ঢাকা, বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০১৯, ১০ বৈশাখ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

পরের ছবির খবর কী?

বিনোদন ডেস্ক
প্রকাশিত: ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ মঙ্গলবার, ০৯:৫৯ পিএম
পরের ছবির খবর কী?

নাসির উদ্দীন ইউসুফ বাচ্চু ‘গেরিলা’ ছবি মুক্তি দিলেন ২০১১ সালে। ব্যাপকভাবে আলোচিত হলো ছবিটি। জাতীয় পুরস্কারসহ অসংখ্য পুরস্কার জিতলো। এরপর আর তিনি সিনেমা নির্মাণে নেই। ‘আলফা’ নামে একটি সিনেমা নির্মাণের ঘোষণা দিয়েছেন সেই কবে। কিন্তু তার খোঁজ নেই।

গেল দশ বছরে যারা সিনেমা নির্মাণ করে দেশে ও আন্তর্জাতিক মহলে পুরস্কৃত ও প্রশংসিত হয়েছেন। তাদের কেউই নিয়মিত সিনেমা নির্মাণ করেন না। এই যে নিয়মিত সিনেমা নির্মাণ করেন না, সেটা কখনো কখনো এতই দীর্ঘ সময় হয়ে যায় যে তিনি সিনেমা নির্মাতা সেটাও দর্শক ভুলে যায়।

জাহিদুর রহিম অঞ্জনের প্রথম ছবি ‘মেঘমল্লার’ মুক্তি পায় ১২ ডিসেম্বর ২০১৪। সে বছর তিনটি শাখায় জাতীয় পুরস্কার জিতে ছবিটি। চার বছর হয়ে গেল, নতুন কোনো ছবি মুক্তি পায়নি তাঁর। কেন মুক্তি পায়নি? নির্মাণেরও তো কোন খবর নেই। তিনি জানালেন,‘এটা একটা লম্বা সময় অবশ্যই। কিন্তু এটাও ঠিক যে আমি রোজ রোজ সিনেমা বানাতে পারবো না। গল্প ঠিক করা, প্রযোজনা নিয়ে থাকে অনেক রকম ঝামেলা। শাহিন আক্তারের গল্প নিয়ে পরের ছবি করব ভেবেছি। প্রাথমিকভাবে নাম ঠিক করেছি ‘মেকআপ বক্স’।

শিহাব শাহীনের ‘ছুঁয়ে দিলে মন’ মুক্তি পায় ১০ এপ্রিল ২০১৫। চার বছর হয়ে গেছে নতুন ছবি নির্মাণে হাত দিতে পারেননি। টিভি নাটক আর টেলিফিল্ম বানাচ্ছেন নিয়মিতই। গত বছর ‘আনারকলি’ নামের নতুন একটি ছবি নির্মাণের ঘোষণা দিয়েও শুরু করছেন না। তিনি জানান,‘ সিনেমার যা অবস্থা। একটা সিনেমা শুরু করলে ওটা নিয়েই পরে থাকতে হয়। সাত- আট মাস কোন কাজ করা যায় না। বসে বসে শুধু অন্ন ধ্বংস করা ছাড়া ইনকামও হয় না। এটা একটা খুব প্রেসার হয়। ‘ছুয়ে দিল মন’ দুই বছরের একটা চাপ ফেলেছিল। দু্ বছর আমি টেলিভিশনে কাজ করিনি। বছরে পাঁচ সাতটা ছবি আমার পক্ষে করা সম্ভব নয়। আমাদের ডিরেক্টরদের সার্ভাইভ করার জন্য যা ইনকাম স্ট্রাকচার। তাতে বছরে মিনিমাম চারটা ছবি করা উচিত। কিন্তু চারটা সিনেমা করার মত ক্ষমতা আমার নেই। সেই কারণেই বসে বসে কোন ইনকামের চিন্তা বাদ দিয়ে মিনিমাম ছয়মাস বের করতে হবে। গত বছর ইলেকশন গেল। এসব নিয়েও জট বেধেছিল। দেখা যাক, এ বছর শুরু করবো।’

মেহের আফরোজ শাওনের প্রথম ছবি ‘কৃষ্ণপক্ষ’ মুক্তি পেয়েছে ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৬। সে বছরই ঘোষণা দিয়েছেন পরের ছবি ‘নক্ষত্রের রাত’-এর। হুমায়ূন আহমেদের উপন্যাস অবলম্বনে এই ছবি। নায়ক-নায়িকাও ঠিক করে রেখেছিলেন। কিন্তু ছবির খবর নেই। তিনি জানালেন, ‘‘গৌরীপুর জংশন’ ও ‘নক্ষত্রের রাত’ নামের দুটি চিত্রনাট্য তৈরি করছেন। আরও একটি সিনেমার চিত্রনাট্য তৈরী। এখনই নাম বলতে চাচ্ছি না। খুব শিগগিরই এসব সিনেমার নাম ঘোষণা করবো।’

রুবাইয়াত হোসেন তাঁর নির্মিত সর্বশেষ চলচ্চিত্র আন্ডার কনস্ট্রাকশন দেশ-বিদেশে সমাদৃত ও পুরস্কৃত হয়েছে। তার নতুন সিনেমার নাম ‘শিমু’। জানালেন, প্রাথমিক কাজ শেষ। মানে আপাতত চিত্রনাট্য পর্যায়ে আছে। লোকেশন দেখছি, অভিনয়শিল্পী নিয়ে ভাবছি। দেখা যাক, খুব তাড়াতাড়ি শুরু করব। এ বছরই শুরু করার ইচ্ছে।’

শাহনেওয়াজ কাকলীর নাকি ৬ টি ছবির চিত্রনাট্য লেখা শেষ। জমে আছে ছবি নির্মাণের অপেক্ষায়। সব কটি চিত্রনাট্য নিয়েই আছেন প্রযোজকের অপেক্ষায়। এর মধ্যে ‘বাংলাদেশের চিঠি’ নামের মুক্তিযুদ্ধের একটি চলচ্চিত্র খুব শিগগিরই শুরু করবেন।

শামীম আখতার এখন পর্যন্ত তিনটি চলচ্চিত্র নির্মাণ করেছেন। রীনা ব্রাউন ছিল তাঁর সর্বশেষ মুক্তি পাওয়া ছবি। নতুন ছবির প্রসঙ্গে তিনি জানালেন, দুটি ছবি নির্মাণের প্রক্রিয়া শুরু করেছেন। ‘অগ্নিজিতা’ নামের ছবিটি নির্মাণ হবে বীরাঙ্গনাদের নিয়ে। পাশাপাশি ‘ভাসান’ নামের আরও একটি ছবি শুরু করবেন তিনি।

অমিতাভ রেজা ‘রিকসা গার্ল’ সিনেমার ঘোষণা দিয়েছেন সেই কবে। এখন পর্যন্ত সিনেমাটি শুরু করতে পারেননি।

এছাড়াও অনিমেষ আইচ, নুরুল আলম আতিক, নারগিস আক্তার, রেদওয়ান রনি, এনামূল করিম নির্ঝর, মুরাদ পারভেজ, ইফতেখার আহমেদ ফাহমি, রিয়াজুল রিজুর হাতে ছবি নেই্। তাঁরা কবে ছবি নির্মাণে হাত দেবে তারও কোন সুনির্দিষ্ট তারিখ নেই।


বাংলা ইনসাইডার/এমআরএইচ