কালার ইনসাইড

তাদের কিসের এত ভয়?

প্রকাশ: ১১:৪৬ পিএম, ০৬ ডিসেম্বর, ২০২১


Thumbnail

গেল দুই দিন ধরে বেশ আলোচনা সমালোচনা হচ্ছে তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসানকে নিয়ে। মন্ত্রীত্ব গ্রহণের পর থেকেই নানা সময় নানা অনুষ্ঠানে  বিভিন্ন বিষয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করে আলোচনায় উঠে আসেন তিনি। কখনও বিরোধী দলের নেতাকর্মী নিয়ে আবার কখনওবা চলচ্চিত্র জগতের লোকদের নিয়ে বিরূপ মন্তব্য করছেন।

সম্প্রতি নায়িকা মাহির সাথে এক ফোন আলাপ ফাঁস হওয়াতে নেট দুনিয়া থেকে শুরু করে সর্বস্তরে সমালোচনার ঝড় উঠে তাকে নিয়ে। এক ফোন কলের আলাপচারিতাই কাল হলো তার।

সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া  অডিও ক্লিপটিতে যেকথা বলেছেন তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান। অপর প্রান্তে ছিলেন চিত্রনায়ক ইমন ও চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহি।

ফাঁস হওয়া ওই কথোপকথনে তথ্য প্রতিমন্ত্রী মাহিকে ধর্ষণের হুমকি দেওয়ার পাশাপাশি আইন শৃঙ্খলাবাহিনীর সহায়তায় তুলে আনার হুমকি দেন। পুরো বক্তব্যে ‘অশ্রাব্য’ কিছু শব্দ উচ্চারিত হয়েছে। বিষয়টি এখন ‘টক অব দ্য কান্ট্রি’। তবে এ নিয়ে তথ্য প্রতিমন্ত্রী কিংবা মাহিয়া মাহির সঙ্গে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও কোনও বক্তব্য পাওয়া যায়নি। 

অডিও ক্লিপটি ভাইরাল হওয়ার পর থেকে সর্বস্তরে প্রতিবাদ লক্ষ করা যায়। তবে বিষয়টি নিয়ে তেমন সরব ছিলেন না শোবিজের অনেক তারকাই

চুপ ছিলেন। এমনকি চলচ্চিত্রের বিভিন্ন সংগঠনও। শুধু তাই নয় যেই দুই জন শিল্পীকে নিয়ে ঘটনা তাদের নিয়েও কোন বিবৃতি পাওয়া যায়নি বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি থেকে।

এদিকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে খবরটি পৌঁছালে তিনি প্রতিমন্ত্রীকে পদত্যাগের নির্দেশ দেন। আর এরপর থেকেই সবাই প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান। সেই কাতারে আছেন শোবিজ তারকারাও। এবার প্রশ্ন উঠেছে শোবিজ তারাকাদের নিয়ে শুরুতে কেনো তারা চুপ ছিলেন? কেন তারা কোন প্রতিবাদ করেননি?

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে একটু চোখ দিলেই দেখা যাচ্ছে সাধারণ জনগণ অনেকেই আঙুল তুলছেন শোবিজ তারাকাদের দিকে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ দেয়া অনেক শোবিজ তারকাদের পোস্টে মানুষ কমেন্ট করছেন শুরুতে কেন তারা চুপ ছিলেন?

শুরু এই ঘটনাই নয় প্রায়ই দেখা যায় কোন মন্ত্রী আকলাকে নিয়ে কিছু হলে শুরুতে সবাই চুপ থাকেন কিন্তু পরবর্তীতে প্রধানমন্ত্রীর সিদ্ধান্ত আসার পর সবাই ধন্যবাদ জানান। তাহলে শুরুতে কেনো তারা প্রতিবাদ না করে চুপ থাকেন? কিসের এত ভয় তাদের?



মন্তব্য করুন


কালার ইনসাইড

সহযোগী চলচ্চিত্র শিল্পীরা ভোট দিতে পারবে না : হাইকোর্ট

প্রকাশ: ০৬:১৪ পিএম, ২৬ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির এবারের নির্বাচনে ভোট দিতে পারবেন না সহযোগী শিল্পীরা। এ ব্যাপারে শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান বলেন, আমাদের সমিতির সহশিল্পীরা যারা ভোটাধিকার ফিরে পাওয়ার জন্য আবেদন করেছিলেন, তারা এবারের নির্বাচনে ভোট দিতে পারবেন না বলে জানিয়েছেন হাইকোর্ট।

আদালতে চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খানের পক্ষে শুনানি করেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী অ্যাডভোকেট ইউসুফ হোসেন হুমায়ূন, অ্যাডভোকেট আহসানুল করিম ও অ্যাডভোকেট নাহিদ সুলতানা যুথি। আবেদনকারী শিল্পীদের পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট শাহ মঞ্জুরুল হক। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল অরবিন্দু কুমার রায়।

আগামী ২৮ জানুয়ারি এফডিসিতে চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির এই দ্বিবার্ষিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। আসন্ন চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচনের দুটি প্যানেল অংশ নিচ্ছে। একটিতে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে রয়েছেন যথাক্রমে বরেণ্য অভিনেতা ইলিয়াস কাঞ্চন ও নায়িকা নিপুণ। অন্যটিতে আছেন মিশা সওদাগর ও জায়েদ খান।

হাইকোর্ট   শিল্পী সমিতি  


মন্তব্য করুন


কালার ইনসাইড

যা আছে কাঞ্চন- নিপুণ পরিষদের ইশতেহারে

প্রকাশ: ০৫:০৯ পিএম, ২৬ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail

আগামী ২৮ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির ২৭তম দ্বিবার্ষিক নির্বাচন। এ উপলক্ষে বুধবার (২৬ জানুয়ারি) গণমাধ্যমের জন্য আয়োজন করা হয় ইলিয়াস কাঞ্চন-নিপুণ পরিষদের পরিচিত পর্ব। প্রার্থীদের পরিচয় পর্বের জন্য এ আয়োজন হলেও এতে খুঁজে পাওয়া গেল না বেশিরভাগ প্রার্থীদেরকেই।

বেলা ১টায় আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে পদপ্রার্থী ২১ জনের মধ্যে উপস্থিত হলেন শুধু সাংগঠনিক পদের পাঁচজন ও দুইজন কার্যকরী সদস্য।

উপস্থিত ছিলেন সভাপতি পদপ্রার্থী ইলিয়াস কাঞ্চন, সহ-সভাপতি রিয়াজ, ডি এ তায়েব, কোষাধ্যক্ষ আজাদ, কার্যকরী পদের ফেরদৌস, কেয়া ও সীমান্ত।

বিষয়টি নিয়ে ইলিয়াস কাঞ্চন বলেন, ‘আর একদিন বাদেই আমাদের নির্বাচন। তাই আমরা কাজ ভাগ করে করছি। অনেকেই উপস্থিত হননি।’

এদিকে এই অভিনেতা সংবাদকর্মীদের সামনে তাদের ২২ দফা ইশতেহার তুলে ধরেন। এরমধ্যে জোর দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে এফডিসিতে আনা এবং শিল্পীদের প্রোফাইল তৈরিসহ কয়েকটি দিক।

ইলিয়াস কাঞ্চন বলেন, ‘আমরা প্রথমেই চাই বঙ্গবন্ধুর তৈরি বিএফডিসিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আনতে। এছাড়াও শিল্পীদের জন্য তৈরি কল্যাণ ট্রাস্টের ব্যবহার, চলচ্চিত্রের সার্বিক অবস্থা তুলে ধরে এটি নির্মাণে ঋণের ব্যবস্থাও করতে চাই।’

২২টি পয়েন্টের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো- বিএফডিসিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আনা, শিল্পীদের জন্য তৈরি কল্যাণ ট্রাস্টের ব্যবহার, চলচ্চিত্রের সার্বিক অবস্থা তুলে ধরে এটি নির্মাণে ঋণের ব্যবস্থা, বাতিল ও স্থগিত বা ভোটাধিকার বঞ্চিত শিল্পীদের তা ফিরিয়ে দেওয়া, শিল্পীদের মর্যাদা রক্ষায় কেউ একবার সদস্য হলে আজীবন সদস্য থাকবে, যেকোনও দুর্যোগ শিল্পীদের পাশে দাঁড়াবে সমিতি, সহায়তা গ্রহণকারীদের ছবি ও ভিডিও প্রকাশ না করা, পার্শ্ববর্তী দেশের শিল্পী সংগঠনের মধ্যে চুক্তি করে দেশের শিল্পীদের কর্মসংস্থান তৈরি করা, ওয়েবসাইট উন্নয়ন, শিল্পীদের প্রোফাইল তৈরি করা, বিশেষ করে নৃত্য ও অ্যাকশন শিল্পীদের প্রোফাইল তৈরি করে বিশ্বের বিভিন্ন ইন্ডাস্ট্রিতে পাঠানো, সভাপতিকে পদাধিকার সেন্সর বোর্ড বা তথ্য-সম্প্রচার বা সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন জায়গায় অধিষ্ঠিত করা।

ইলিয়াস কাঞ্চন জানান, ‘মর্যাদায় ও পর্দায় আমাদের শিল্পী’ স্লোগানে তারা এবারের নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন। তারা নির্বাচিত হলে শিল্পীদের মর্যাদা ও পর্দায় তাদের কাজের ব্যবস্থা করবেন।


মন্তব্য করুন


কালার ইনসাইড

দেড় বছর আড়াল ভেঙে প্রকাশ্যে এসে যে বার্তা দিলেন পপি

প্রকাশ: ০৫:০৫ পিএম, ২৬ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail

ঢাকাই সিনেমার  দর্শকপ্রিয় অভিনেত্রী সাদিকা পারভীন পপি৷ প্রায় দেড় বছর আড়ালে ছিলেন তিনবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারজয়ী এ তারকা। শোনা গিয়েছে বিয়ে করে সন্তান নিয়ে সংসার নিয়ে ব্যস্ত আছেন তিনি। বহু চেষ্টা করেও তার সাথে যোগাযোগ করতে পারেননি সাংবাদিক থেকে শুরু করে তার কাছেন অনেক মানুষ।  অবশেষে আড়াল ভেঙে ফিরলেন এই অভিনেত্রী। দেখা দিলেন এক ভিডিও বার্তা দিলেন। 

ভিডিও বার্তায় পপি বিগত দুই মেয়াদে ক্ষমতায় থাকা শিল্পী সমিতির ক্ষমতাসীন একজনকে ইঙ্গিত করে কিছু অভিযোগের কথাও তুলে ধরেন। যদিও তিনি সরাসরি তার নাম নেননি।

পপি বলেন, ভেবেছিলাম আর কখনোই ক্যামেরার সামনে আসবো না। কিন্তু একজন শিল্পী হিসেবে এবং নিজের কিছু দায়বদ্ধতার জায়গা থেকে আজকে কিছু কথা না বললেই না।

পপি বলেন, দীর্ঘ ২৬ বছর ইন্ডাস্ট্রিতে সুনামের সাথে কাজ করার চেষ্টা করেছি। তিনবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছি। আজকে অনেক কষ্ট নিয়ে কথাগুলো বলছি, আজ আমি কোথায়! আমি আছি আপনাদের মাঝেই, হয়তো ভাগ্য থাকলে আবারও ফিরবো।

অভিযোগ করে ‘কুলি’ সিনেমার এই নায়িকা বলেন, বর্তমান শিল্পী সমিতির একটি মাত্র লোকের কারণে, তার পলিটিক্স এবং তার অনেক রকম অসহযোগিতার কারণে আমাকে বার বার অপমানিত হতে হয়েছে। শুধু আমি না, আমার মতো রিয়াজ, ফেরদৌস, পূর্ণিমা, নিপুণও অপমানিত হয়েছেন। আমাদেরকে ব্যবহার করে যে এই চেয়ারটিতে বসেছে- সেখানে বসেই বিভিন্ন রকমের অপকর্মের চেষ্টা করেছে। কিন্তু আমরা গুটি কয়েক তাতে সাঁয় দিইনি। যার কারণে আজকে আমি ভিক্টিম। আমার মতো শিল্পীকে সদস্য পদ বাতিলের জন্য চিঠি দেয়া হয়েছে। এতো বছর কাজ করার পর এমন আচরণ, একটা শিল্পীর জন্য কতোটুকু অপমানের- সেটা আমি বুঝতে পারি। ১৮৪জন শিল্পীরাও এই কষ্টটা বুঝতে পারবে।

পপি জানান, এসব কারণে চলচ্চিত্র থেকে নিজেকে গুটিয়ে নিয়েছি। আমার কাছে সদস্য পদ বাতিলের চিঠিটা এখনও আছে। ওই চিঠিটা যখনই পেয়েছি, তখনই সিদ্ধান্ত নিয়েছি- এই নোংরামির মধ্যে আর আমি যাবো না। ভেবেছি, কখনো যদি পরিবেশ ভালো হয়- তখনই চলচ্চিত্রে ফিরবো।

২০২০ সালের ডিসেম্বর থেকে উধাও তিনি। এরপর তাকে নিয়ে নানা খবর চাউর হয়। গত বছরের ২৮ অক্টোবর জানা যায় তিনি পুত্র সন্তানের মা হয়েছেন। যার কারণে আড়ালে তিনি৷ শোনা গিয়েছিল চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচনে অংশ নেওয়ার খবর৷ তবে সে পর্যন্ত নির্বাচনে দেখা যায়নি তাকে। তাছাড়া পপি ২৮ জানুয়ারি ভোট দিতে আসছেন না বলেও জানা গেছে।

উল্লেখ্য, পপির আড়াল থাকার কারণে আটকে আছে কয়েকটি সিনেমা। তার মধ্যে রয়েছে- রাজু আলীম ও মাসুমা তানি পরিচালিত ‘ভালোবাসার প্রজাপতি’ ও আরিফুর জামান আরিফের ‘কাঠগড়ায় শরৎচন্দ্র’ সিনেমা দুটি।

পপি  


মন্তব্য করুন


কালার ইনসাইড

শিল্পী সমিতির নির্বাচনে বাধা নেই

প্রকাশ: ০৪:৪৩ পিএম, ২৬ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail

আগামী ২৮ জানুয়ারি বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচন হতে বাধা নেই বলে জানিয়েছে হাইকোর্ট। বুধবার বিকালে বিচারপতি মো. খসরুজ্জামান এ আদেশ দেন। আদেশে বিচারপতি বলেন, ভোটার তালিকা থেকে বাদ পড়াদের বিষয়ে রুল শুনানির পর বিস্তারিত সিদ্ধান্ত জানাবে হাইকোর্ট।

এর আগে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির ২০২২-২৪ মেয়াদের নির্বাচন স্থগিত চেয়ে আবেদন করা হয়।  বিচারপতি মো. খসরুজ্জামানের নেতৃত্বাধীন হাইকোর্ট বেঞ্চে এ আবেদনের শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। ভোটার তালিকা থেকে বাদ পড়াদের মধ্যে ১৬ জন হাইকোর্টে এ আবেদন করেন।

আগামী ২৮ জানুয়ারি শিল্পী সমিতির নির্বাচন হওয়ার কথা রয়েছে।


মন্তব্য করুন


কালার ইনসাইড

স্থগিত হতে পারে চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচন?

প্রকাশ: ০৩:৪৫ পিএম, ২৬ জানুয়ারী, ২০২২


Thumbnail

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচন স্থগিত চেয়ে আবেদন দায়ের করা হয়েছে। আজ বুধবার (২৬ জানুয়ারি) বিচারপতি মো. খসরুজ্জামানের নেতৃত্বাধীন হাইকোর্ট বেঞ্চে এই আবেদনের শুনানি চলছে।

এছাড়া বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচনে ভোটার তালিকা থেকে বাদ পড়া শিল্পীদের আবেদনের শুনানিও চলছে।

ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল অরবিন্দ কুমার রায় বিষয়টি গণমাধ্যমে নিশ্চিত করেছেন।

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি নির্বাচন  


মন্তব্য করুন


বিজ্ঞাপন