ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৭ জুন ২০২১, ৩ আষাঢ় ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

প্রাণহীন দেহ নিয়ে এফডিসিতে আমজাদ হোসেন

বিনোদন ডেস্ক
প্রকাশিত: ২২ ডিসেম্বর ২০১৮ শনিবার, ০৫:২০ পিএম
প্রাণহীন দেহ নিয়ে এফডিসিতে আমজাদ হোসেন

কিংবদন্তি চলচ্চিত্রকার আমজাদ হোসেন তার প্রাণের এফডিসি-তে আবার ফিরে গেছেন। কিন্তু তাঁর দেহে প্রাণ নেই। অথচ ষাটের দশকে কালজয়ী কিছু চলচ্চিত্র নির্মাণ করে এই এফডিসি-কে প্রাণময় করে তুলেছিলেন তিনি। আজ শনিবার সকালে শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা জ্ঞাপন শেষে আমজাদ হোসেনের মরদেহ এফডিসিতে নেওয়া হয়। সেখানে তাঁর জানাজা সম্পন্ন হয়।

আমাজাদ হোসেনের মরদেহকে ঘিরে এফডিসিতে জনতার ঢল নামে। শোকাহত মানুষের কান্নায় পরিবেশ ভারী হয়ে ওঠে। সেখানে আগে থেকেই অপেক্ষা করছিলেন তাঁর দীর্ঘদিনের সহকর্মী, বন্ধু ও শুভাকাঙ্ক্ষীরা। অশ্রুসজল চোখে গুণী এই মানুষকে শেষবারের মতো বিদায় দেন চিত্রনায়ক আলমগীর, ফারুক, ববিতা, ইলিয়াস কাঞ্চন, চম্পা, সুচরিতা, এটিএম শামসুজ্জামানদের মতো গুণী অভিনেতাদের। এছাড়া ছিলেন লচ্চিত্র পরিচালক সমিতির সভাপতি মুশফিকুর রহমান গুলজার, নির্মাতা বদিউল আলম খোকন, শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান, জনপ্রিয় সুরকার সংগীত পরিচালক আলাউদ্দিন আলী, ফুয়াদ নাসের বাবু, ডিরেক্টরস গিল্ডের সভাপতি সালাউদ্দিন লাভলু, সাধারণ সম্পাদক এস এ হক অলিকসহ চলচ্চিত্র ও নাট্যাঙ্গনের শিল্পীরা।

নামাজের জানাজা শেষে আমজাদ হোসেনকে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে তাঁর জন্ম শেকড় জামালপুরে। সেখানে মায়ের কবরের পাশে তাঁকে সমাহিত করা হবে।

ষাটের দশকে চলচ্চিত্রে কাজ করার স্বপ্ন নিয়ে জামালপুর থেকে ঢাকার এফডিসিতে আসেন আমজাদ হোসেন। চলচ্চিত্রকে ভালোবেসে শুরুতে অভিনয়; এরপর চলচ্চিত্র পরিচালনা, চিত্রনাট্য, গান ও নাটক লেখায় অবদান রাখতে শুরু করেন। তাঁর হাত ধরেই নির্মিত হয় ‘আগুন নিয়ে খেলা’, ‘গোলাপী এখন ট্রেনে’ ‘ভাত দে’, ন’য়নমণি’র মতো কালজয়ী ছবি। বাংলা চলচ্চিত্রকে ঋণী করে সেই তিনিই আজ নিথর দেহ নিয়ে ফিরে যাচ্ছেন নিজ ভূমি জামালপুরে।   

উল্লেখ্য, গত ১৮ ব্রেন স্ট্রোক করে রাজধানীর একটি হাসপাতালে ভর্তি হন আমজাদ হোসেন। এরপর প্রধানমন্ত্রীর সহায়তায় ২৮ নভেম্বর উন্নত চিকিৎসার জন্য তাঁকে ব্যাংককে পাঠানো হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১৪ ডিসেম্বর তিনি মৃত্যুবরণ করেন। ব্যাংকক থেকে গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় তাঁর মরদেহ ঢাকায় পৌঁছে।

বাংলা ইনসাইডার/ এইচপি