ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৭ জুন ২০১৯, ১২ আষাঢ় ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

বিভূতিভূষণের গল্প নিয়ে ওয়েব সিরিজ

বিনোদন ডেস্ক
প্রকাশিত: ১১ জানুয়ারি ২০১৯ শুক্রবার, ০৯:১০ এএম
বিভূতিভূষণের গল্প নিয়ে ওয়েব সিরিজ

লেখক বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের গল্প ও উপন্যাস নিয়ে এ পর্যন্ত বেশ কয়েকটি ছবি নির্মিত হয়েছে। এর মধ্যে ‘পথের পাঁচালী’, ‘অপরাজিত’ ও ‘অশনি সংকেত’ নিয়ে চলচ্চিত্র নির্মাণ করেছিলেন কিংবদন্তি পরিচালক সত্যজিৎ রায়। তিনটি ছবিই দর্শক সমালোচকদের প্রশংসা কুড়াতে সক্ষম হয়। এছাড়া বছর ছয়েক আগে বিভূতিভূষণের কিশোর উপন্যাস ‘চাঁদের পাহাড়’কে চলচ্চিত্রে রূপ দিয়েছিলেন পরিচালক কমলেশ্বের মুখোপাধ্যায়। এবার তাঁর ভৌতিক গল্প ‘তারানাথ তান্ত্রিক’ নিয়ে ওয়েব সিরিজ নির্মাণ করেছেন পরিচালক কৌশিক মুখোপাধ্যায় ওরফে ‘কিউ’।

গতকাল প্রকাশিত হয় ‘তারানাথ তান্ত্রিক’ ওয়েব সিরিজের ট্রেলার। ২ মিনিট ২৬ সেকেন্ড ব্যাপ্তির ট্রেলারে দেখা যায় কলকাতার ১৯৩৯-১৯৪৫ সালের প্রেক্ষাপট। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধকে ঘিরে পুরো বিশ্বে অস্থিরতা। চায়ের দোকানে দুই ব্যক্তি খোশগল্প করছে। অন্যদিকে রেডিওতে খবর, হিটলারের সেনাবাহিনী পোল্যান্ড দখল করেছে। ওই দুই ব্যক্তি হতাশ। চারপাশে যুদ্ধ, দুর্ভিক্ষ। এমন সময় একজন বলতে দেখা যায়, এসবের একমাত্র সমাধান তারানাথ তান্ত্রিক। তাঁরা ঢুকে পড়ে তারানাথের ভয়ংকর ডাকিনী বিদ্যায়, যা মানুষের কাছে ব্ল্যাকম্যাজিক বা কালো জাদু হিসেবে পরিচিত।

ভৌতিক গল্প লেখার জন্য বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছিল দারুণ মুন্সিয়ানা। বিভূতিভূষণের পাঠক মাত্রই তা জানেন। গ্রাম বাংলার পরিবেশকে উপজীব্য করে ডাকিনী, যোগিনী, কাপালিক, শব-সাধনা, অতিপ্রাকৃত ও অশরীরী অস্তিত্ব নিয়ে লেখা বিভূতিভূষণের প্রতিটি গল্পই ভিন্ন আবহ সৃষ্টি করে।

তারানাথ তান্ত্রিক গল্প থেকে জানা যায়, কলকাতা শহরের মট লেনের বাসিন্দা তারানাথ পেশায় একজন জ্যোতিষী। ছোটবেলাতেই ঘর ছেড়ে দেওয়া তারানাথের সময় কেটেছে শ্মশানে আর সাধুদের সান্নিধ্যে। তাই তাঁর অভিজ্ঞতার ঝুলিও কম নয়। সিগারেট, চা আর উত্‍সাহী শ্রোতা পেলেই সেই ঝুলি উন্মুক্ত হয়। তারানাথের এই অভিজ্ঞতাগুলোই বিভূতিভূষণের গল্পে ঠাঁই পেয়েছে। আর এমন একটি গল্প নিয়েই ওয়েব সিরিজ নির্মাণ করেছেন ‘গান্ডু’ খ্যাত পরিচালক কৌশিক মুখোপাধ্যায়।

‘তারানাথ তান্ত্রিক’ ওয়েব সিরিজের মূল চরিত্রে অভিনয় করেছেন কৌশিক রায় ও জয়ন্ত কৃপালিনি। সিরিজটি মুক্তি পাবে চলতি মাসের ১৯ তারিখ।  


বাংলা ইনসাইডার/এইচপি/এমআর