ঢাকা, সোমবার, ২০ আগস্ট ২০১৮ , ৫ ভাদ্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

‘‌ঠগস অফ হিন্দুস্তান’র খুঁটিনাটি

বিনোদন ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৯ জানুয়ারি ২০১৮ শুক্রবার, ০৯:১২ পিএম
‘‌ঠগস অফ হিন্দুস্তান’র খুঁটিনাটি

এ বছর বলিউডের সব থেকে বড় বাজি ‘ঠগস অফ হিন্দুস্থান’। মুক্তি পাবে দিওয়ালিতে। প্রথমবারের মত  অমিতাভ- ‌আমিরের একসঙ্গে পর্দায় উপস্থিতি! সব মিলিয়ে বলাই বাহুল্য বছর সবচেয়ে বড় ধামাকা হতে চলেছে এ সিনেমা।

রুপকথার ডাকাতদের গল্প অনেকেই শুনেছেন। ‘পাইরেটস অফ দ্য ক্যারিবিয়ান’- ‌এর ক্যাপ্টেন জ্যাক স্প্যারোর অভিযানও অজানা নয়। এবার হিন্দুস্তানের ঠগীদের কাহিনী বড় পর্দায় আসছে। আর সেখানে অভিনয় করছে বলিউড সেরারা। ১৮৩৯- ‌এ লেখা ফিলিপ মেডোস টেইলরের উপন্যাস ‘‌কনফেশন অফ আ ঠগ’ অবলম্বনে তৈরি হচ্ছে পরিচালক বিজয়কৃষ্ণ আচারিয়ার ছবি ‘‌ঠগস অফ হিন্দুস্তান’। ব্রিটিশ অধ্যুষিত ভারতের পটভূমিকায় লেখা এই উপন্যাসের কেন্দ্রে রয়েছে আমির আলি নামের এক ঠগী হিরোর গল্প। পর্যটকদের লুঠ করাই ছিল যাদের পেশা।

আমির আলির বাবা-‌মাকে লুঠ করে হত্যা করে একদল নৃশংস ডাকাত। তাদের মধ্যে ইসমাইল নামের এক ঠগীর মায়া পড়ে যায় ছোট্ট আমিরের ওপর। আমিরকে দত্তক নিয়ে তাদের মতো করেই মানুষ করে ইসমাইল। ধীরে ধীরে ঠগীদের আদব-কায়দা রপ্ত করে আমির। কালক্রমে আমির হয়ে ওঠে এক কুখ্যাত ঠগী। ৭০০ জনকে খুন করার তকমা লেগে যায় তার ওপর। কিন্তু মাঝেমধ্যেই আমিরকে তাড়া করে বেড়ায় তার অতীত। ঠগী থেকে কীভাবে ব্রিটিশ-‌রাজের বিরুদ্ধে এক দেশপ্রেমিক বিপ্লবীতে পরিণত হয় আমির, সেই কাহিনীই রয়েছে ‘ঠগস অফ হিন্দুস্তান’।

আমির আলির চরিত্রে দেখা যাবে আমির খানকে। আমিরের পালিত বাবা ইসমাইলের চরিত্রে অভিনয় করছেন অমিতাভ বচ্চন! অর্থাৎ ২০১৮- র সবথেকে বড় ছবির সবথেকে বড় চমক, এই প্রথম একসঙ্গে দেখা যাবে বলিউডের শাহেনশাহ এবং মিঃ পারফেকশনিস্টকে! চমক আরও আছে। যশরাজ ফিল্মস প্রযোজিত ‘ঠগস অফ হিন্দুস্তান’‌-‌এর বাজেট ২১০ কোটি! অন্ততঃ এখনও অবধি সেরকমই জানা গেছে। বাজেট বেড়ে গেলেও আশ্চর্য হওয়ার কিছু নেই।

ইউরোপের মালটা দ্বীপে সমুদ্রের ওপর জাহাজের বিশাল সেট বানিয়ে হয়েছে ‘‌ঠগস অফ হিন্দুস্তান’-‌এর ক্লাইম্যাক্স দৃশ্যের যুদ্ধের শুটিং। এছাড়াও মুম্বাই এবং থাইল্যান্ডেও ছবির কিছু দৃশ্য শুট হচ্ছে। ১৮৬০-‌এর সময়কে বোঝানোর জন্য কোন ত্রুটিই রাখছেন না পরিচালক। এর আগে যশরাজের ব্যানারেই ‘‌তশান’‌ বা ‘‌ধুম থ্রি’ পরিচালনা করেছিলেন বিজয়কৃষ্ণ আচারিয়া। স্পেশাল এফেক্টস বা অ্যাকশন দৃশ্যে তখনই তাঁর দক্ষতা দেখিয়েছিলেন তিনি। এবার তাঁর সামনে রয়েছে ‘বাহুবলী’ র নজির। কোনও রকম আপোস যে তিনি করবেন না সে তো বলাই বাহুল্য!‌ অতএব প্রযোজক আদিত্য চোপড়া পরিচালকের আবদার মতো অ্যাকশন ডিরেক্টর থেকে শুরু করে, স্পেশাল এফেক্টস, ভিএফএক্স, সবকিছুর জন্যই হলিউড থেকে কলাকুশলী নিয়ে এসেছেন।

আমির খান এবং অমিতাভ বচ্চনের পাশাপাশি এই ছবিতে রয়েছেন দুই নায়িকা। আমিরের ঠগী গ্যাং-‌এর এক দুর্ধর্ষ তলোয়ারবাজ মেয়ের ভূমিকায় রয়েছেন ‘‌দঙ্গল’ -‌এর গীতা ফোগট ওরফে ফতিমা সানা শেখ। ফতিমার চরিত্রটি আবার আমিরের প্রেমে হাবুডুবু। কিন্তু আমিরের মন জয় করেন এক ব্রিটিশ সুন্দরী। এই ভূমিকায় দেখা যাবে ক্যাটরিনা কাইফকে। দুই নায়িকার সঙ্গে আমিরের এই রোমান্স যে ছবিতে অতিরিক্ত মশলা যোগ করবে তাতে আর সন্দেহ কী!‌ অবশ্য মশলা তো ইতিমধ্যেই যোগ হয়েছে ফতিমা- ‌আমিরের অফস্ক্রিন সম্পর্কে! আমিরের সুপারিশেই নাকি এতবড় প্রজেক্টে ফতিমার প্রবেশ, এমনটা বলতেও ছাড়ছেন না নিন্দুকেরা!‌ কারণ ওই চরিত্রে প্রথমে আলিয়া ভাটের কথা ভেবেছিলেন নির্মাতারা। যদিও পরিচালক বিজয়কৃষ্ণের দাবি, ফতিমা অত্যন্ত সাবলীল অভিনেত্রী। প্রশিক্ষণ নিয়ে তলোয়ার চালনাতেও নাকি তিনি এখন ওস্তাদ হয়ে উঠেছেন!‌

অন্যদিকে ক্যাটরিনা প্রযোজক আদিত্যকে বলেছেন,‘‌ধুম থ্রি’ তে আমিরের পাশে তাঁর নাকি কিছুই করার ছিলনা। এই ছবিতে যেন তাঁর চরিত্র গুরুত্ব পায়। শোনা যাচ্ছে ক্যাট-‌সুন্দরীর আবদার রেখে চিত্রনাট্যে কিছু অদলবদলও ঘটিয়েছেন আদিত্য চোপড়া!‌

সে যাই হোক, ছবির বাজেট, অমিতাভ-‌আমিরের একসঙ্গে প্রথম কাজ, আমির-‌ফতিমা গুজব, উপরন্তু অমিতাভ-আমিরের তাক লাগানো লুকস, সব নিয়ে আপাতত আগ্রহের কেন্দ্রে ‘‌ঠগস অফ হিন্দুস্তান’। ২০১৮-র দিওয়ালিতে যে ধামাকা হতে চলেছে সেটা এখনই নিশ্চিত ভাবে বলা যায়। ‘‌দঙ্গল’- ‌এর পর এটাই হবে আমিরের পূর্ণাঙ্গ ছবি। মিঃ পারফেকশনিস্ট যুদ্ধজয়ে কোনরকম ছাড় দিবে না কাউকে।

তারপরও জানা যাচ্ছে, আমিরের চরিত্রে নাকি প্রথমে হৃতিক রোশনকে ভাবা হয়েছিল। কোনও এক অজ্ঞাত কারণে হৃতিক প্রস্তাব ফিরিয়ে দেন!‘বাহুবলী’ র প্রস্তাব যেভাবে হৃত্বিক ফিরিয়েছিলেন আর কী! তারপর তো ইতিহাস সৃষ্টি করল ‘বাহুবলী’ আর গোপনে হাত কামড়ে, মাথার চুল ছিঁড়লেন হৃত্বিক। এক্ষেত্রেও সেই ইতিহাসেরই পুনরাবৃত্তি হবে, এমনটাই আশঙ্কা করছেন হৃতিক অনুরাগীরা, এবং আশায় বুক বাঁধছেন ‘‌ঠগস অফ হিন্দুস্তান’- ‌এর গ্যাং-‌মেম্বাররা! অপেক্ষা এখন আগামী দিওয়ালির।


বাংলা ইনসাইডার/এমআরইচ