ঢাকা, রোববার, ২৫ জুলাই ২০২১, ১০ শ্রাবণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

রাজশাহী, খুলনা এবং কুষ্টিয়াতে করোনায় ২৪ জনের মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২০ জুন ২০২১ রবিবার, ১০:২৮ এএম
রাজশাহী, খুলনা এবং কুষ্টিয়াতে করোনায় ২৪ জনের মৃত্যু

রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের করোনা ইউনিট, খুলনা করোনা হাসপাতাল এবং কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে গত ২৪ ঘণ্টায় মোট ২৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। এরমধ্যে রাজশাহীতে করোনায় একজন এবং বাকি ৯ জন উপসর্গ নিয়ে, খুলনায় ছয়জন করোনায় আক্রান্ত হয়ে এবং একজন উপসর্গ নিয়ে এবং কুষ্টিয়ায় সাতজনই করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গিয়েছেন।

এ বিষয়ে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডা. সাইফুল ফেরদৌস বলেন, ‘বৃহস্পতিবার (১৯ জুন) সকাল ৮টা থেকে শুক্রবার (২০ জুন) সকাল ৮টা পর্যন্ত রামেকের বিভিন্ন ওয়ার্ডে ১০ জন মারা গেছেন। মৃতদের মধ্যে রাজশাহীর সাতজন ও চাঁপাইনবাবগঞ্জের দুজন ও নওগাঁর একজন ছিলেন। করোনায় মৃত একজন ব্যক্তির বাড়ি চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলায়। উপসর্গ নিয়ে মৃতদের মধ্যে রাজশাহীর সাতজন এবং চাঁপাইনবাবগঞ্জের একজন ও নওগাঁর একজন মারা গেছেন। মৃতদের স্বজনদের স্বাস্থ্যবিধি মেনে মরদেহ দাফনের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।’

এদিকে রোগীদের ভর্তি ও সংক্রমণের বিষয়ে তিনি বলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় রামেকে নতুন ভর্তি হয়েছে ৫৪ জন। আর সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৩৮ জন। এছাড়া রামেকে করোনা আক্রান্ত হয়ে ১৬৬ জন। এছাড়া সন্দেহভাজন ও উপসর্গ নিয়ে ২১১ জন ভর্তি রয়েছেন রামেকে। এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় রামেকে ৩০৯টি শয্যার বিপরীতে রোগী ভর্তি ছিলেন ৩৭৭ জন, যা আগের চেয়ে ১২ জন বেশি।’

করোনা পরীক্ষার বিষয়ে উপপরিচালক সাইফুল ফেরদৌস বলেন, ‘গত ২৪ ঘণ্টায় রামেক হাসপাতালের পিসিআর মেশিনে ১৮৮টি নমুনা পরীক্ষায় ৪৫ জনের করোনা পজিটিভ রিপোর্ট এসেছে। আর মেডিকেল কলেজের পিসিআর মেশিনে ৪৬৪টি নমুনা পরীক্ষায় ২৩৫ জন করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসে। পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ৪৬ দশমিক ৯৯ শতাংশ।’

এদিকে, খুলনা করোনা হাসপাতালের ফোকাল পার্সন ও খুমেক হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. সুহাস রঞ্জন হালদার জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সাতজনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে ছয়জন করোনায় আক্রান্ত হয়ে এবং একজন উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন।

এ ছাড়া হাসপাতালে সকাল ৮টা পর্যন্ত ১৫৯ জন রোগী ভর্তি ছিলেন। যার মধ্যে রেডজোনে ৯৮ জন, ইয়ালোজোনে ২৫ জন, এইচডিইউতে ২০ জন এবং আইসিইউতে ১৮ জন চিকিৎসাধীন। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ভর্তি হয়েছেন ৫২ জন। এ সময় সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৪৬ জন।

এদিকে শনিবার (১৯ জুন) রাতে খুমেক পিসিআর ল্যাবের পরীক্ষায় ১৬৫ জনের করোনা পজিটিভ এসেছে।

কুষ্টিয়ায় গত ২৪ ঘণ্টায় ১৬৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ সময়ে সাত জনের মৃত্যু হয়েছে। জেলায় এটিই এখন পর্যন্ত একদিনে সর্বোচ্চ শনাক্ত ও মৃত্যুর রেকর্ড। 

কুষ্টিয়ার সিভিল সার্জন ও জেলা প্রশাসক অফিস এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

নমুনা পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ৩০ দশমিক ৫৪ শতাংশ। নতুন করে শনাক্ত হওয়া ১৬৪ জনের মধ্যে কুষ্টিয়া সদরের ১০০ জন, দৌলতপুরের ১৬ জন, কুমারখালীর ২৪ জন, ভেড়ামারার ১৩ জন, মিরপুরের সাত জন ও খোকসার চার জন রয়েছেন। মৃত সাত জনের চার জন সদরের ও অপর তিন জন দৌলতপুর, কুমারখালী ও মিরপুর উপজেলার বাসিন্দা।

এ পর্যন্ত জেলায় ৫৬ হাজার ৩৮৯ জনের নমুনা পরীক্ষার জন্য নেওয়া হয়েছে। নমুনা পরীক্ষার প্রতিবেদন পাওয়া গেছে ৫৫ হাজার ৮৮৪ জনের। নমুনা পরীক্ষার প্রতিবেদনের জন্য অপেক্ষমাণ রয়েছেন ৫০৫ জন।

বর্তমানে কুষ্টিয়ায় মোট করোনা রোগীর সংখ্যা এক হাজার ২০৭ জন। তাদের মধ্যে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন ৯১ জন এবং হোম আইসোলেশনে আছেন এক হাজার ১৯৫ জন।

কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডের চিকিৎসকরা জানান, করোনার শুরু থেকেই কুষ্টিয়া জেলায় শনাক্তের হার কখনও ২০ শতাংশের ওপরে যায়নি। কিন্তু এখন শনাক্তের হার ৪০ শতাংশের ওপরে উঠে গেছে।