ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০১৯, ১২ বৈশাখ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Bangla Insider

বলিউড তারকারা বিজ্ঞাপনে কে কত পান?

বিনোদন ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ বুধবার, ০৫:০২ পিএম
বলিউড তারকারা বিজ্ঞাপনে কে কত পান?

একটা সময়ে বলিউড তারকাদের খুব বেশি বিজ্ঞাপনের মডেল হতে দেখা যেত না। কিন্তু সময় বদলেছে। ভারতের সেরা সেরা সব ব্রান্ডের মডেল হয়ে আছেন বলিউড তারকারা। আর এই বিজ্ঞাপনের জন্য পারিশ্রমিক হিসেবে নিচ্ছেন অবাক করার মত। অনেকের তো প্রতি বছর অভিনয়ের চেয়ে অনেক বেশি আয় হয় এই বিজ্ঞাপনের জন্য। তারকাদের মধ্যে বিজ্ঞাপনে চুক্তিবদ্ধ হওয়া নিয়ে চলে প্রতিযোগিতা। তারকাদের তারকা মূল্য এবং তাদের অবস্থান নির্ধারণেও এই বিজ্ঞাপন গুলো হয়ে উঠে অন্যতম নিয়ামক।

তাদের ব্রান্ড ভ্যালু:

দেশের সেলেব্রিটিদের দিকে তাকিয়েই বিজ্ঞাপন তৈরি করে সংস্থাগুলি। সেলিব্রেটিদের ‘ব্র্যান্ড ভ্যালু’ হিসেব করে তাদের মডেল করা হয়। তিনি থাকলে কতটা প্রভাব ফেলতে পারে একটা বিজ্ঞাপন, দেখা হয় এ সব। এই মুহূর্তে ভারতীয় ক্রিকেট অধিনায়ক বিরাট কোহলি এই ব্রান্ড ভ্যালুতে ভারতে সবচেয়ে এগিয়ে। ডাফ অ্যান্ড ফেল্পস একটি সমীক্ষা চালায়। সেখানে ‘দ্য বোল্ড, দ্য বিউটিফুল অ্যান্ড দ্য ব্রিলিয়ান্ট’- এই তিনটি বৈশিষ্টের ভিত্তিতে রিপোর্ট করা হয়েছে। ২০১৯ সালে এসে বিরাটের ব্র্যান্ড ভ্যালু প্রায় ১৭০.৯ মিলিয়ন ডলার অর্থাৎ ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় ১২০৫ কোটি টাকা।

তাদের মূলত এই আয়টা হয়-ই-কমার্স, রিটেল, এফএমসিজি ও স্মার্টফোনের বাজার থেকে। দ্বিতীয় স্থানটি দখল করেছেন বলিউড নায়িকা দীপিকা পাড়ুকোন। ‘পদ্মাবত’ নায়িকার ব্র্যান্ড ভ্যালু প্রায় ১০২.৫ মিলিয়ন ডলার অর্থাৎ ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় ৭২৩ কোটি টাকা।

তৃতীয় স্থানেও কিন্তু খানদের প্রাধান্য নেই। অক্ষয় কুমার রয়েছেন তৃতীয় স্থানে। তাঁর ব্র্যান্ড ভ্যালু ৬৭.৩ মিলিয়ন ডলার অর্থাৎ ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় ৪৪৭ কোটি টাকা ।

সিম্বা অভিনেতা রণবীর সিংয়ের ব্র্যান্ড ভ্যালু প্রায় ৪৪৫ কোটি টাকা। তিনি আছেন চতুর্থ স্থানে।

সেলেব্রিটিদের নিয়ে ভারতে ২০০৭ সালে বিজ্ঞাপন নির্মাণ হয় ৬৫০টি, ২০১৭ সালে তা ১৬৬০, ২০১৯ সালে যার পরিমান বেড়েছে আরও দুইশ।

শুধু বিজ্ঞাপনেই আছেন তারা:

যেমন কাজলের কথাই ধরুন, সিনেমায় নিয়মিত না দেখা গেলেও বিজ্ঞাপনের মাঠে ঠিকই আছেন। এভাবে কারিশমা কাপুর অথবা জুহি চাওলারাও বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে সারা বছর দর্শকের সামনে উপস্থিত হচ্ছেন। ক্যান্সার আক্রান্ত সোনালী বেন্দ্রে একটু সুস্থতা পেলেই বিজ্ঞাপনের জন্য ক্যামেরার সামনে দাড়িয়ে গেছেন। এমন অনেক তারকাই আছেন যারা সিনেমায় নেই, কিন্তু বিজ্ঞাপনে বাজিমাত করছেন।

পারিশ্রমিকে এগিয়ে:


দীপিকা পাডুকোন: বিজ্ঞাপনে এখন নায়িকাদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি আয় দীপিকা পাড়ুকোনের। প্রতিদিন হিসেবে তিনি নাকি নিয়ে থাকেন ৩ থেকে ৫ কোটি রুপি। ফোর্বস সাময়িকীর ভারত সংস্করণ এ গত বছর শেষে সর্বোচ্চ আয় করা ১০০ জন নারীর তালিকায়, যেখানে প্রথম সারিতে চতুর্থ স্থানে অবস্থান করছিলেন বলিউড সুন্দরী দীপিকা পাড়ুকোন। গেল বছর তার আয় ১১২ কোটি ৮০ লাখ রুপি।

অক্ষয় কুমার:  এই অভিনেতা বিভিন্ন অটোমবাইলস, সেলফোন সহ ইলেক্ট্রনিক্স গ্যাজেট এবং বিভিন্ন ফ্যাশন ব্র্যান্ডের প্রচারের সঙ্গেই তিনি জড়িত। অক্ষয়ের প্রতিদিনের পারিশ্রমিক সাড়ে তিন কোটি রুপি।

রনবীর সিং: ৩ কোটি রুপি নিয়ে থাকেন প্রতিদিনের জন্য। তবে শোনা যাচ্ছে, গেল বছর একটি বিজ্ঞাপনের জন্য ৭৫ কোটি হাকিয়েছিলেন। সেখানে অবশ্য দুই বছরের জন্য চুক্তি ছিল। যে চুক্তিতে দুই বছরে বেশ কিছু বিজ্ঞাপন ও শোতে অংশগ্রহণ করতে হবে ওই পণ্যের জন্য।

সালমান খান: প্রতিদিন পারিশ্রমিক হিসেবে তিনি নিয়ে থাকেন ৩ কোটি রুপি। তবে তিনি সব বিজ্ঞাপনের মডেল হন না।

অমিতাভ বচ্চন: গুজরাট ট্যুরিজমের বিজ্ঞাপন সহ মাথার তেল, ক্রিম, নুডুলস এমন কোন বিজ্ঞাপন নাই যেখানে অমিতাভ করেননি। তার পারিশ্রমিক ঠিক জানা না গেলেও প্রথম দুই চারজনের মধ্যেই তার নাম থাকবে বলে ভারতীয় গণমাধ্যম জানায়।

আমির খান: বিজ্ঞাপনে কাজের জন্য প্রতিদিন তিনি পাঁচ কোটি রুপী নিয়ে থাকেন। যা এ পর্যন্ত বলিউডে সর্বোচ্চ পারিশ্রমিক। তবে গত বছর তাকে গালভর্তি দাড়ি, মাথায় পাগড়ি, পাঞ্জাবি উচ্চারণ, আর গ্রাম্য ব্যবসায়ী রূপে যে দেখা মিলেছিল। নতুন চিন্তার জয়গান গাওয়া হয়েছে তাতে। বলা হয়েছে, শুধু ছেলে নয়, মেয়েরাও পারে অর্থনীতিতে উল্লেখযোগ্য অবদান রাখতে। সেই বিজ্ঞাপনে নাকি আমির নিয়েছিলেন ১০০ কোটি রুপি। অবশ্য শুধু অভিনয়ই নয়, বিজ্ঞাপনদাতা প্রতিষ্ঠানটির বিপণণ কৌশল থেকে প্রচারের ধরন সবই ঠিক করেছেন আমির।

শাহরুখ খান: ইদানিং শাহরুখ একটু কম কাজ করছেন। তিনি বিজ্ঞাপনে কাজের জন্য আনুমানিক প্রতিদিন দেড় থেকে দুই কোটি রুপী নিয়ে থাকেন। তার বিজ্ঞাপন থেকে বাৎসরিক আয় সবচেয়ে বেশি। যা তিনি সিনেমা অভিনয়ের চেয়েও অনেকবেশি আয় করেন।  

ক্যাটরিনা কাইফ: তার করা স্লাইস আমের জুসের বিজ্ঞাপন জনপ্রিয়তার সাথে সাথে সমালোচিত হয়েছে অনেক। এছাড়াও তিনি ভারতের শীর্ষস্থানীয় এক অলংকার নির্মাতা প্রতিষ্ঠানেরও ব্র্যান্ড এম্বাসেডর হিসাবে কাজ করেছেন। প্রতিদিন বিজ্ঞাপনে কাজের জন্য দেড় কোটি রুপি নিয়ে থাকেন।

কারিনা কাপুর: বিয়ে- সন্তানের পরও তিনি একের পর এক পণ্যের সাথে যুক্ত হচ্ছেন তাদের প্রচারের জন্য। ইলেক্ট্রনিক্স, জুয়েলারী সহ নানা রকম এফএমসিজি ব্র্যান্ডের মডেল হয়েছেন তিনি। আর এই অভিনেত্রী পণ্যের বিজ্ঞাপনে কাজের জন্য দিন প্রতি দেড় কোটি রুপি নিয়ে থাকেন।

রণবীর কাপুর: ল্যাপটপ, ঘড়ি মোবাইল ফোন সহ বিভিন্ন বিজ্ঞাপনে তার উপস্থিতি পণ্য প্রচারে নতুন মাত্রা এনেছে। তিনিও পারিশ্রমিক নেন দিন হিসাবে এবং প্রতিদিনের জন্য তিনি পান ৩ কোটি রুপী।

প্রিয়াংকা চোপড়া: তার ব্যাগে এখন পেপসি, নাইকন সহ বেশ কিছু স্থানীয় এবং বহুজাতিক প্রতিষ্ঠানের জনপ্রিয় সব পণ্যের বিজ্ঞাপন। পারিশ্রমিক হিসাবে তিনি প্রতিদিন এক কোটি রুপি।



বাংলা ইনসাইডার/এমআরএইচ