ঢাকা, শুক্রবার, ১৯ অক্টোবর ২০১৮, ৪ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ ২০১৭’ আলোচিতরা কে কোথায়?

বিনোদন ডেস্ক
প্রকাশিত: ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮ শুক্রবার, ০৯:২২ পিএম
‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ ২০১৭’ আলোচিতরা কে কোথায়?

গত বছর `মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ ২০১৭` অনুষ্ঠান শেষ হয়েছিল নানা বিতর্কে। প্রথমে ঘোষণা নিয়ে জটিলতা। উপস্থাপক বলে এক কথা, আয়োজক বলে আরেকটা। এরপর সেরা সুন্দরীর মুকুট জয়ী এভ্রিল ‘বিয়ের কথা গোপন করায়’ খেতাব হারিয়েছিলেন এভ্রিল৷ পরে  নতুন করে ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’র নাম ঘোষিত হয় জেসিয়া ইসলামের। ফলেচীনে অনুষ্টিত মিস ওয়ার্ল্ড প্রতিযোগিতায় অংশ গ্রহণের সুযোগও হয় তার। কিন্তু তাঁর দাঁত নিয়েও হয় বেশ সমলোচনা।  

প্রতিযোগিতার শীর্ষ ১০ প্রতিযোগির মধ্যে জান্নাতুল সুমাইয়া হিমিকে বিজয়ী ঘোষণা করার কিছুক্ষণের মধ্যে আয়োজক স্বপন চৌধুরি জানান, তিনি হয়েছেন দ্বিতীয় রানার্সআপ। পরে জান্নাতুল নাঈম এভ্রিলকে বিজয়ী ঘোষণা করা হয়। পরে বিয়ে জটিলতার জন্য সুন্দরী হয় জেসিয়া ইসলাম। এ বছর আবারো শুরু হলো ‘মিস ওয়ার্ল্ড’ প্রতিযোগিতা। তার আগে জেনে নেই গত বছরের শীর্ষে থাকা সুন্দরীদের কী অবস্থা?

জেসিয়া ইসলাম:

৫ ফুট ৮ ইঞ্চি উচ্চতার এ মেয়েকে নিয়ে অনেকে স্বপ্ন দেখেছিলেন। ভেবেছিলেন শোবিজে অঙ্গনে আরেক সুন্দরী আসলো। লাক্স সুপারস্টারদের মতো হয়তো তিনিও শোবিজে শক্ত অবস্থান তৈরি করতে পারবেন। কিন্তু তা আর হলো না মনে হয়। হাতেগোনা কয়েকটি নাটকে অভিনয় করেছেন।  যেখানে দক্ষতা দেখাতে পারেন। বাবা-মায়ের দাম্পত্য জীবনে বিচ্ছেদের কারণে একা জীবন-যাপন করেন। প্রেম করছেন ইউটিউবার সালমান মুক্তাদিরের সঙ্গে। প্রায় প্রতিদিনই তারা খোলামেলা ব্যক্তিগত ছবি ফেসবুকে প্রকাশ করে আলোচনায় থাকে। ইংরেজি মাধ্যম সাউথপয়েন্ট একাডেমিতে পড়াশোনা করে। মাঝেমধ্যে মডেলিংয়ে দেখা যায়।

জান্নাতুল নাঈম এভ্রিল:

তথ্য গোপন করার কারণে চ্যাম্পিয়ন হয়েও সেরার মুকুট নিজের কাছে আর রাখতে পারেননি এভ্রিল। চলে যায় জেসিয়ার মাথায়। পরে টপ ফাইভেও ছিলো না তার নাম। জীবনের এমন ধাক্কা খাওয়ার পরও ঘুরে দাড়ানোর যথেষ্ট সুযোগ তৈরি ছিল এভ্রিলের। কিন্তু তা আর কাজে লাগাতে পারেনি। প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান জাজ তাকে নিয়ে ‘অগ্নি ৩’ নির্মাণ করার পরিকল্পনা করেছিল। কিন্তু শেষমেষ তেমন কোন খোঁজ পাওয়া যায়নি। এক বছরে  কাজ বলতে অভিনেতা সজলের সঙ্গে একটি নাটক আর আসিফ আকবরের সঙ্গে একটি গানের মডেল হওয়া ছাড়া তেমন কিছুই নেই। বিভিন্ন সময়ে নতুন চলচ্চিত্রের নায়িকা হওয়ার খবর ছড়ালেও বাস্তবে তার কোন দেখা নেই। এমন কী শাকিব খানের নায়িকা হয়ে অভিনয় করার খবরও রয়েছে এভ্রিলের ঝুলিতে। ক’দিন আগে রোহিঙ্গাদের নিয়ে একটি ডকুমেন্টারিতে অভিনয় করতে দেখা গেছে এভ্রিলকে। নানা সময়ে তার সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, তার হাতে সিনেমা আছে। কিন্তু সেসব সিনেমার শুটিং কবে শুরু কিংবা পরিচালক কে অথবা কার বিপরীতে। সেসবের কোন তথ্যই দেন না।

জান্নাতুল সুমাইয়া হিমি:

মিস ওয়ার্ল্ডের প্রথম ঘোষণা পর্যন্ত সেকেন্ড রানার্সআপ ছিলেন তিনি। মিডিয়ায় মিস ওয়ার্ল্ড নিয়ে নেগেটিভ বললে পরে টপ ফাইভেও রাখা হয়নি তাকে। জেসিয়া ও এভ্রিলের চেয়ে বিগত এক বছরে ভালোই কাজ করেছেন হিমি। একাধিক নাটকে দেখা গেছে তাকে। বিজ্ঞাপনেও অভিনয় করেছেন। শোবিজের নতুন মুখ হলেও আহামরি পারিশ্রমিক চাওয়ায় অনেক নির্মাতাই তাকে নিয়ে কাজের অনিহা জানায়। ফলে ক্রমশ কাজের পরিমাণ কমছে। অবশ্য মিস ওয়ার্ল্ড প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়ার আগে থেকেই টিভি পর্দায় উপস্থিতি ছিল তার। সেই ধারাবাহিকতায় কাজ করছেন।

জাহরা মিতু:

মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশের প্রথম রানার্সআপ হওয়া জাহরা মিতু বেশ ব্যস্ত সময় পাড় করছেন। প্লাটফর্মটির মঞ্চে খুব একটা আলোচনায় ছিলেন না তিনি। অথচ সেরা পাঁচ সুন্দরীর মধ্যে বিগত এক বছর কাজ নিয়ে খবরের  শিরোনামে ছিলেন মিতু। নাটক, বিজ্ঞাপন, মিউজিক ভিডিওর মডেল সব জায়গাতেই আছে সরব উপস্থিতি। উপস্থাপনায় তাকে সবচেয়ে বেশি দেখা যায়।

চমক তারা ও সঞ্চিতা:

সুন্দরী খোঁজার এ প্লাটফর্মটিতে দ্বিতীয় রানার্সআপ হয়েছিলেন যথাক্রমে চমক তারা ও সঞ্চিতা রানী দত্ত। দুইজনের কেউ আজ শোবিজে নেই। চমক তারা মেডিকেলে পড়ছেন। অন্যদিকে সঞ্চিতা লেখাপড়া শেষ করেছেন রাজশাহী থেকে। এলএলবি পাশ করে শিক্ষানবিশ আইনজীবী হিসাবে কাজ করছিলেন প্রতিযোগিতায় যখন অংশ নিয়েছিলেন।  বার কাউন্সিলের এনরোলমেন্টের অপেক্ষায় ছিলেন বলেও জানিয়েছেন তিনি। তিনি আসলে নিজের পরিচয় তৈরী করতে পারেননি।

তৌহিদা তাসনিম তিফা:

মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ প্রতিযোগিতার তৃতীয় রানাআপ তিফা। তিনিও ছিলেন না আলোচনায়। আড়ালেই ছিলেন। অনেক দিন বিরতি দিয়ে মাবরুর রশিদ বান্নাহ পরিচালিত `হোম টিউটর` নামের একটি নাটকে ছোট চরিত্রে অভিনয় করেছেন তিফা। কর্পোরেট শো উপস্থাপনা করেন বলে জানা যায়। পড়াশোনা করছেন শান্ত মরিয়াম ইউনিভার্সিটিতে।

বাংলা ইনসাইডার/এমআরএইচ