটমেন্টের। আর অনেক কিছু শেখারও ছিল। আমরা তিনজন একদম ভিন্ন তিন রকমের গল্পকার। আমরা সবাই সমসাময়িক বিষয়গুলো নিয়ে কাজ করার চেষ্টা করেছি। যা প্রতিনিয়ত আমাদের চোখের সামনে ঘটে থাকে তা অনন্য শৈল্পিক দৃষ্টিভঙ্গির মাধ্যমে তুলে ধরার চেষ্টা করেছি। আমি আশা করি, দর্শক এটা দেখে মজা পাবে।’

কল্পনা

দুটি অপরিচিত মানুষের একটি মুহূর্তের গল্প আবর্তিত হয়েছে তাদের আলাদা দৃষ্টিভঙ্গি দিয়ে। যেখানে আরও দুজন মানুষের আবির্ভাব হয় যারা তাদের মতো করে নতুন করে দেখে। টিভিসি জগতে পরিচিত এক নাম পিপলু আর খান। এই অ্যান্থলজি সিনেমার ‘কল্পনা’ গল্পটি তার নির্মিত।

প্রায় দেড় দশক পর সারা যাকেরকে অভিনয়ে দেখবে দর্শক। সেই সাথে রয়েছেন জাহিদ হাসানের মতো বাঘা অভিনেতা। এই দুই প্রবীণ অভিনেতা সাথে রয়েছেন তানজিম সাইয়ারা তটিনী ও দিব্য জ্যোতি।

পিপলু আর খান বলেন, ‘এই কনটেন্টটা খুব ইন্টারেস্টিং দুইটা কারণে। প্রথমত, এই মুহূর্তে খুব কোয়ালিফাই করে যে, সোসাইটির কিছুর গভীর ক্ষত বা প্রবাহ আমরা যেরকম দেখি সেভাবে দেখনো। দ্বিতীয়ত, এইটা একটা সেন্সবল ও সেন্সিটিভ প্রজেক্ট। আমরা তিনজন চেষ্টা করেছি সমসাময়িক যে ঘটনাগুলা হয়েছে সেটার একটা ফিকশনাল ব্যাখ্যা তৈরি করতে।’

তিনি আরও বলেন, ‘এক অর্থে এটা আমার প্রথম ফিকশন। আর ফিকশনেই দুইজন প্রবীণ ও দুজন নবীন অভিনেতার সাথে কাজ করার অভিজ্ঞটা দুর্দান্ত। এই প্রজেক্টের যে সামাজিক সচেতনতা আছে তা সময় উপযোগী। এই মুহূর্তে হচ্ছে আমাদের সমাজের এক প্রকার পরাজয়ের গল্প, হেরে যাওয়ার গল্প। যেটা সৃজনশীলভাবে দর্শকের কাছে নিতে চাই।’

চরকির প্রধান পরিচালন কর্মকর্তা রেদওয়ান রনি বলেন, ‘এই মুহুর্তে চরকির প্রথম অ্যান্থোলজি ফিল্ম। তিন গুণী নির্মাতার করা প্রথম সিনেমা এটি। তিনটি ছোট গল্পে রয়েছে একাধিক অভিনেতা-অভিনেত্রীর উপস্থিতি। সব মিলিয়ে দারুণ একটি কাজ চরকিতে আসতে চলেছে।’ 


চরকি  


মন্তব্য করুন


কালার ইনসাইড

বাবা-মা হচ্ছেন নওশীন-হিল্লোল

প্রকাশ: ০১:৩৯ পিএম, ২৬ Jun, ২০২২


Thumbnail বাবা-মা হচ্ছেন নওশীন-হিল্লোল

পরিচিত মুখ ও জনপ্রিয় তারকা জুটি অভিনেত্রী-উপস্থাপিকা নওশীন নাহরিন মৌ ও অভিনেতা-ইউটিউবার আদনান ফারুক হিল্লোলের ঘরে আসতে চলছে তাঁদের প্রথম সন্তান। বাবা-মা হতে চলেছেন এই জনপ্রিয় দম্পতি। বিয়ের ৯ বছর পর তারা এই প্রথম সন্তান গ্রহণ করছেন।

বিষয়টি নওশীন নিজেই যুক্তরাষ্ট্র থেকে নিশ্চিত করেছেন । এ সময় তিনি নিজের ও অনাগত সন্তানের জন্য দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন।  

জানা যায়, যুক্তরাষ্ট্রে শনিবার (২৫ জুন) নিউ ইয়র্কে আয়োজন করা হয় নওশীনের বেবি সাওয়ার। যেখানে অংশ নেন রিচি সোলায়মান, কাজী মারুফ, মোনালিসা, তমালিকা কর্মকার, কল্যাণ কোরাইয়া ও রোমানাসহ বেশ কয়েকজন বাংলাদেশি তারকা।  

নওশীন আমেরিকায় একটি মেডিকেল সেন্টারে বর্তমানে চাকরিরত আছেন। হিল্লোল ব্যস্ত তার ফুড ভ্লগিং নিয়ে। চলতি বছর হিল্লোল বাংলাদেশে এলেও তখন নওশীন আসেননি। বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কে স্থায়ীভাবে বসবাস করছেন তারা।

নওশীন-হিল্লোল   বাবা-মা   হচ্ছেন  


মন্তব্য করুন


কালার ইনসাইড

দশ বছর বয়সেই প্রেমে পড়েছিলেন অরিজিৎ, কে সেই প্রেমিকা!

প্রকাশ: ১২:৫০ পিএম, ২৬ Jun, ২০২২


Thumbnail দশ বছর বয়সেই প্রেমে পড়েছিলেন অরিজিৎ, কে সেই প্রেমিকা ?

অনেকটাই ‘ম্যায় হুঁ না’ ছবির গল্পের কথা মনে করিয়ে দেয়। কিন্তু এটি ছবি নয়, বাস্তব। ছবির সঙ্গে তফাত, ছাত্র বয়সে অনেকটাই ছোট, শিক্ষিকা বড়। অরিজিৎ সিংহের প্রেমকাহিনি। তখন তিনি স্কুলে। আট থেকে আশি যাঁর প্রেমে পাগল, তিনি প্রেমে পড়েছিলেন মাত্র ১০ বছর বয়সে। তা-ও আবার তাঁর থেকে বয়সে অনেক বড় শিক্ষিকার। 

মুম্বইয়ের সংবাদ সংস্থাকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে, প্রথম প্রেম নিয়ে কথা বলতে গিয়ে লজ্জায় লাল অরিজিৎ।

সবে তখন ক্লাস ফাইভ। অরিজিৎ সিংহ প্রেমে পড়লেন শিক্ষিকার। পরীক্ষা দিতে গিয়ে দেখেন, পাহারায় সেই শিক্ষিকা। লেখা ভুলে তাঁর উদ্দেশে গাইলেন প্রেমের গান। ‘ভুল ভেঙে যাবে যে দিন/ তুমি আমারই হবে/ তুমি আমারই হবে সে দিন’।

গান শুনে কী করেছিলেন ওই শিক্ষিকা? পরীক্ষায় কত নম্বর দিয়েছিলেন, জানা না গেলেও, এখনও দেখা হলে প্রথম ভাল লাগার কথা ‘ম্যাম’-কে মনে করিয়ে দিতে ভোলেন না ‘আশিকি-২’-এর গায়ক। ওই গানই তাঁর সব থেকে প্রিয় গান। মাঝেমাঝেই গুনগুন করেন আর তখনই মনে পড়ে ছোটবেলার প্রথম প্রেমের কথা। মঞ্চে গিটার হাতে দাঁড়ালেই শ্রোতারা পাগল, যখন গান গাইতে শুরু করেন বাঁধ ভেঙে যায় প্রেক্ষাগৃহের। তাঁকে একটু ছুঁতে চাওয়ার জন্য হুডোহুড়ি পড়ে যায় অনুরাগীদের। ২০১১ থেকে বাড়তে থাকা জনপ্রিয়তায় ভাটা পড়েনি কখনও।

গুঞ্জন, এই ‘প্লে-ব্যাক’ কিং-এর গায়কির মতো মসৃণ ছিল না তাঁর প্রেমকাহিনি। বার বার প্রেমে পড়েছেন অরিজিৎ। ভেঙেছে সম্পর্ক। এর মধ্যে রূপরেখা বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিয়ে গুঞ্জন ছিল সব থেকে বেশি। রূপরেখার সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক নাকি বিয়ের পিঁড়ি অবধিও গড়িয়েছিল। যদিও রূপরেখা এই খবর মিথ্যে বলে জানিয়েছিলেন।

ছোটবেলার বন্ধু কোয়েলকে বিয়ে করে এখন সুখের দাম্পত্য কাটাচ্ছেন অরিজিৎ। কিন্তু ভুলতে পারেননি তাঁর প্রথম প্রেম। তবে জানিয়েছেন, কোয়েলের সারল্যের মধ্যেই নাকি খুঁজে পেয়েছেন ছোটবেলার প্রেমের অপাপবিদ্ধতাকে।

অরিজিৎ   গায়ক  


মন্তব্য করুন


কালার ইনসাইড

এবার কলকাতার উঠতি মডেলের আত্মহত্যার চেষ্টা

প্রকাশ: ০৮:৩১ এএম, ২৬ Jun, ২০২২


Thumbnail এবার কলকাতার উঠতি মডেলের আত্মহত্যার চেষ্টা

সম্প্রতি কলকাতায় বেশ কয়েকজন মডেল-অভিনেত্রী আত্মহত্যা করেছেন। তাদের আত্মহত্যার রেশ কাটতে না কাটতেই খবর এলো কলকাতার এক উঠতি মডেলের আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন।

এই মডেলের নাম দেবলীনা দে। ২৭ বছর বয়সী এই তরুণী বিভিন্ন সিরিয়াল ও মিউজিক ভিডিওতে কাজ করেন। শুক্রবার (২৪ জুন) রাতে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে বেশ কয়েকটি ঘুমের ওষুধ খান তিনি। তবে পূর্ব যাদবপুর থানার পুলিশের তৎপরতায় প্রাণে বাঁচেন ওই তরুণী। বর্তমানে তিনি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

শুক্রবার রাতে একটি ফেসবুক পোস্টে দেবলীনা লেখেন, ‘আমি বেঁচে থাকার জন্য অনেক লড়াই করেছি। আমার পরিবার সব কিছুর জন্য দায়ী… এখন আমি শান্তি চাই। বিদায়।’

মুহূর্তেই সোশ্যাল মিডিয়ার পোস্টটি নজরে আসে তার বন্ধু-বান্ধবদের। নজরে আসে পুলিশেরও। তড়িঘড়ি করে পূর্ব যাদবপুর থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। পুলিশ গিয়ে দেখে, ঘরে অচেতন অবস্থায় পড়ে রয়েছেন তিনি। তাকে উদ্ধার করে তড়িঘড়ি পাশের একটি হাসপাতালে নেওয়া হয়। চিকিৎসকরা জানান, অতিরিক্ত ঘুমের ওষুধ খেয়েছেন তিনি।

জানা গেছে, দেবলীনা দে আদতে কালনার বাসিন্দা। তবে কর্মসূত্রে যাদবপুরের আবাসনে থাকতেন। শুক্রবার কালনার বাড়িতে গিয়েছিলেন উঠতি মডেল। সেই সময় পরিবারের লোকজনের সঙ্গে তর্কাতর্কিও হয় তার। ফিরে আসেন যাদবপুরের আবাসনে। ফিরে রাতেই চূড়ান্ত অবসাদে ভরা ফেসবুক পোস্ট করেন ওই উঠতি মডেল। তবে কী কারণে পরিবারের লোকজনের সঙ্গে তর্কাতর্কি হলো তার, সে বিষয়ে এখনো কিছু জানা যায়নি।

জানা যায়, আত্মহত্যার চেষ্টা করার আগে নিজের ডায়েরির পাতায় একটি নোট লিখেছিলেন দেবলীনা। যেটি অভিনেত্রী ফেসবুকে পোস্টও করেছিলেন। পরে অবশ্য সেই পোস্টটি মুছে দেন তিনি। 


আত্মহত্যা   মডেল   অভিনেত্রী  


মন্তব্য করুন


কালার ইনসাইড

‘দিন : দ্য ডে’-‘পরাণ’ পারবে কী দর্শকদের হলমুখী করতে?

প্রকাশ: ১০:০০ পিএম, ২৫ Jun, ২০২২


Thumbnail

প্রতি বছর দর্শক মুখিয়ে থাকেন ঈদের সিনেমার অপেক্ষায়। কোভিড মহামারিতে ঢালিউডে স্থবিরতা বিরাজ করলেও ছোট ছোট পদক্ষেপে আবারও সিনেমা পথচলা শুরু করেছে। আসছে ঈদুল আযহায় মুক্তির জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে বেশকিছু চলচ্চিত্র, যার মাঝে উল্লেখযোগ্য ‘দিন: দ্য ডে’, ‘পরাণ’ ও ‘সাইকো’।

গেল রোজার ঈদে মুক্তি পেয়েছিলো শাকিব খানের ‘গলুই’ ও ‘বিদ্রোহী’, সিয়াম আহমেদের ‘শান’ এবং নতুন নায়িকা সুলতানা রোজ নিপার ‘বড্ড ভালোবাসি’। করোনার কারণে বেশ অনেকদিন মুক্তি আটকে ছিলো ছবি গুলোর। ঈদে মুক্তির পর ছবিগুলো দিয়ে নির্মাতা ও প্রযোজকরা আশার আলো দেখলেও তেমন ভাবে ছবিগুলো দর্শক মহলে সাড়া ফেলেনি। মোট কথা তেমন ভাবে ব্যবসা সফল হয়নি।



এদিকে আসছে ঈদুল আযহায় অভিনেতা ও প্রযোজক অনন্ত জলিল দীর্ঘদিন পর ‘দিন: দ্য ডে’ ছবি দিয়ে বড় পর্দায় আসতে যাচ্ছেন। ইতোমধ্যে বেশ আদাজল খেয়েই প্রচারণার জন্য মাঠে নেমেছেন তিনি। বিভিন্ন হলে গিয়ে হল মালিকদের সাথে আলোচনা, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের ট্রেলার দেখানো থেকে সারা শহরে পোষ্টার লাগানোর কাজও শুরু করেছেন।

ইরানের সঙ্গে যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত সিনেমাটির বাংলাদেশের অংশ প্রযোজক অনন্ত জলিল; প্রযোজনার পাশাপাশি অভিনয়ও করেছেন তিনি। বাংলাদেশ, তুরস্ক, আফগানিস্তান, ইরানে সিনেমার শুটিং হয়েছে। বিগ বাজেটের এই ছবিটি পরিচালনা করেছেন ইরানি নির্মাতা মুর্তজা অতাশ জমজম।



এদিকে নির্মাতা রায়হান রাফির ‘পরাণ’ ছবিটিও ঈদে সম্ভাব্য মুক্তির তালিকায় আছে। ২০১৯ সালেই সিনেমাটির কাজ সম্পন্ন হয়েছিল। এরপর মুক্তি পাওয়ার কথা ছিল ২০২০ সালের ভালোবাসা দিবসে। সে লক্ষ্যে টিজারও প্রকাশ করা হয়। যেটা দেখে দর্শক মনে সিনেমাটি ঘিরে দারুণ আগ্রহ তৈরি হয়। কিন্তু মহামারি করোনায় সব ভেস্তে যায়। দুই বছর পিছিয়ে অবশেষে মুক্তি পাচ্ছে ‘পরাণ’।

‘পরাণ’ সিনেমার টিজার প্রকাশ হওয়ার পর অনেকেরই ধারণা, এটি নির্মিত হয়েছে বরগুনার বহুল আলোচিত ‘রিফাত-মিন্নি’র ঘটনা নিয়ে। ২০১৯ সালের জুন মাসে বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে স্ত্রী মিন্নির সামনে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যা করা হয় তার স্বামী রিফাত শরিফকে। হত্যার মূলে ছিলেন মিন্নির প্রাক্তন প্রেমিক নয়ন বন্ড। সেই ঘটনায় পুরো দেশে হৈচৈ পড়ে যায়।

যদিও নির্মাতা রাফি কিংবা এর সংশ্লিষ্টরা বিষয়টি স্পষ্ট করেননি। তাদের মতে, এটা সত্য ঘটনা অবলম্বনে নির্মিত সিনেমা। এখানে আশেপাশের ঘটনার মিল পাওয়া যাবে। তবে মূল গল্প পুরো সিনেমা দেখলেই বুঝতে পারবেন দর্শক।

অন্যদিকে আসছে ঈদে নির্মাতা অনন্য মামুন ঘোষণা দিয়েছেন তাঁর পরিচালিত ‘সাইকো’ ছবিটি মুক্তি দেয়া হবে। এই ছবিতে কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেছেন পূজা। এই ছবিতে পূজার বিপরীতে অভিনয় করেছেন নায়ক রোশান। ‘সাইকো’ ছবিটি প্রযোজনা করছে সেলেব্রিটি প্রোডাকশন ও আরবিএস এন্টারটেইনমেন্ট।

সবকিছু মিলিয়ে বিগ বাজেট ও মিডিয়াম বাজেটের মোট তিনটি ছবি সম্ভাব্য মুক্তির তালিকায় রয়েছে আসছে ঈদে। তবে সবকিছুর পরেও রয়ে যাচ্ছে শঙ্কা। কেননা দেশে অনেক হারেই কমে গেছে প্রেক্ষাগৃহের সংখ্যা। উৎসবকে কেন্দ্র করে কিছু হল খোলা হলেও সেগুলো তেমন ভাবে দর্শক দেখা যায়না। শুধু তাই নয় ছবির গল্প নিয়েও রয়েছে অনেকের অভিযোগ। নকল গল্প ও সেই একই প্রেম-ভালোবাসার গল্প নিয়েই ছবি নির্মাণ হয় বলে দর্শক তেমন ভাবে আর আগের মত সিনেমা দেখে না। তবে এবার ঈদে তিনটি ছবির গল্প ভিন্ন। ইতোমধ্যে প্রচারণাও বেশ চলছে। এখন দেখার অপেক্ষায়। এই সিনেমা গুলো দিয়ে দর্শক কতটা হল মুখী হন! পাশাপাশি ব্যবসায়িক ভাবেই বা কতটা লাভবান হন চলচ্চিত্রগুলোর প্রযোজকরা।


মন্তব্য করুন


কালার ইনসাইড

কাচ ঢুকে চোখের মণির ওপরের অংশ কেটে গেছে আরজে নীরবের

প্রকাশ: ০৫:০৩ পিএম, ২৫ Jun, ২০২২


Thumbnail কাঁচ ঢুকে চোখের মণির ওপরের অংশ কেটে গেছে আরজে নীরবের

‘সবসময় শুনে এসেছি, দূষিত শহরের একটি ঢাকা। বসবাসের অযোগ্য শহরের মধ্যে সেরাদের তালিকায়। আজকে নিজে প্রমাণ। আমার বাম চোখের মণির ওপরের অংশ কেটে গেছে।’ এভাবেই দুর্ঘটনার খবর জানালেন আরজে নীরব।

ঘটনার বর্ণনা দিয়ে তিনি জানান, ‘বাসায় ফেরার পথে হঠাৎ দমকা হাওয়া, তার সঙ্গে কিছু একটা চোখে এসে লাগে। শুরু হয় ব্যথা। কোনোরকম বাসায় ফিরে জামাকাপড় বদলে দ্রুত হাসপাতালে চলে যাই। প্রথমে ডাক্তার বলেন, চোখের ভেতর কিছু একটা ঢুকেছে, যা চোখে থাকার কথা নয়। অনেক চেষ্টার পর ডাক্তাররা একটি কাচের টুকরা বের করেন। আমার চোখের মণির ওপরের অংশ কেটে গেছে।

ঢাকার রাস্তায় বের হওয়ার সময় সবাইকে সচেতন থাকার আহ্বান জানিয়েছেন নীরব। তিনি বলেন, ‘আমাদের প্রিয় ঢাকা বিষাক্ত শহর, দূষিত শহর। যে বাতাস নাক দিয়ে নিচ্ছি সেই বাতাসে ভেসে বেড়াচ্ছে কাচের টুকরা। এই কাচের টুকরা যে কোনো সময় যে কাউকে আহত করতে পারে। চিরতরে অন্ধ করে দিতে পারে। আপনারা বাইরে বের হলে অবশ্যই সাবধানতা অবলম্বন করবেন।’

আরজে নীরব যোগ করেন, ‘ঢাকা শহরকে আমরাই দূষিত করছি। এই শহরের বাতাস কোনোদিন সুস্থ হবে কিনা জানিনা। প্রিয় শহর, ভালো থেকো তুমি।’


কাচ   আরজে নীরব  


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন