ঢাকা, শুক্রবার, ১৯ অক্টোবর ২০১৮, ৪ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

‘পূজার সময় আমি অভিনেতা নই’

বিনোদন ডেস্ক
প্রকাশিত: ১১ অক্টোবর ২০১৮ বৃহস্পতিবার, ০৫:২৪ পিএম
‘পূজার সময় আমি অভিনেতা নই’

দোরগোড়ায় দুর্গা উৎসব। চলতি মাসের ১৫ তারিখ থেকে শুরু হচ্ছে হিন্দু ধর্মের সবচেয়ে বড় উৎসব দুর্গাপূজা। শারদীয় এই উৎসবের আমেজ সবচেয়ে বেশি দেখা যায় কলকাতায়। অন্য সবার মতো কলকাতার সিনেমা পাড়ার তারকারাও মেতে ওঠেন পূজা উৎসবে। সেই সঙ্গে থাকে ব্যস্ততাও। সবমিলিয়ে কলকাতার কয়েকজন তারকার কথায় উঠে এলো তাঁদের পূজার পরিকল্পনা-

দেব

সময়ের অন্যতম সেরা নায়ক বলে কথা। কি উৎসব আর কি আনন্দ, সুপারস্টার দেব মানেই ব্যস্ত কর্মসূচী। আর পূজা মানেই দেবের ছবি মুক্তির ব্যস্ততা। তবে ব্যস্ততার থাকলেও দুর্গাপূজার আনন্দ থেকে বঞ্চিত হতে চান না দেব। তাঁর কথায়, ‘এবারে পূজায় যেহেতু আমার ছবি `হইচই আনলিমিটেড` মুক্তি পাচ্ছে, তাই এটা নিয়েই কাটাব। বলা যায় `হইচই` নিয়েই থাকব। মায়ের কাছে প্রার্থনা করব ছবিটা যেন সকলের ভাল লাগে। আর অষ্টমীর অঞ্জলি দেওয়ার পাশাপাশি ভোগটাও খাব।

রুক্মিণী মৈত্র

নিজের কথিত প্রেমিক দেবের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে রুক্মিণীও অষ্টমীর ভোগ মিস করতে চান না। তবে দেবের মতো তিনি পূজায় কোনো কাজ করেন না। ‘পূজায় আমি কোথাও সেভাবে বেরোই না। বাড়িতেই থাকি। বাড়িতে দিদা, দাদু, মা, আমার ভাইবোনরা আসবে। সবার সঙ্গে জমিয়ে আড্ডা দেব, মজা করব, আমি একমাত্র অষ্টমীর দিন সেজেগুজে বাড়ি থেকে বেরিয়ে অঞ্জলিটা দেব। ওটা আমি প্রতিবছর দিই। অষ্টমীর অঞ্জলিটা আমি শাড়ি পরেই দেব। বাকি দিনগুলো ক্যাজুয়াল পোশাক পরব। আর অবশ্যই অষ্টমীর ভোগটাও খাব। কোন ডায়েটিং নয়। প্রচুর খাওয়া দাওয়া করবো।’

যিশু সেনগুপ্ত

পূজার সময় অভিনেতা ইমেজে ঝেড়ে ফেলে দেন যিশু। পাড়ার পূজা মণ্ডপে সকলের সঙ্গে পূজা উদযাপন করার রীতি নাকি তিনি ছোটবেলা থেকেই করে আসছেন। ‘পূজা মানেই আমার পাড়ার পূজা। সেখানে ছোট বড় সকলের সঙ্গে আনন্দে মেতে উঠি। আজও সেই নিয়মের ব্যতিক্রম হয়নি। এখনো পাড়ার কাকা-কাকীদের কাছে বকুনি খাই। পূজার সময় আমি অভিনেতা নই। আমি তখন পাড়ার ছেলে। তবে এবার মনটা একটু হলেও খারাপ। বেশ কিছু হিন্দি ছবির কাজ পড়ে যাওয়ার কারণে এবার সপ্তমী পর্যন্ত আমাকে মুম্বাই থাকতে হবে। অষ্টমীর দিন কলকাতায় ফিরব। উৎসবে ধুতি-পাঞ্জাবি পরার ইচ্ছে রয়েছে। আর বিরিয়ানি, কাবাব সবই খাব। সঙ্গে থাকছে ‘এক যে ছিল রাজা’ ছবি মুক্তির ব্যস্ততাও।’

প্রিয়াঙ্কা সরকার

এবারের পূজা কলকাতায় পরিবারের সঙ্গেই করছেন ‘চির দিনই তুমি যে আমার’ খ্যাত তারকা প্রিয়াঙ্কা। ‘আসলে পূজা মানে আমার কাছে পরিবার-পরিজন, আর আমার ছেলে সহজকে নিয়ে আনন্দে মেতে ওঠা। পূজার সময় আমি কোনোরকম ডায়েট করি না। তাই সব খাবারই খাব। আর বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডা দেব।  

সোহিনী সরকার

‘আমার ছোটবেলার পূজা কেটেছে মফস্বলে। পাড়ার পূজাতেই থাকতাম। ওখানেই সময় কাটত। একটু বড় হওয়ার পর বন্ধু-বান্ধবদের সঙ্গে এখানে-ওখানে ঘোরার অনুমতি পেয়েছিলাম বাড়ি থেকে। এ বছর পূজায় সপ্তমী পর্যন্ত ব্যস্ত থাকব। অষ্টমী ও নবমী কলকাতার বাইরে যাওয়ার ইচ্ছে রয়েছে। দশমীর দিন আবার শহরে ফিরব। আমি এমনিতেও সারা বছর ডায়েটিং করি না। তাই সারা বছর যে ধরনের খাবার খেতে পছন্দ করি উৎসবেও সেগুলো খাব। পোশাক হিসেবে গায়ে শাড়ি জড়াব। সেই সঙ্গে `ব্যোমকেশ গোত্র` ছবির মুক্তি নিয়ে কিছুটা ব্যস্ত সময়ও কাটাব।’

বাংলা ইনসাইডার/ এইচপি