ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০১৯, ১ শ্রাবণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Bagan Bangla Insider

‘আমি খুব কিউরিয়াস টাইপের ক্যারেক্টার’

বিনোদন ডেস্ক
প্রকাশিত: ১৫ মে ২০১৯ বুধবার, ১২:৫৩ পিএম
‘আমি খুব কিউরিয়াস টাইপের ক্যারেক্টার’

মডেল ও টিভি অভিনয়শিল্পী হিসেবে পরিচিত অর্চিতা স্পর্শিয়া। এই ঈদে মুক্তি পেতে যাচ্ছে তার ‘আবার বসন্ত’ সিনেমাটি। যেখানে তিনি সাহসী চরিত্রে অভিনয় করেছেন। কিভাবে এই চরিত্র করার সাহস পেলেও ও সিনেমার অন্যান্য খবর বললেন অর্চিতা স্পর্শিয়া।

বাংলা ইনসাইডার: যেভাবে ছবিটির প্রস্তাব আসা…

স্পর্শিয়া: পরিচালক অনন্য মামুনের সঙ্গে প্রথমে ‘বন্ধন’ নামে একটি সিনেমায় কাজ করেছি। ওই জায়গায় মামুন ও তার ফুল টিম পরিচিত। আমি একদিন নর্মালি ওর অফিসে গেলাম। ও বললো একটা গল্প আছে তুমি একটু শোনো। আমি গল্পটা পুরোটা যখন শুনলাম, ও কিছু বলার আগেই বললাম, মামুন আমি এটা করতে চাই। তখন ও বললো এটা তুমিই করবা। তোমাকেই ভেবে রেখেছি।

চরিত্রটি কেমন?

বাইরে থেকে মেয়েটা একরকম। যেমন মেয়েটা চঞ্চল হাসিখুশি, লাফাইতেছে এটা করতেছে ওটা করতেছে। কিন্তু ওর ভিতরে আরেকটা ক্যারেক্টার আছে। যেটা ও কারো সঙ্গে প্রেজেন্ট করে না। ওর অনেক দু:খ আছে। ওর একটা পাস্ট আছে। ওর কিছু ভয় আছে। ওর নিজস্ব কিছু ভাবনা চিন্তা আছে। নিজস্ব কিছু দেখার চোখ আছে। এগুলো ওর ভিতরে খুবই ইনার। এটা খুবই মজার। আমার গল্পটা যতটা ভালো লেগেছে। তার চেয়ে অনেক বেশি আমার ক্যারেক্টারটা ভালো লেগেছে। বিশেষ করে যেভাবে তাকে লেখা হয়েছে।

সবাই বলছে, সাহসী চরিত্র…

পরিচালক মামুন নিজেও খুব কনফিউজ ছিলো আমি করবো কি করবো না। ও খুব ভয়ে ভয়ে আমাকে গল্প শোনাইছে। আমি আসলে এত কিছু ভাবি না। এত ভাবনা চিন্তা আমার ছোট মাথায় হয় না বলে আমি মনে করি। এটা রিস্ক কিনা, এটা মানুষ কিভাবে নিবে সেটা নিয়ে ভাবিনা। আমার নিজের কাছে গল্প ভালো লেগেছে। আমার কাছে চরিত্র ভালো লেগেছে। আমার কাছে আমার কো আর্টিস্ট খুব ভালো লেগেছে। মামুনের টিমের সঙ্গে এর আগেও আমি কাজ করেছি। সেখানেও আমার কমফোর্ট জোন ছিল। সব মিলিয়ে কাজটা করলাম।

তারিক আনাম খানের সঙ্গে কাজের অভিজ্ঞতা…

এর আগেও তার সঙ্গে নাটক করেছি। সিনেমা তো সেখানে ভিন্ন। একটা দীর্ঘ সময় একসঙ্গে কাটানো হয়েছে। যেটার কারণে তার কাছ থেকে অনেককিছু শেখা হয়েছে। তারেক ভাই আমার চেয়েও অনেক বেশি মডার্ন আমি বলবো। তার চিন্তা ভাবনা চলন বলন সবকিছুই অনেক আধুনিক। একসঙ্গে কাজ করতে গিয়ে অনেক মজা হয়েছে। এমনকি আমার বয়সী কারো সঙ্গেও এতটা ইনজয় করি না। যতটা ওনার সঙ্গে করলাম। আমাদের কাজের অভিজ্ঞতা খুবই ভালো। আমরা অনেক ফূর্তি করেছি। আমরা বালিতে শুটিং করেছি।

গল্পটা কতটা বাস্তবিক?

এখানে এমন কিছু দেখতে পারবে যেটা আমাদের আশেপাশেই ঘটতেছে। কিন্তু আমরা হয়তো তা নিয়ে ভাবছি না। সেটা নিয়ে কথা বলি না। আমাদের চোখে পড়লেও হয়তো দেখতে পারি না। এমন অনেক উদাহরণ আমার আশেপাশেও আছে। আমিতো প্রচুর মানুষের সঙ্গে মিশি। আমাকে সাধারণত কোন মিডিয়া পার্টি বা বিয়ে-শাদিতে দেখবেন না। কিন্তু আমি খুবই আলাদা ভাবে মানুষের সঙ্গে মিশি। আমার চেয়ে বয়সে ছোট কিংবা বড়। রিকসা ওয়ালা থেকে শুরু করে অনেকেই আমার বন্ধু আছে। আমি খুব কিউরিয়াস টাইপের ক্যারেক্টার একটা। আমার সবকিছু জানতে হয়। আমি অনেক মানুষের সঙ্গে মিশে অনেক মানুষের ভিতরের গল্প জেনেছি।  তো আমার আসে পাশে অনেক ‘আবার বসন্ত’র গল্প আছে। এখানে দুজনারই আলাদা গল্প। আমারও একটা আলাদা গল্প আছে। যা দেখলে প্রতিটা মেয়েই নিজের সঙ্গে রিলেট করতে পারবে।

সিনেমার প্রিয় দৃশ্য কোনটি?

আমার আর তারেক ভাইয়ের সবশেষ যে দৃশ্যটা। সেটা আমার সবচেয়ে প্রিয় ছিল। দৃশ্যের সংলাপগুলো অনেকবেশি টাচি।  

এবারের ঈদ কেমন কাটবে?

‘আবার বসন্ত’ নিয়েই আমার সকল ব্যস্ততা থাকবে। প্রতি বছর তো ঈদের দিন ঘুমানো হয়। এবার প্রচারণা ও বিভিন্ন হলে যাওয়া হবে। আর ঈদের পর তিনটি সিনেমা মুক্তির অপেক্ষায় আছে। ছবিগুলো হলো; ‘কাঠ বিড়াল’,‘মানুষের বাগান’,‘ ইতি তোমারি ঢাকা’।


বাংলা ইনসাইডার/এমআরএইচ