ঢাকা, সোমবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৫ আশ্বিন ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

শুধু রক নয়, এবি রয়েছেন সংগীতের সকল শাখায়

বিনোদন ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৯ অক্টোবর ২০১৮ শুক্রবার, ০৫:১৫ পিএম
শুধু রক নয়, এবি রয়েছেন সংগীতের সকল শাখায়

একজন রকস্টার কিম্বা দক্ষ গিটার বাদক হিসেবে সর্বজনে পরিচিত আইয়ুব বাচ্চু। তিনি নিজেও এমন পরিচয় বহন করতে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করতেন। কিন্তু তিনি কি শুধুমাত্র রকের ছকে বাঁধা ছিলেন? অন্তত এবি ভক্ত এবং দেশের গুনি শিল্পীরা এমন প্রশ্নকে ধুলোয় উড়িয়ে দেবেন। এবির বন্ধু কুমার বিশ্বজিৎ বলেছেন, ‘শুধু ব্যান্ডে নয়, দেশে বাচ্চুর মতো কমপ্লিট মিউজিশিয়ান খুব কমই রয়েছে।’

একজন শিল্পীর মধ্যে যেসব গুণাবলী থাকা উচিত তাঁর সবই ছিল আইয়ুব বাচ্চু তথা এবির মধ্যে। বরং নজস্ব কিছু ধারাও সৃষ্টি করে দিয়ে গেছেন তিনি। ছোটবেলায় ইংরেজি গান দ্বারা প্রভাবিত হলেও, সব ধরনের সঙ্গিতের ওপর এবির ছিল বিস্তর দখল। সংগীতকে তিনি নির্দিষ্ট ধারায় বন্দী করেননি কখনো। নিজে রক শিল্পীর তকমা অর্জন করলেও- আধুনিক, ফোক এবং ধ্রুপদী সংগীতকে তিনি কখনোই আলাদা করেননি। তাঁর কাজের মধ্যেই খুঁজে পাওয়া যায় সব ধরনের সংগীতের প্রভাব।

নিজের একক ও ব্যান্ড ক্যারিয়ারের পাশাপাশি বহু আধুনিক শিল্পীদের জন্য গান তৈরি করেছেন এবি। খালিদ হাসান মিলু, আলম আরা মিনু, শেখ ইশতিয়াক, আগুন, ন্যান্সি, কনা, তপন চৌধুরী, ফাহমিদা নবী, শাকিলা জাফর এমন বহু জনপ্রিয় শিল্পী এবির সুরে গান গেয়েছেন। আগুনের গাওয়া ‘আমার স্বপ্নগুলো কেন এমন স্বপ্ন হয়’ শিরোনামের তুমুল জনপ্রিয় এই গানটি আইয়ুব বাচ্চুরই সুর করা। এমনকি লোকসংগীত নিয়ে তাঁর ‘ভাটির টানে মাটির গানে’ শিরোনামে একটি পুরনাঙ্গ অ্যালবাম রয়েছে। ২০১০ সালে শিশুদের জন্য ‘ফুলবাবা ভুলবাবা’ শিরোনামের একটি অ্যালবামেও সুরারোপ করেন রক তারকার খেতাব পাওয়া এবি।  

চলচ্চিত্রের গানকেও সমৃদ্ধ করেছেন এবি। ১৯৯৬ সালে মান্না ও মৌসুমি অভিনীত ‘লুটতরাজ’ ছবিতে প্রথমবারের প্লেব্যাক করেন তিনি। গানের শিরোনাম ‘অনন্ত প্রেম তুমি দাও আমাকে’। গানটির তুমুল জনপ্রিয়তা তাঁকে চলচ্চিত্রে ধারাবাহিক হতে সাহায্য করে। এরপর আম্মাজান’ ছবির ‘আম্মাজান’, ‘স্বামী আর স্ত্রী’,  ‘ব্যাচেলর’ ছবির ‘আমি তো প্রেমে পড়িনি’, ‘লাল বাদশা’ ছবির ‘আরো আগে কেনো তুমি এলে না’, ‘তেজী’ ছবিতে ‘এই জগত সংসারে তুমি এমনই একজন’, ‘তোমার আমার প্রেম এক জনমের নয়’, ‘মেয়েরা মাস্তান’ ছবিতে ‘ঘড়ির কাঁটা থেমে থাক’, ‘চোরাবালি’ ছবিতে ‘ভুলে গেছি জুতোটার ফিতেটাও বাঁধতে’ এর মতো গানে কণ্ঠ দিয়েছিলেন তিনি।

বিজ্ঞাপনের জিঙ্গেল তৈরিতেও মুন্সিয়ানা দেখিয়েছেন এবি।  নব্বইয়ের দশকে ‘স্টার শিপ’ দুধের বিজ্ঞাপনে তাঁর গাওয়া ‘সুখের জীবন’ গানটি ক’জনই বা ভুলতে পেরেছে। এছাড়া ‘রয়্যাল টাইগার এনার্জী ড্রিঙ্কস’ এর বিজ্ঞাপনে আজও দেখা যায় তাঁকে। সম্প্রতি পাকিস্তানি একটি বিজ্ঞাপনেও এবির ‘সেই তুমি’ গানের সুর ব্যবহার করা হয়। এমন মেধাবী শিল্পীর প্রয়াণে সঙ্গিতাঙ্গনে যে গভীর শুন্যতা তৈরি হয়েছে, তা কখনো পূর্ণ হওয়ার নয়।

  

বাংলা ইনসাইডার/ এইচপি