ঢাকা, শনিবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮, ১ পৌষ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

কনকচাঁপা কীভাবে মনোনয়ন পেলেন?

বিনোদন ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৮ ডিসেম্বর ২০১৮ শনিবার, ০৫:১৫ পিএম
কনকচাঁপা কীভাবে মনোনয়ন পেলেন?

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের (বিএনপি) রাজনীতির সঙ্গে জড়িত কনকচাঁপা। আসছে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণের জন্য এরই মধ্যে দল থেকে মনোনীত হয়েছেন। সিরাজগঞ্জ-১ আসন থেকে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন তিনি।

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার কথিত ৬৯তম জন্মদিনে গুলশানে রাজনৈতিক কার্যালয়ে তাকে জন্মদিনের ফুলেল শুভেচ্ছা জানিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে বিএনপিতে যোগ দেন তিনি। সেটা ২০১৩ সালের ঘটনা। এর আগে তিনি রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত ছিলেন না। বিএনপিতে যোগ দেয়ার পরও অবশ্য  তেমন কোন দলীয় কার্যালয়ে তাকে দেখা যায়নি। তাইতো বিভিন্ন মহল থেকে প্রশ্ন উঠেছে কীভাবে তিনি প্রার্থীতা পেলেন!

তাদের ব্যাখ্যা, কনঁকচাপা শিল্পী হিসেবে জনপ্রিয়। সেখানে কারও কোন আপত্তি নেই। তবে তিনি বিএনপির রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত থাকলেও মাঠ পর্যায়ে তাকে কখনো দেখা যায়নি। এমনকি কখনো প্রকাশ্যে বিএনপির প্রতিদ্বন্দ্বি আওয়ামী লীগের সমলোচনাও করেননি। তিনি বরাবরই রাজনীতির বিষয়ে চুপ ছিলেন। ক্ষমতায় না থেকেও পর্যাপ্ত সুযোগ সুবিধা ভোগ করতেই তার এমন কৌশল ছিল। অন্যদিকে যেসব  নেতা স্থানীয় পর্যায়ে বিএনপির হয়ে কাজ করেছেন। তাদের বঞ্চিত করেছেন ঢাকায় থাকা কনকচাঁপা। তার চেয়ে বেশ কয়েকজন যোগ্য প্রার্থী ছিল সেখানে। তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বী হবেন আওয়ামী লীগের প্রবীণ নেতা মোহাম্মদ নাসিম। তিনি বর্তমান সরকারে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করছেন।

বিএনপিরই বিভিন্ন মহলে কথা চলছে, বিএনপি হয়তো আগেই জেনে ফেলেছেন এ আসন থেকে কোনমতে পাশ করা সম্ভব নয়। তাইতো নামকাওয়াস্তে কনকচাঁপাকে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে।

কাজিপুর ও সিরাজগঞ্জ সদরের পাঁচটি ইউনিয়ন নিয়ে সিরাজগঞ্জ-১ আসন। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এবার আ.লীগ থেকে মোহাম্মদ নাসিম মনোনয়ন ফরম তুলেছিলেন। আর বিএনপি থেকে ৭ জন দলীয় মনোনয়ন ফরম তুলেছেন।

স্বাধীনতা পরবর্তী কোনো নির্বাচনেই এখানে নৌকার প্রার্থী ছাড়া কেউ জিততে পারেননি। অন্যদিকে চরম অস্তিত্ব সংকটে পড়া বিএনপি এই আসনে নির্বাচনের জন্যে ৭ জন দলীয় মনোনয়ন ফরম তুলে জমা দিয়েছেন। এর মধ্যে ছিলেন কণ্ঠশিল্পী রুমানা মোর্শেদ কনক চাঁপা, কাজিপুর উপজেলা বিএনপির সভাপতি সেলিম রেজা, জেলা বিএনপির সহসভাপতি নাজমুল হাসান তালুকদার রানা, অ্যাডভোকেট রবিউল হাসান, টি এম তহজিবুল এনাম তুষার ও শিহাব তালুকদার ও কাজিপুরের প্রথম উপজেলা চেয়ারম্যান ও বিএনপি নেতা প্রয়াত আব্দুল মজিদ মিনুর পুত্র এ কে এম জাকির রোজেল।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিএনপির অনেক নেতাই জানিয়েছেন, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলটির সম্ভাব্য প্রার্থীদের কেউই এখন কাজিপুরে থাকেন না। এর মধ্যে সঙ্গীত শিল্পী কনক চাঁপাতো ,কোনো নেতাকর্মীকেই চেনেন না।


বাংলা ইনসাইডার/এমআরএইচ