ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৯ মার্চ ২০১৯, ৫ চৈত্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

নাট্যগুরু সেলিম আল দীনের মৃত্যুবার্ষিকী আজ

বিনোদন ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৪ জানুয়ারি ২০১৯ সোমবার, ১১:৫৩ এএম
নাট্যগুরু সেলিম আল দীনের মৃত্যুবার্ষিকী আজ

বাংলা নাটকের গতানুগতিক ধারা বদলে দেওয়ার কারিগর সেলিম আল দীন। সাংস্কৃতিক অঙ্গনে তিনি নাট্যগুরু হিসেবে পরিচিত। চিত্রকলা, নৃত্যকলা, অভিনয়কলা ও সংগীতের সমন্বয়ে তিনি বাংলা নাটকে এক নতুন ধারার সূচনা করেন। আজ থেকে ১১ বছর আগে ২০০৮ সালের ১৪ জানুয়ারি মৃত্যুবরণ করেন এই নাট্যগুরু।

সেলিম আল দীনের জন্ম ১৯৪৯ সালে ১৮ আগস্ট ফেনী জেলায়। ফেনী থেকে মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক সম্পন্ন করে ১৯৬৭ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগে ভর্তি হন সেলিম আল দীন। দ্বিতীয় বর্ষে পড়ার সময় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছেড়ে গিয়ে ভর্তি হন টাঙ্গাইলের করোটিয়ায় সাদত কলেজে। সেখান থেকে স্নাতক পাসের পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগ থেকে এমএ ডিগ্রি লাভ করেন। ১৯৯৫ সালে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ‘মধ্যযুগীয় বাংলা সাহিত্যে নাটক’ বিষয়ের ওপর গবেষণা করে পিএইচডি ডিগ্রি লাভ করেন তিনি।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াকালীন লেখক হওয়ার সিদ্ধান্ত নেন তিনি। তাঁর প্রথম বাংলা সাহিত্য ‘নিগ্রো সাহিত্য’ যা আমেরিকার কৃষ্ণাঙ্গ মানুষদের নিয়ে লেখা হয়। প্রবন্ধটি ১৯৬৮ সালে কবি আহসান হাবিব সম্পাদিত দৈনিক পাকিস্তান পত্রিকায় প্রকাশিত হয়। ১৯৮৬ সালে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে তাঁর উদ্যোগেই খোলা হয় নাটক ও নাট্যতত্ত্ব বিভাগ। শিক্ষকতার পাশাপাশি এ দেশের নাট্যশিল্পকে বিশ্বমঞ্চে তুলে ধরার লক্ষ্যে ১৯৮১-৮২ সালে দেশব্যাপী গড়ে তোলেন বাংলাদেশ গ্রাম থিয়েটার। এর মধ্যেই তাঁর আজীবন শিল্পসঙ্গী নাসির উদ্দিন ইউসুফ বাচ্চুর সঙ্গে যুক্ত হয়ে ঢাকা থিয়েটার প্রতিষ্ঠা করেন। বাঙালির আচার-আচরণ, দৈনন্দিন জীবনযাত্রা তার ঐতিহাসিক সংগ্রাম, অর্থনীতিক উপায়-উপকরণ, উৎপাদন ও বণ্টন ব্যবস্থা, পুরান রূপকথা, সংস্কার বিশ্বাস-অবিশ্বাস, প্রথা-উৎসব, খাদ্যাভ্যাস, সামাজিক রীতি, নৈতিকতা, উৎসব-ক্রীড়াদি ইত্যাদি বিষয় অর্থাৎ বাংলার প্রান্তিক মানুষের প্রতিচ্ছবি ফুটে উঠত সেলিম আল দীনের নাটকে।

অসংখ্য মঞ্চ নাটকের রচয়িতা ও নির্দেশক সেলিম আল দীন। তাঁর উল্লেখযোগ্য নাটকের মধ্যে রয়েছে- শকুন্তলা, কীর্তনখোলা, চাকা, যৈবতি কন্যার মন, মহুয়া, কাঁদো নদী কাঁদো। এছাড়া রেডিও এবং টেলিভিশনের জন্যও অসংখ্য নাটক রচনা করেছেন। রক্তের আঙুরলতা, অশ্রুত গান্ধার, গ্রন্থিকগণ কহে, ভাঙনের শব্দ শুনি, অনৃত রাত্রি, ছায়াশিকারী, রঙের মানুষ, নকশীপাড়ের মানুষেরা, রঙের মানুষ, হীরাফুল প্রভৃতি অসংখ্য জনপ্রিয় টিভি নাটক রচনা করেছেন তিনি।

অসামান্য সৃষ্টিশীল কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ সেলিম আল দীন বাংলা একাডেমী সাহিত্য পুরস্কার, জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার, একুশে পদকসহ বহু সম্মাননা অর্জন করেন।

বাংলা ইনসাইডার/এইচপি/এমআর