ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৭ জুন ২০২১, ৩ আষাঢ় ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

যৌথ প্রযোজনা জটিলতায় শুভ-মমর ‘বালিঘর’

বিনোদন ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৪ আগস্ট ২০১৮ শনিবার, ০২:০১ পিএম
যৌথ প্রযোজনা জটিলতায় শুভ-মমর ‘বালিঘর’

চলচ্চিত্রের উন্নয়নে ভারত-বাংলাদেশ যৌথ প্রযোজনা শুরু করে। দুই দেশের অর্থায়ন ও শিল্পীদের নিয়ে এ পর্যন্ত বেশকিছু ছবি নির্মিত হয়েছে। কিন্তু সঠিক নীতিমালা না থাকায় যৌথ প্রযোজনায় দেখা দিয়েছে জটিলতা। এই জটিলতায় পড়েছে কলকাতার অরিন্দম শীল পরিচালিত ছবি ‘বালিঘর’। এই ছবিতে বাংলাদেশের মম, আরিফিন শুভ ও কাজী নওশবার পাশাপাশি কলকাতার যিশু সেনগুপ্ত, আবীর চ্যাটার্জী ও ঋত্বিক চক্রবর্তীর অভিনয় করার কথা রয়েছে।

বাংলাদেশের বেঙ্গল ক্রিয়েশনস ও কলকাতার নাথিং বিয়ন্ড সিনেমার প্রযোজনায় ‘বালিঘর’ নির্মিত হবে বলে সবকিছু চূড়ান্ত হয়। চলতি বছরের সেপ্টেম্বর থেকে ছবির শুটিং শুরু হওয়ার কথা ছিল। এমনকি  বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন সংস্থা (বিএফডিসি) থেকেও ছবিটির চিত্রনাট্যের অনুমোদন দেওয়া হয়। এতো কিছুর মধ্যেও ছবিটির নির্মাণ নিয়ে জতিলতা সৃষ্টি হয়েছে।

সম্প্রতি কলকাতার সংবাদমাধ্যম ‘এই সময়’ এর এক প্রতিবেদনে ‘বালিঘর’ নির্মাণে শঙ্কার কথা উঠে আসে। কলকাতার প্রযোজক শুভজিৎ রায় প্রতিবেদককে জানান, সামনেই বাংলাদেশে নির্বাচন। সে কারণেই আমাদের তরফে সিদ্ধান্ত হয়েছে যে কিছুটা সময় পর এই ছবির কাজে হাত দেব আমরা। কারণ শুটিংয়ের জন্য ভারত থেকে অভিনেতা-অভিনেত্রী, কলাকুশলীরা পৌঁছবেন বাংলাদেশে। কোনও দিকে যাতে কোনও সমস্যা না হয়, সেটা খেয়াল রাখা জরুরি।’

এরপর বাংলাদেশের এক ঘনিষ্ঠ সূত্র নাকি প্রতিবেদককে জানান, নির্বাচনের সঙ্গে শুটিংয়ের কোনও সম্পর্ক আছে বলে মনে হয় না। তাই ‘বালিঘর’ তৈরি হলেও ভারত-বাংলাদেশের যৌথ প্রযোজনায় তৈরি হওয়ার সম্ভাবনা কম।’ 

বাংলাদেশের অনেক নির্মাতা ও প্রযোজকদের মতে, ২০১২ সালের নীতিমালা সংশোধন করে নতুন যে নীতিমালা তৈরি হয়েছে, তা মেনে যৌথ প্রযোজনার ছবি তৈরি করা সম্ভব নয়। কারণ তাঁরা মনে করেন, সবকিছুতেই দুই দেশের সমান অংশগ্রহণ থাকতে হবে—এমনটা মেনে কাজ করা সম্ভব নয়। কারণ, ছবির শুটিং চলার সময়ে চিত্রনাট্যে অনেক পরিবর্তন আসে। তাঁর ওপর চিত্রনাট্য জমা পড়ার পরও নানা জটিলতায় মাসের পর মাস আটকে থাকে। এছাড়া রয়েছে আমলাতান্ত্রিক জটিলতা। তাই যৌথ প্রযোজনায় আগ্রহ হারিয়ে ফেলছেন প্রযোজকরা।


বাংলা ইনসাইডার/ এইচপি