ঢাকা, শনিবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৯, ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

ইংল্যান্ড থেকে জয়ার অনুভূতি

বিনোদন ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৯ জুলাই ২০১৯ মঙ্গলবার, ০৪:৩৫ পিএম
ইংল্যান্ড থেকে জয়ার অনুভূতি

ইংল্যান্ডে জয়া আহসান এরই মধ্যে দু’বার গিয়েছিলেন। একবার গিয়েছিলেন বিশেষ অতিথি হয়ে ইংল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ডের আমন্ত্রণে। শেষের ম্যাচটি দেখতে গিয়েছেন একা একা। এখনো দেশে ফিরেননি। আরো কিছুদিন ইংল্যান্ডে ঘোরাঘুরি করবেন। এবারের ইংল্যান্ড ট্যুর নিয়ে তিনি বলেন,‘আইসিসির মঞ্চে বাংলাদেশের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করতে বেশ ভালোই লেগেছিল। এবারের ক্রিকেট বিশ্বকাপের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের হয়ে ব্যাট করার সৌভাগ্য হয়েছে। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ইংল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড থেকে আমাকে আমন্ত্রণ জানায়। এবার বিশ্বকাপ ক্রিকেটে অংশ নেওয়া সব কটি দেশ থেকে একজন স্পোর্টস ব্যক্তিত্ব আর খেলার বাইরের একজনকে আমন্ত্রণ জানানো হয়। দেশের শুভেচ্ছাদূত হয়ে এমন একটি আসরে অংশগ্রহণ করাটা নিঃসন্দেহে ভীষণ আনন্দের। সেলিব্রিটি ক্রিকেট খেলার অংশটুকু তো ছিল ভীষণ মজার। সেখানে অনেক সিনিয়র ক্রিকেটার ও সেলিব্রেটির সঙ্গে দেখা হওয়ার সুযোগ হয়েছে। সেই মুহুর্তগুলো আসলেই অসাধারণ ছিল। স্যার ভিভ রিচার্ডস, ব্রেট লি, বলিউড তারকা ফারহান আখতার আর পাকিস্তানের মালালা ইউসুফজাইর সহ অনেকের সঙ্গেই দেখা হয়েছে।’

এর পর দেশে ফিরে এলেও ক্রিকেটের টানেই আবার ইংল্যান্ড গেলেন। ‘আসরে বাংলাদেশের শেষ ম্যাচটিতে গ্যালারিতে বসে মাশরাফিদের সমর্থন জানাতে লর্ডসে গিয়েছিলাম। আমার সঙ্গে তখন দেখা হলো জনপ্রিয় নাট্টাভিনেতা ফজলুর রহমান বাবু ও অভিনেত্রী আশনা হাবিব ভাবনা। তবে তিন জনই আলাদা আলাদা গিয়েছি সেখানে। ঢাকায় থাকতে নিজেদের মধ্যে এ বিষয়ে কোনো যোগাযোগ বা প্ল্যান ছিল না। তবে সেখানে যাওয়ার পর গ্যালারিতে প্রবেশের আগে দেখা হয়ে যায় একে অপরের সঙ্গে। বাংলাদেশের খেলা নিয়ে বলতে গেলে বলবো খুব ভালো কিছু তো হয়নি। তবে একদম হতাশ হওয়ার মতোও কিছু হয়নি। বাংলাদেশ যদি শেষ ম্যাচটিতে পাকিস্তানকে হারাতে পারতো। তাহলে আমরা ভক্ত সমর্থকরা হয়তো অনেকবেশি খুশি থাকতাম এই বিশ^কাপ নিয়ে। কিন্তু সেটা যখন হলো না। সেটা আমাদের খেলোয়ার থেকে শুরু করে সমর্থকদের অনেকদিন ভোগাবে।’

বাংলা ইনসাইডার/এমআরএইচ