ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ৭ ফাল্গুন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

শুরুর ইমেজে নেই তাঁরা

বিনোদন ডেস্ক
প্রকাশিত: ২৪ জানুয়ারি ২০১৯ বৃহস্পতিবার, ০৫:২৫ পিএম
শুরুর ইমেজে নেই তাঁরা

হঠাৎ প্রচণ্ড ঝড়ের পর সুনসান নিরবতাই প্রকৃতির ধর্ম। বলিউডের কয়েকজন তারকার ক্ষেত্রেও যেন এমনটি হয়েছে। ক্যারিয়ারের শুরুটা করেছিলেন ধামাকা দিয়ে। এরপর দিন যত গড়াচ্ছে তাঁদের ক্যারিয়ার ততো বিবর্ণ হচ্ছে।

অভিনেত্রী পরিনিতি চোপড়া যশরাজ ফিল্মসের একজন কর্মকর্তা ছিলেন। সেখান থেকে অডিশনের মাধ্যমে, নিজের অভিনয় প্রতিভার ঝলক দেখিয়ে সুযোগ পান ‘লেডিস ভার্সেস রিকি বহেল’ ছবিতে। তাও আবার পার্শ্ব চরিত্রে। কিন্তু দুর্দান্ত অভিনয় করে ছাপিয়ে যান মূল চরিত্রকে। প্রথম ছবিতেই বাগিয়ে নেন ‘ফিল্মফেয়ার’-এর মতো পুরস্কার। এরপর ‘ইশাকজাদে’ ছবিতেও নিজের জাত চেনান এই তারকা। অভিনয়ে প্রশংসা কুড়ালেও মোটাসোটা শারীরিক গড়ন নিয়ে দর্শকদের সমালোচনার মুখে পড়েন তিনি। প্রায় বছর খানেক বিরতি নিয়ে ছিপছিপে চেহারায় ফিরে আসেন। কথিত ‘গ্ল্যামারাস’ ইমেজের পরিনিতির দেখা মেলে ‘মেরি প্যায়ারি বিন্দু’ ছবিতে। কিন্তু বিধিবাম। ছবিটি বক্স অফিসে মুখ থুবড়ে পড়ে। এরপর বেশ কয়েকটি ছবিতে তাঁর দেখা মিললেও প্রত্যাশিত সাড়া মেলেনি। এখন দেখার পালা অক্ষয় কুমারের বিপরীতে আসন্ন ‘কেশরি’ ছবিতে পরিনিতি নিজেকে কতটা মেলে ধরতে পারেন।

সিদ্ধার্থ মালহোত্রাকে বলা হতো বলিউডের ভবিষ্যৎ সুপারস্টার। ‘স্টুডেন্ট অব দ্য ইয়ার’ ছবিতে দুর্দান্ত অভিনয় দিয়ে তাঁর পথচলা শুরু। প্রশংসায় ভাসতে থাকা সিদ্ধার্থ কিছুটা ভিন্ন ধাঁচের গল্পের ছবি বেছে নিতে শুরু করেন। এরপর তাঁর অভিনীত ছবি এক ভিলেন, ব্রাদার্স, কাপুর অ্যান্ড সন্স, বার বার দেখ, এ জ্যান্টেলম্যান, ইত্তেফাকসহ বেশকিছু ভিন্ন ধাঁচের ছবি দর্শক সমালোচকদের মন ভরাতে পারেনি। মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে তাঁর ‘জাবারিয়া জোড়ি’ ও ‘মারজাওয়ানি’ নামের দুটি ছবি।

সোনাক্ষি সিনহা এখনো ‘দাবাং’ গার্ল হিসেবে খ্যাত। ‘দাবাং’ সিরিজের দুটি ছবিতেই বাজিমাত করেছেন এই তারকা। সালমান খানের বিপরীতে ক্যারিয়ারের প্রথম ছবি ‘দাবাং’-এর জন্য জিতে নিয়েছেন ‘ফিল্মফেয়ার’ পুরস্কার। এরপর অক্ষয়ের বিপরীতে ‘রাওডি রাথোড়’ ছবিতেও তিনি আলো ছড়ান। এই ছবিগুলোর জনপ্রিয়তা তাঁকে সুযোগ করে দেয় বেশকিছু ছবিতে, যেখানে বেশিরভাগই তাঁকে অতিথি চরিত্রে দেখা গেছে। যে কয়টিতে প্রধান চরিত্র পেয়েছেন, সেগুলো আবার বক্স অফিসে ব্যর্থ হয়। চলতি বছর ‘কলঙ্ক’ ও ‘দাবাং ৩’ ছবিতে অভিনয় করতে দেখা যাবে এই তারকাকে।

একজন পার্শ্ব অভিনেতা হিসেবে বলিউড ক্যারিয়ার শুরু করেছিলেন আদিত্য রয় কাপুর। কিন্তু ছোট ছোট চরিত্রের কারনে সেভাবে নিজেকে মেলে ধরার সুযোগ পাননি এই তারকা। এরপর ‘আশিকি ২’ ছবির প্রধান চরিত্রে দুর্দান্ত অভিনয় করে নায়ক হিসেবে ঝড়ো সূচনা করেন তিনি। এরপর ইয়ে জাওয়ানি হ্যায় দিওয়ানি, দাওয়াত-ই ইশক, ফ্লোর, ওকে জানু নামের বেশ কিছু ছবিতে অভিনয় করলেও আলো ছড়াতে ব্যর্থ হন আদিত্য। করণ জোহরের আসন্ন ছবি ‘কলঙ্ক’তেও দেখা যাবে তাঁকে।

অর্জুন কাপুর ২০১২ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘ইশাকজাদে’ ছবিতে অভিনয়ের মাধ্যমে বলিউডে পা রাখেন। এই ছবির জন্য তিনি ফিল্মফেয়ার পুরস্কারে সেরা নবাগত অভিনেতা হিসেবে মনোনয়নও পেয়েছিলেন। এরপর তাঁর অভিনীত গুন্ডে, ২ স্টেটস ও কি অ্যান্ড কা ছবিগুলো বেশ ভালোই ব্যবসায়িক সফলতা অর্জন করে। কিন্তু পরবর্তীতে তাঁরা অভিনীত আওরঙ্গজেব, ফাইন্ডিং ফেনি, তেভার, হাফ গার্লফ্রেন্ড, মুবারকান এবং সর্বশেষ গত বছর মুক্তি পাওয়া নমস্তে ইংল্যান্ড প্রত্যাশিত সাফল্য অর্জন করতে ব্যর্থ হয়।

বাংলা ইনসাইডার/এইচপি