ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৪ আশ্বিন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
Bagan Bangla Insider

গডফাদার করণের শিষ্য কারা?

বিনোদন ডেস্ক
প্রকাশিত: ২৪ আগস্ট ২০১৯ শনিবার, ০৬:৩৬ পিএম
গডফাদার করণের শিষ্য কারা?

করণ জোহর যাদের সিনেমায় সুযোগ দিয়েছেন, তারা প্রায় সবাই আলোচনায়। কার মধ্যে সম্ভাবনা রয়েছে, কার নেই তা নিখুঁত দৃষ্টিতে বলিউডকে বেছে দিয়েছেন তিনি। শুধু তার হাত ধরে শুরুই নয়, নতুন নতুন কাজের সুযোগ করে দিয়েছেন। তাঁদের কাছে করণ জোহর তাই গডফাদার:

বরুণ ধাওয়ান: করণ জোহরের প্রিয় ছাত্র বরুণ। ‘স্টুডেন্ট অফ দ্যা ইয়ার’, ‘হাম্পটি শর্মা কি দুলহানিয়া’, ‘বদ্রীনাথ কি দুলহানিয়া’ এবং ‘কলঙ্ক’-এর মতো করণ জোহরের সিনেমায় অভিনয় করেছেন। বাবা বিখ্যাত বলিউড পরিচালক ডেবিড ধাওয়ান হলেও করণই তার গুরু। করণের হাত ধরেই বলিউডে পা রেখেছেন।

আলিয়া ভাট: ‘স্টুডেন্ট অফ দ্য ইয়ার’ তিন নতুন বলিউড স্টারের জন্ম দিয়েছে। এক জনের কথা আগেই বলা হয়েছে। বরুণ ধাওয়ান। দ্বিতীয় জন হলেন আলিয়া ভাট এবং তৃতীয় সিদ্ধার্থ মালহোত্রা। আলিয়াও একাধিক বার স্বীকার করেছেন, বাবা মহেশ ভাটের চেয়ে তার ক্যারিয়ার করণ বেশি প্রভাব রাখে। করণের পরামর্শেই তার ক্যারিয়ার চলছে।

সিদ্ধার্থ মালহোত্রা: করণ জোহর এবং সিদ্ধার্থকে মাঝে মধ্যেই এক সঙ্গে দেখা যায়। কখনও ডিনারে, কখনও বা সিনেমা হলে। বিভিন্ন সময়ে পার্টিতে দু’জনকে এক সঙ্গে যেতে আসতেও দেখা গিয়েছে। সিদ্ধার্থ যে করণের খুব প্রিয় স্টুডেন্ট তা আর বোঝার অপেক্ষা রাখে না। ‘স্টুডেন্ট অফ দ্য ইয়ার’-এর পর করণের বেশ কয়েকটি ছবিতে সিদ্ধার্থ অভিনয়ের সুযোগও পান।

অভিষেক বর্মন: ‘স্টুডেন্ট অফ দ্য ইয়ার’, ‘মাই নেম ইজ খান’-এর সহ পরিচালক ছিলেন অভিষেক। এর পর তাঁর বিগ বলিউড ব্রেক ছিল ‘টু স্টেটস’।

জাহ্নবী কাপুর: শ্রীদেবী এবং বনি কাপুরের মেয়ে জাহ্নবীরও বলিউডে পা করণ জোহরের হাত ধরেই। তাঁর প্রথম ছবি ‘ধাড়াক’ করণেরই ছবি। জাহ্নবীর মা শ্রীদেবীও করণ জোহরের খুব ঘনিষ্ঠ ছিলেন। এখন সেই জায়গাটা জাহ্নবীর।

অয়ন মুখার্জি: পরিচালনার পাশাপাশি ছবির স্ক্রিপ্টও লেখেন অয়ন। আর এই দুটোই সম্ভব হয়েছে করণ জোহরের সঙ্গে। ‘কভি আলভিদা না কেহনা’ ছবিতে তাঁকে সহ-পরিচালনার সুযোগ করে দিয়েছিলেন করণ। ‘ওয়েক আপ সিড’ সিনেমার মাধ্যমে বলিউডে অভিষেক। সে সিনেমাটি ছিল করণ জোহরের। -এর স্ক্রিপ্ট রাইটার তিনি। শুধু তাই নয়, এর পরও করণ জোহরের সঙ্গে কাজ করে চলেছেন তিনি। ‘ইয়ে জওয়ানি হ্যায় দিওয়ানি’-র পরিচালনাও তিনিই করেন।

পুণিত মলহোত্রা: ফ্যাশন ডিজাইনার মণীশ মলহোত্রার ভাইপো পুণিত। মণীশ যে করণ জোহরের খুব ভাল বন্ধু, তা সকলেরই জানা। সেই সূত্র ধরেই পুণিতের সঙ্গে পরিচয় করণের। ‘কভি খুশি কভি গম’, ‘কাল হো না হো’, ‘পহেলি’ এবং ‘দোস্তানা’-র মতো ছবিতে পুণিতকে সহ-পরিচালকের কাজ দিয়েছিলেন। করণ প্রযোজিত ছবি ‘আই হেট লভ স্টোরি’-র পরিচালনা করেছিলেন পুণিত।

শকুন বাত্রা: ‘রক অন’, ‘ডন ২’ এবং ‘জানে তু... ইয়া জানে না’ করণ জোহরের এই সব ছবিতে সহকারী পরিচালক ছিলেন তিনি। এর আগে ২০১২ সালে করণ জোহরের প্রযোজিত ছবি ‘এক ম্যায় অউর এক তু’-এ তাঁকে পরিচালনার সুযোগ করে দিয়েছিলেন। এটাই ছিল তাঁর বলিউড ব্রেক। শোনা যাচ্ছে, করণের পরবর্তী ছবি ‘দোস্তানা ২’-ও পরিচালনা করবেন তিনি।

শশাঙ্ক খৈতান: ২০১৪ সালে ‘হাম্পটি শর্মা কি দুলহনিয়া’-য় প্রথম বলিউডে পা শশাঙ্কের। এর পর ২০১৬ সালে ফের করণ জোহর তাঁকে ‘বদ্রীনাথ কি দুলহানিয়া’ ছবিটা লেখার এবং একই সঙ্গে পরিচালনার সুযোগ দেন।

সিদ্ধার্থ পি মলহোত্রা: গডফাদারের ছোঁয়ায় আরও এক সিদ্ধার্থ উন্নতি করেছেন। তবে তিনি অভিনেতা নন, পরিচালক। করণ জোহরের ছবি ‘উই আর ফ্যামিলি’-তে সিদ্ধার্থকে পরিচালনার সুযোগ করে দিয়েছিলেন করণই। রানি মুখার্জি অভিনীত ‘হিচকি’ ছবিটাও তাঁরই পরিচালিত। এই ছবিটা যশ রাজ ফিল্ম প্রোডাকশন হাউসের হলেও করণ জোহর ব্যক্তিগত ভাবে এর প্রমোশন করেছিলেন।

সোনম নায়ার: নিঃসন্দেহে ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির অন্যতম সেরা পরিচালক করণ জোহর। শুধু ভাল অভিনেতা নয়, ভাল পরিচালকও বেছে নেয়। করণ জোহরের ছবি ‘গিপ্পি’-তে সহকারী পরিচালক ছিলেন সোনম। গডফাদারের সংস্পর্শে থাকায় এর পর বহু ওয়েব সিরিজ এবং শর্ট ফিল্ম পরিচালনা করেছেন তিনি।

বাংলা ইনসাইডার/এমআরএইচ